ফেসবুক থেকে
রাসেল ভাইপার ভয়ংকর, কিন্তু গুজবে কান না দিয়ে সতর্ক থাকি
প্রকাশ : ২১ জুন ২০২৪, ১৫:৩৯
রাসেল ভাইপার ভয়ংকর, কিন্তু গুজবে কান না দিয়ে সতর্ক থাকি
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আমরা যারা ফটোগ্রাফি করি, বিশেষ করে রাজশাহী অঞ্চলে গেলে আমাদের বিভিন্ন সময় রাসেল ভাইপারের এলাকা দিয়ে হাঁটতে হয়। সঙ্গত কারণেই এদের নিয়ে কিছু জানা আছে কমবেশি।


রাজশাহীর পদ্মার ওইপারে একটা বন আছে যার নাম রাসেল ফরেস্ট মূলত ঐ বনে প্রচুর রাসেল ভাইপার আছে এইজন্য এই নামকরণ। ঠিক এই পারেই সারাদিন ধরে হেটে ছবি তোলার অভিজ্ঞতা আছে।


এছাড়াও রাজশাহীতে প্রচুর ছবি তোলা হয় সেই সুবাদেও রাসেল ভাইপারের এলাকায় যাওয়া পড়ে। মজার বিষয় হচ্ছে ফটোগ্রাফারদের আবার স্বপ্ন থাকে রাসেল ভাইপারের ছবি তোলা!!


একবার পদ্মার চরে আমাদের এক ফটোগ্রাফার ছবি তুলে বাসায় এসে ফাইল ওপেন করার পর দেখতে পায় পাখির পায়ের কাছে রাসেল ভাইপার কিন্তু ছবি তোলার সময় খেয়াল করেনি এমনকি সাপও তাকে আক্রমণ করেনি।


এই সাপ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটু বেশিই বাড়িয়ে বলা হচ্ছে। মূলত রাসেল ভাইপার পৃথিবীর সবচেয়ে বিষধর সাপের সেরা ১০ এর মধ্যেও নেই এবং এই সাপের এন্টিভেনাম রয়েছে তবে ওঝার কাছে না যেয়ে হাসপাতালে যেতে হবে। এমনকি নিকটস্থ ফার্মেসিতেও এন্টিভেনাম পাওয়া যায় যা বাসায় কক্ষ তাপমাত্রায় সংরক্ষণযোগ্য।


এই সাপ বিভিন্ন এলাকায় আগে থেকেই ছিল তবে এই গরমের কারণে তাদের একটিভিটি বাড়তে পারে অথবা অতিরঞ্জিতও হতে পারে।


গবেষণা বলছে গুইসাপ, পেঁচা, বনবিড়াল, খেকশিয়াল জাতীয় প্রাণী কমে যাওয়ায় ইঁদুর বেড়ে গেছে অন্যদিকে এই সাপের আবার প্রিয় খাবার ইঁদুর। সবমিলিয়ে প্রকৃতির স্বাভাবিকত্ব ধ্বংসের কারণেও এই সাপ বাড়তে পারে।


তবে এই সাপ তেড়ে এসে কাউকে কামড়ায় না বরং মানুষ দেখলে সে পালিয়ে যাওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করে। গায়ে আঘাত লাগলে কিংবা একদম কাছে গেলে সে ভয়ে ছোবল দিতে পারে তবে তার ছোবল দেওয়ার ক্ষমতা খুবই ক্ষিপ্র।


এই সাপ অন্যদিকে অন্যান্য সাপের চেয়ে একদিকে ভালো সে মানুষের আনাগোনা পেলে জোরে হিস হিস শব্দ করে ফলে সহজেই সতর্ক হওয়া যায়। এই সাপের কামড়ে ঠিক কতজন মারা গেছে সেটাও একটা গুজব আর বেশিরভাগ মৃত্যু হয়েছে অজগর ভেবে ধরার কারণে।


অনেকে আবার 'র‍্যাটল স্ন্যাক' সাপের ভিডিও দিয়ে রাসেল ভাইপার বলে চালিয়ে দিচ্ছে। এই র‍্যাটল স্ন্যাক লাফিয়ে আক্রমণ করে। তবে এই সাপ অবশ্যই ভয়ংকর কিন্তু অতিরিক্ত গুজবে কান না দিয়ে সতর্ক থাকি।


লেখক : মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, সহকারী পরিচালক, অভিবাসন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর, বাংলাদেশ।


(ফেসবুক ওয়াল থেকে)


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

এফ হক টাওয়ার (লেভেল-৮)

১০৭, বীর উত্তম সি আর দত্ত রোড, ঢাকা- ১২০৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com