টিসিবির ট্রাকে পণ্য বিক্রি বন্ধ কেন, জানালেন বাণিজ্য মন্ত্রী
প্রকাশ : ১৬ মে ২০২২, ২১:১৫
টিসিবির ট্রাকে পণ্য বিক্রি বন্ধ কেন, জানালেন বাণিজ্য মন্ত্রী
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ট্রাকে করে সয়াবিন তেলসহ নিত্য পণ্য বিক্রির পরিকল্পনা কেন বাদ দেয়া হল, সেই কারণ জানালেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সি।


সোমবার (১৬ মে) ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে টিপু মুন্সি বলেন, ট্রাকে করে ন্যায্যমূল্যের পণ্য বিক্রিতে সুফল পায় কেবল শহরের মানুষরা। তাই গ্রামের মানুষকেও সেই সুফল দিতে জুনের শুরু থেকে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে এক কোটি মানুষের কাছে টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হবে।


বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, আজ থেকে আমরা টিসিবির পণ্য দিতে চেয়েছিলাম, সেটা কিন্তু এক কোটি মানুষের জন্য নয়। ট্রাকে করে ঢাকা-চট্টগ্রাম এমন বড় শহরগুলোতে দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু ‘প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে বলেছেন, টিসিবির পণ্য শহরের মানুষগুলোর পাশাপাশি গ্রামের নিন্ম আয়ের মানুষদেরকেও দিতে হবে’। তাই আমরা একটু সময় নিয়ে ঢাকাসহ সারাদেশের বিভিন্ন গ্রামেও দিতে চাই।


বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য সহনীয় রাখার লক্ষ্যে টিসিবি ডিলারদের মাধ্যমে ট্রাকে করে সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য বিক্রি করতো। পরে তা স্থগিত করে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে বিতরণ শুরু হয়।


টিসিবির ট্রাক সেলে ১১০ টাকায় প্রতি লিটার সয়াবিন তেল বিক্রির কথা ছিল, যেখানে বাজারে দাম ২০০ টাকার কাছাকাছি। এছাড়া টিসিবির ট্রাকে প্রতি কেজি চিনি ৫৫ টাকা, মশুর ডাল ৬৫ টাকা এবং ছোলা ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছিল।


সরকারি এই সংস্থা জানিয়েছিল, ১৬ মে থেকে আবার সারাদেশে সব মহানগরী, জেলা ও উপজেলায় ৩০০টি খোলা ট্রাকের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি শুরু হবে।


কিন্তু বুধবার সরকারের এক আদেশে বলা হয়, ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে বিতরণ বাস্তবায়নের জন্য চলতি মাসের ১৬ থেকে ৩০ মে পর্যন্ত স্বল্প পরিসরে সাধারণ ট্রাকসেল কার্যক্রম বাদ দেয়া হয়েছে। আগামী জুন মাসে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে এক কোটি নিম্ন আয়ের পরিবারকে টিসিবি ভর্তুকি মূল্যে ভোজ্য তেল, মশুর ডাল, চিনি দেবে।


ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি এবং বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে ফ্যামিলি কার্ড প্রণয়ন ও বিতরণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ফ্যামিলি কার্ড বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার পর থেকে শুধু ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমেই টিসিবির পণ্য সামগ্রী বিক্রি হবে।


সোমবার সচিবালয়ের গণমাধ্যম কেন্দ্রে 'বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ)' আয়োজিত ‘বিএসআরএফ সংলাপ’-এ এসে টিসিবির ট্রাক সেল বন্ধের সিদ্ধান্তের কারণ ব্যাখ্যা করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।


তিনি বলেন, ঢাকায় ট্রাকে করে টিসিবির পণ্য দেয়া হয় ১৫ লাখ মানুষকে। বাকি ৮৫ লাখ দরিদ্রের কার্ড থাকে, তাদেরকে দেয়া হয়। ইনস্ট্রাকশনটা এসেছে এবং আমরাও রি-অ্যারেন্জ করেছি। সারাদেশে ৮৫ লাখ মানুষকে বাদ রেখে শুধু ১৫-১৬ লাখ মানুষকে দেয়ার চেয়ে একটুখানি সময় নিয়ে দিতে চাই।


ঢাকা ও বরিশালে কারা ফ্যামিলি কার্ডে পণ্য পাবে, সেই তালিকা আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে তৈরি করে জুনের শুরু থেকেই এক কোটি মানুষকে পণ্য দেয়ার পরিকল্পনা জানিয়ে টিপু মুনশি বলেন, এই ১৫ দিন আমরা পিছিয়ে গেছি, আসলে আরো বেশি অ্যাডভ্যান্স হওয়ার জন্য।


তিনি আরো বলেন, সারাদেশে আমরা এক কোটি মানুষকে টিসিবির পণ্য দিয়েছি দুইবার। আমাদের মাথায় আছে দেশজুরে এক কোটি মানুষকে টিসিবির পণ্য দেয়া নিয়মিত করবো।


বিবার্তা/রিয়াদ/এসএফ


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com