ইসলামপুরে বেগুনের বাম্পার ফলন, দামে হতাশ কৃষক
প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৩:৩৭
ইসলামপুরে বেগুনের বাম্পার ফলন, দামে হতাশ কৃষক
ওসমান হারুনী, জামালপুর প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় এবার বেগুনের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে দাম কম হওয়ায় কৃষকরা হতাশা প্রকাশ করেছেন। ইসলামপুরের ঐতিহ্যবাহী এই বেগুন স্থানীয় সবজির চাহিদা পুরণ করে রাজধানীসহ যাচ্ছে সারাদেশে।


প্রচীন সূত্র কাঁসা, বেগুন ও গুড় এই তিনে মিলে ইসলামপুর। জামালপুর জেলার ইসলামপুরের কৃষকদের উৎপাদিত এই বেগুন খেতে অনেক সুস্বাদু ও পুষ্টিকর। তাই সারাদেশে এই অঞ্চলের বেগুনের চাহিদা থাকায় প্রতিবছর অনেক কৃষক বেগুন চাষাবাদ করে লাভবানসহ জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। চলতি মৌসুমেও ইসলামপুর উপজেলায় প্রায় ১৭শ হেক্টর জমিতে বেগুনের চাষাবাদ হয়েছে। ফলনও হয়েছে বাম্পার। শীতকালীন আগাম সবজি হিসাবে ইসলামপুরের ঐতিহ্যবাহী এই বেগুন স্থানীয় সবজির চাহিদা পুরণ হয়ে ইতোমধ্যে দেশের রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে পরিবহনে যাচ্ছে। চাষিরা গাছ থেকে ছাটাই করে বেগুন মজুত করছেন রাস্তার পাশে। বেগুন ফলন আসার শুরু থেকেই পাইকাররা সরাসরি কৃষকের ক্ষেত থেকে বেগুন কিনছেন।



ছোট, বড়, মাঝারিসহ লম্বা বেগুন প্রকার ভেদে ৩শ টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা মন বিক্রি হচ্ছে। তবে বীজ, কীটনাশকসহ কৃষি শ্রমিকদের মজুরি ও চাষাবাদে খরচ বেড়ে যাওয়ায় বাজারে এবার একটু দাম কম পাওয়ায় হতাশায় পড়েছেন কৃষকরা।


এ ব্যাপারে ইসলামপুর উপজেলা কৃষি অফিসার এ.এল.এম.রেজুওয়ান জানিয়েছেন, এই বছর উপজেলায় ৫০হাজার মেট্রিক টন বেগুন উৎপাদিত হবে। ইসলামপুরের ঐতিহ্যবাহী এই বেগুন সারাদেশে চাহিদা ও সুখ্যাতি রয়েছে। প্রতিবছর স্থানীয় চাহিদা পূরণ হয়ে সারাদেশে যায়। বেগুন চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে সঠিক পরামর্শ দেয়া হয়। যার ফলে ফলনও ভালো হয়।