বিএসএমএমইউতে মৌখিক পরীক্ষা শুরু
প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৯, ১৩:১৭
বিএসএমএমইউতে মৌখিক পরীক্ষা শুরু
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগের মধ্যেই উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া চাকরিপ্রার্থীদের এই মৌখিক পরীক্ষা চলবে ৮ জুলাই পর্যন্ত।


সোমবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্যের কার্যালয়ে এ মৌখিক পরীক্ষা শুরু হয়।


এদিন সকালে সরেজমিন ভিসি ভবনের সামনে গিয়ে দেখা যায়, পরীক্ষা চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে আন্দোলনকারীরা বিক্ষোভ করছেন। নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল ও কর্মসূচি চলাকালে তাদের ওপর বর্বরোচিত ও ন্যক্কারজনক পুলিশি হামলার প্রতিবাদে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন এই নিয়োগবঞ্চিত বিক্ষুব্ধ চিকিৎসকরা।


এদিকে আনসার বাহিনীর একাধিক সদস্য প্রবেশমুখে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এ প্রবেশপথে রোগী ও তাদের স্বজনকে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না। ডাক্তার বা অন্য কারো পরিচয় নিশ্চিত হয়ে তবেই প্রবেশ করতে দিচ্ছেন। দোতলায় উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে পুলিশ পাহারা দেখা যায়।


নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিয়োগ পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ একজন চিকিৎসক জানান, রবিবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এসে তাদের ন্যায্য আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন। নিয়োগ নিয়ে অনিয়মের ব্যাপারে রাব্বানী তার অফিসিয়াল ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। সোমবার সকালে তারা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বটতলায় জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা তাদের বের হতে দেননি।


উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া সাংবাদিকদের বলেন, সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। রবিবার লিখিত পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণদের বিক্ষোভ কর্মসূচির কারণে সোমবার তাদের বাধাবিপত্তির মুখে মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় কিনা তা নিয়ে শঙ্কা থাকলেও পরীক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সময়মতো পরীক্ষা দিতে উপস্থিত হন।



তিনি বলেন, সকাল থেকে আন্দোলনকারীদের কাউকে দেখা যায়নি। পরীক্ষা যাতে সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হয়, সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সতর্ক দৃষ্টি রাখছে।


এর আগে রবিবার বিকেল পর্যন্ত আন্দোলনকারীরা নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফলে অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে উপাচার্যের পদত্যাগ ও মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল বাতিলের দাবিতে তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করেন। কিন্তু সন্ধ্যার আগেই পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়।


উল্লেখ্য, ২০ মার্চ অনুষ্ঠিত বিএসএমএমইউতে ২০০ চিকিৎসক নিয়োগ পরীক্ষার ফল মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রকাশিত হয়। ১৮০ মেডিকেল অফিসার ও ২০ ডেন্টাল চিকিৎসক পদে ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় ৮ হাজার ৫৫৭ চিকিৎসক অংশ নেন।


লিখিত পরীক্ষায় একটি পদের জন্য চারজন পাস করেন। এ হিসাবে ৭১৯ মেডিকেল অফিসার ও ডেন্টালের ৮১ জন মিলে ৮২০ জন লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। চূড়ান্ত নিয়োগের লক্ষ্যে তাদের ৫০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হবে।


ফল ঘোষণার পর পরই সুযোগবঞ্চিত চাকরিপ্রার্থীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। যা এখনো চলমান রয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের দাবি, সঠিক নিয়ম মেনে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়েছে। কোনো অনিয়ম হয়নি।


বিবার্তা/রাসেল/তাওহীদ/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com