নোয়াখালীতে নারী নির্যাতন: দেলোয়ার ২ দিনের রিমান্ডে
প্রকাশ : ০৬ অক্টোবর ২০২০, ১৯:১৭
নোয়াখালীতে নারী নির্যাতন: দেলোয়ার ২ দিনের রিমান্ডে
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধূর সঙ্গে পৈশাচিক আচরণের অভিযোগে গ্রেফতার দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দোলায়ারের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) এই মামলায় দেলোয়ারের ২ দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা খাতুনের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।


এর আগে ৪ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত ২টা ৩০ মিনিটের দিকে র‌্যাব-১১ সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাংরোড এলাকা থেকে দেলোয়ারকে গ্রেফতার করে। এসময় তার কাছ থেকে একটি পিস্তল ও ২রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে র‌্যাব।


ওই রাতেই তার দেয়া তথ্যে ভোর সাড়ে ৫টায় ঢাকা জেলার কামরাঙ্গীচর এলাকা থেকে চাঞ্চল্যকর নারী নির্যাতনের ঘটনার প্রধান আসামি মো. নুর হোসেন বাদলকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এদিকে গ্রেফতারকৃত দেলোয়ারকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয় এবং তার বিরুদ্ধে একটি অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়। র‌্যাব-১১ এর কর্মকর্তা ডিএডি আব্দুল্লাহ বাদী হয়ে এই মামলাটি দায়ের করেন।


প্রসঙ্গত ২ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকায় ওই গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে তার স্বামীকে পাশের কক্ষে বেঁধে রাখেন স্থানীয় বাদল ও তার সহযোগীরা। এর পর গৃহবধূকে ধর্ষণ করে তারা। এ সময় গৃহবধূ বাধা দিলে তারা বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে মোবাইলে ভিডিওচিত্র ধারণ করেন। সেটি ছড়িয়ে দেয় ইন্টারনেটে। এ ঘটনায় দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়।


ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, নির্যাতনকারীরা ওই গৃহবধূর পোশাক কেড়ে নিয়ে তার বিরুদ্ধে কিছু একটা বলতে থাকেন। তিনি প্রাণপণ নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করেন এবং হামলাকারীদের ‘বাবা’ ডাকেন, তাদের পায়ে ধরেন। কিন্তু তারা ভিডিও ধারণ বন্ধ করেননি। বরং হামলাকারীরা তার মুখে ও শরীরে লাথি মারেন। এর পর তার শরীরে একটা লাঠি দিয়ে একের পর এক আঘাত করতে থাকেন। এ সময় ঘটনাটি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার উল্লাস প্রকাশ করে ‘ফেসবুক’ ‘ফেসবুক’ বলে চিৎকার করে আরেকজন।


এদিকে এ ঘটনার পর অভিযুক্ত স্থানীয় দেলোয়ার, বাদল, কালাম ও তাদের সহযোগীরা নির্যাতিত গৃহবধূর পরিবারকে কিছু দিন অবরুদ্ধ করে রাখেন। একপর্যায়ে তারা পুরো পরিবারকে বসতবাড়ি ছাড়তে বাধ্য করেন। এ কারণে ঘটনাটি স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে থাকে।


তবে ওই ভিডিওচিত্রটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনার ৩২ দিন পর রবিবার (৪ অক্টোবর) গৃহবধূকে নির্যাতনের ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়। পরে ওই নারী রবিবার (৪ অক্টোবর) রাতে মামলা করেন।


বেগমগঞ্জের ওসি মুহাম্মদ হারুন অর রশীদ চৌধুরী জানান, নির্যাতনের শিকার নারী বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ থানায় রোববার রাত পৌনে ১২টার দিকে পৃথক দুটি মামলা করেন। একটি মামলা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে। অন্যটি পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত র‌্যাব-পুলিশের অভিযানে ৪ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com