সুপার ওভারের সুপার চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড
প্রকাশ : ১৫ জুলাই ২০১৯, ০০:৩৯
সুপার ওভারের সুপার চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

৪৪ বছরের আক্ষেপ ঘুঁচিয়ে সুপার ওভারে সুপার চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। সেই সঙ্গে ২৩ বছর পর নতুন চ্যাম্পিয়ন পেলো ক্রিকেট বিশ্ব। সেই সঙ্গে ক্লাইভ লয়েড, কপিল দেব ও স্টিভ ওয়াহর পর লর্ডসের অভিজাত বেলকনিতে ট্রফি তুলে ধরার সুযোগ পেলেন ইয়ান মরগ্যান। এর আগে তিনবার ফাইনাল খেললেও শিরোপা ঘরে তুলতে ব্যর্থ হয় থ্রি লায়ন্সরা।


রবিবার বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় লর্ডসে ম্যাচটি শুরু হয়। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করে বিটিভি, গাজী টেলিভিশন, মাছরাঙা টেলিভিশন, স্টার স্পোর্টস ওয়ান ও টু।


হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের রোমাঞ্চকর ফাইনালে রোববার দুই দলকে আলাদা করল কেবল বাউন্ডারির হিসাব। বেশি বাউন্ডারি মেরে প্রথমবার ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতল ইংল্যান্ড। ক্রিকেটের জন্মভূমি, ওয়ানডের জন্ম যেখানে সেই দেশ অবশেষে বিশ্বকাপ জিতল নিজেদের আঙিনায়।



লর্ডসে সুপার ওভারে নিউজিল্যান্ডের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৬ রান। জবাবে নিউজিল্যান্ড করেছে ১৫ রান। আবার ম্যাচটি টাই হয়। কিন্তু বাউন্ডারি ব্যবধানে ইংল্যান্ড জিতে যায় ম্যাচটি।


লর্ডসে বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ের পর টস হয়। টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের তৃতীয় বলেই ক্রিস ওকস হেনরি নিকোলসের বিপক্ষে এলবির আবেদন করলে আম্পায়ার ধর্মসেনা সাড়া দেন। কিন্তু রিভিউ নিয়ে সে যাত্রায় বেঁচে যান নিকোলস। এরপর ইংলিশ বোলারদের তোপে পড়ে ব্ল্যাক ক্যাপস ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ৭ ওভারে ক্রিস ওকস ও জোফরা আর্চারের বোলিং তোপে পড়ে কিউইরা। তাদের পেস খেলতে বেশ বেগ পেতে হয় ব্ল্যাক ক্যাপসদের। এরই মধ্যে দলীয় ২৯ রানে ক্রিস ওকসের বলে এলবি হয়ে ফেরত যান মার্টিন গাপটিল। এবারের বিশ্বকাপে তিনি পুরোপুরি নিজেকে মেলে ধরতে ব্যর্থ হলেন।


দ্বিতীয় উইকেটে ক্রিজে এসে অধিনায়ক উইলিয়ামসন হেনরি নিকোলসের সঙ্গে জুটি বাঁধেন। ফর্মে থাকা উইলিয়ামসন মাঠে নেমে প্রথম রানের জন্য ১২ বল মোকাবেলা করেন। এই এক রান নেয়ার মধ্য দিয়ে উইলিয়ামসন বিশ্বকাপের এক আসের অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ রানের মালিক হন। এর আগে এ রেকর্ডের মালিক ছিলেন লঙ্কান সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনে। তিনি ২০০৭ বিশ্বকাপে এ রেকর্ড গড়েন। এরপর আস্তে আস্তে নিকোলসকে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি।



দলীয় ১০৩ রানে দ্বিতীয় উইকেট হিসেবে প্ল্যানকেটের বলে উইকেটের পেছনে বাটলারের শিকার হন। উইলিয়ামসনের বিদায়ের পর অর্ধশত রান করে দ্রুতই বিদায় নেন হেনরি নিকোলস। প্ল্যাঙ্কেটের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে ৭৭ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।


১৪১ রানে অভিজ্ঞ রস টেইলর আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে মার্ক উডের বলে এলবির ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন। জিমি নিশাম পঞ্চম উইকেটে গ্র্যান্ডহোমকে নিয়ে উইকেট মেরামতের চেষ্টা করতে থাকলেও ব্যক্তিগত ৪৭ রান ও দলীয় ১৭৩ রানে ওকসের বলে জিমি ভিনসের হাতে ক্যাচ হয়ে ফেরেন। এরপর ইংলিশ বোলাররা কিউই ব্যাটসম্যানদের ‍উপর আধিপত্য বিস্তার শুরু করলে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৪১ রান করতে সক্ষম হয় কিউইরা।


ইংল্যান্ডের হয়ে ক্রিস ওকস ও লিয়াম প্ল্যাঙ্কেট ৩টি, জোফরা আর্চার ও মার্ক উড একটি করে উইকেট লাভ করেন।


ব্ল্যাক ক্যাপসদের দেয়া ২৪২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে একশ রানের মধ্যেই টপ অর্ডারদের হারিয়ে ফেলে ইংলিশরা। দলীয় ২৮ রানে ম্যাট হেনরির বলে উইকেটের পেছনে ল্যাথামের তালুবন্দী হন জেসন রয়। তার আগে অবশ্য ২০ বলে ১৭ রান করেন তিনি।


এরপর দলীয় ৫৯ রানে গ্র্যান্ডহোমের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন জো রুট। ৩০ বলে তিনি করেন মাত্র ৭ রান। দলের রান যখন ৭১ তখন লকি ফার্গুসনের বলে বোল্ড হন বেয়ারস্টো। ৫৫ বল খেলে বেয়ারস্টোর সংগ্রহ ৩৬ রান।


বেয়ারস্টো ফেরার পর জুটি বাঁধেন মরগ্যান ও স্টোকস। দুজন ভালোই খেলছিলেন। কিন্তু ২৪তম ওভারে নিশামের বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে পয়েন্টে লকি ফার্গুসনের দুর্দান্ত একটি লো ডা ডাউন ক্যাচে ধরা পড়েন মরগ্যান। এ সময় ইংলিশ অধিনায়ক ২২ বলে ৯ রান করেন।



একশ'র আগেই টপঅর্ডারের ৪ উইকেট তুলে নিয়ে বেশ ভালো সম্ভাবনা জাগিয়ে তোলে নিউজিল্যান্ড। কিন্তু তাদের আশায় গুড়েবালি হয়ে যায় পঞ্চম উইকেটে জস বাটলার ও বেন স্টোকস মিলে ম্যাচ জেতানো জুটি গড়লে। এ দুই ব্যাটসম্যানের শতরানের জুটিতে জয়ের পথ সুগম করে ইংল্যান্ড। দুজনই তুলে নেন ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি। তবে জয়ের থেকে ৪৬ রান দূরে থাকতে সাজঘরে ফিরে যান বাটলার, করেন ৬০ বলে ৫৯ রান।


উইকেটে সেট ব্যাটসম্যান বেন স্টোকস থাকায় আশা ছিল স্বাগতিকদের। কিন্তু দ্রুত সময়ের মধ্যে দুই উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তোলে নিউজিল্যান্ড। শেষ তিন ওভারে ৩ উইকেট হাতে রেখে ৩৪ রান করতে হতো ইংল্যান্ডকে। সে পথে ট্রেন্ট বোল্টের করা ৪৮তম ওভারের প্রথম বলেই বাউন্ডারি মেরে শুভসূচনা করেন স্টোকস। তবে সে ওভারের পরের ৫ বলে শুধু ৬ রান খরচ করেন বোল্ট।


৪৯তম ওভারে উইলিয়ামসন নিয়ে আসেন ডানহাতি মিডিয়াম পেসার জিমি নিশামকে। যা করার এ ওভারেই করতে হতো ইংল্যান্ড তথা স্টোকসকে। উল্টো এ ওভারে ম্যাচটি নিউজিল্যান্ডের দিকে হেলে দেন নিশাম। লিয়াম প্ল্যাংকেট ও জোফরা আর্চারের উইকেটসহ মাত্র ৯ রান খরচ করেন তিনি।


শেষের ৬ বলে ১৫ রান করতে হতো স্টোকসকে। বল হাতে নিজের শেষ ওভার নিয়ে আসেন ট্রেন্ট বোল্ট। প্রথম ২ বলেই ডট করে সমীকরণ ৪ বলে ১৫ রানে পরিণত করেন তিনি। তৃতীয় বলেই বিশাল এক ছক্কা হাঁকিয়ে খেলা জমিয়ে দেন স্টোকস। চতুর্থ বলে ভাগ্যের সহযোগিতা পায় ইংল্যান্ড। লেগসাইডে ঠেলে দিয়েই ২ রানের জন্য ছোটেন স্টোকস, দারুণ ফিল্ডিংয়ে গাপটিল স্ট্রাইকিং এন্ডে থ্রো করেলে ড্রাইভ দিয়ে নিজের উইকেট বাঁচানোর চেষ্টা করেন স্টোকস। ঠিক তখনই গাপটিলের করা থ্রো তার গায়ে লেগে চলে যায় বাউন্ডারিতে। ফলে ওভারথ্রোতে আরও ৪ রান পায় ইংলিশরা।


শেষ দুই বলে ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল ৩ রান। পঞ্চম বলে রান আউট হন আদিল রশিদ। শেষ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ২ রান। বেন স্টোকস ও মার্ক উড দৌড়ে সেই রান নিতে গিয়ে রান আউট হন বেন স্টোকস।



সংক্ষিপ্ত স্কোর
নিউজিল্যান্ড ইনিংস: ২৪১/৮ (৫০ ওভার)

(মার্টিন গাপটিল ১৯, হেনরি নিকোলস ৫৫, কেন উইলিয়ামসন ৩০, রস টেইলর ১৫, টম লাথাম ৪৭, জেমস নিশাম ১৯, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ১৬, মিচেল স্যান্টনার ৫*, ম্যাট হেনরি ২, ট্রেন্ট বোল্ট ১*; ক্রিস ওয়েকস ৩/৩৭, জফরা আর্চার ১/৪২, লিয়াম প্লানকেট ৩/৪২, মার্ক উড ১/৪৯, আদিল রশীদ ০/৩৯, বেন স্টোকস ০/২০)।


ইংল্যান্ড ইনিংস: ২৪১ (৫০ ওভার)
(জ্যাসন রয় ১৭, জনি বেয়ারস্টো ৩৬, জো রুট ৭, ইয়ন মরগ্যান ৯, বেন স্টোকস ৮৪*, জস বাটলার ৫৯, ক্রিস ওয়েকস ২, লিয়াম প্লানকেট ১০, জফরা আর্চার ০, আদিল রশীদ ০, মার্ক উড ০; ট্রেন্ট বোল্ট ০/৬৭, ম্যাট হেনরি ১/২৫, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ১/৪০, লকি ফার্গুসন ৩/৫০, জেমস নিশাম, মিচেল স্যান্টনার ০/১১)।


সুপার ওভার
ইংল্যান্ড:
১৫/০ (১ ওভার)
নিউজিল্যান্ড: ১৫/১ (১ ওভার)
ফল: সুপার ওভারে জয়ী ইংল্যান্ড
ম্যাচ সেরা: বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড)
ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট: কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড)


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com