গাড়িতে বসে হাত-পা ঝুলিয়ে রাখা যাত্রীর কাজ নয়: প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ : ২২ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৩০
গাড়িতে বসে হাত-পা ঝুলিয়ে রাখা যাত্রীর কাজ নয়: প্রধানমন্ত্রী
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গাড়িতে বসে হাত-পা বাইরে ঝুলিয়ে রাখা যাত্রীর কাজ নয়। এতে যে কোনো গাড়ির সঙ্গে লেগে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সড়ক পারাপারে অধৈর্য হওয়া যাবে না। পথচারীদের যেমন দায়িত্ব আছে, তেমনি গাড়িচালকদেরও দায়িত্ব আছে।


মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।


শেখ হাসিনা বলেন, ‘রাস্তা বিবেচনা করে সবাইকে গাড়ি চালাতে হবে। নকশা পরিবর্তন করে গাড়ি বড় করা যাবে না। আরেকটি গাড়ি যাওয়ার সাইট বিবেচনা করতে হবে। এটা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’


রাস্তা পারাপারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘রাস্তা পারাপারে অধৈর্য হওয়া যাবে না। সবাইকে ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে।


‘অনেকেই আছেন যারা গাড়িতে বসে হাত-পা, কুনই বাইরে ঝুলিয়ে রাখেন। এটা আসলে যাত্রীর কাজ না। এতে যে কোনো গাড়ির সঙ্গে লেগে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এ ক্ষেত্রে সচেতন হতে হবে।’


‘নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন সরকারের একার না সর্বস্তরের মানুষের’ এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্ঘটনার জন্য শুধু চালক নয়, পথচারীদেরও দায় আছে। এজন্য সড়কে চলাফেরার সময় সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। দুর্ঘটনা ঘটলে দেখতে হবে সেখানে কার দোষ। পথচারীদের যেমন দায়িত্ব আছে, তেমনি চালকদেরও দায়িত্ব আছে।’


প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গাড়ি চালাতে চালাতে মোবাইল ব্যবহার করছে। রেলপথ অতিক্রম করার সময় পথচারীরা মোবাইলে কথা বলছে। ফোনে কথা বলার সময় এত মশগুল যে ট্রেন আসছে সে শব্দও শুনতে পায় না। অনেকে দুই রেললাইনের মাঝখান দিয়ে হাঁটেন। কিন্তু যে কোনো সময় ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যেতে পারে, গাড়ি থেমে যেতে পারে, এতে বড় দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা থাকে।’


চালকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা না করার আহ্বান জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘পেছনে কোনো গাড়ি আছে কি-না, রাস্তার সাইট কতটুকু আছে, ভুল পথে গাড়ি চলছে কি-না এমন বিষয় মাথায় রেখে চালকদের গাড়ি চালাতে হবে। এছাড়া চালকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে হবে। নয়তো কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’


সারাদেশে সড়কের উন্নয়ন হচ্ছে জানিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, ‘আমরা সড়ক উন্নয়ন করছি। দুর্ঘটনা কমে এসেছে। সচেতন হলে একেবারেই কমে আসবে। তিনি বলেন, ‘চারলেনের রাস্তা করার ব্যবস্থা করছি সারাদেশে। ইতোমধ্যে অনেক সড়ক চারলেন হয়ে গেছে। যাতে দুর্ঘটনা কমে সেভাবে কাজ করছি।’


প্রসঙ্গত, আজ ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’। নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) দীর্ঘ ২৬ বছর ধরে সড়ককে নিরাপদ করার লক্ষ্যে আন্দোলন করে আসছে। সড়ককে নিরাপদ করার আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় প্রতি বছর ২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত হয়।


বিবার্তা/এরশাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com