হিন্দুদের দোকান-বাড়ি ভাঙচুর মামলার আসামি হয়েও সম্মেলনে আ.লীগ নেতা!
প্রকাশ : ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৮:২২
হিন্দুদের দোকান-বাড়ি ভাঙচুর মামলার আসামি হয়েও সম্মেলনে আ.লীগ নেতা!
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে মামলার আসামিকে স্টেজে নিয়ে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন করার অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়, শনিবার (১ অক্টোবর) সিংড়া উপজেলা কোর্ট মাঠে পৌর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গত ২৬ সেপ্টেম্বর পাকুরিয়া গ্রামে বাড়ি, দোকান ভাঙচুর মামলার এক নম্বর আসামি উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ইটালি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম আরিফ।


স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সিংড়া পৌর আওয়ামী লীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিকের সভাপতিত্বে পৌর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। সম্মেলনের উদ্বোধক ছিলেন সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ওহিদুর রহমান শেখ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. জান্নাতুল ফেরদৌস।


হিন্দুদের দোকান ভাঙচুরের অভিযোগ, পাঁচদিনেও নেয়া হয়নি ব্যবস্থা


স্থানীয়রা জানান, গত ২৬ সেপ্টেম্বর উপজেলার পাকুরিয়া গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়সহ গ্রামের কয়েকজনের বাড়ি-দোকানঘরে ভাঙচুর ও লুটপাট চালানো হয়। গ্রামের মুক্তালাল চক্রবর্তী এবং মানিক ঠাকুরের বাড়িঘর গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। পরে লুটপাটের মালপত্র ট্রাক বোঝাই করে নিয়ে যায় অভিযুক্তরা।


এই ঘটনার পরদিন ২৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আরিফা জেসমিন কনিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যটাস দেন। সেই স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, নাটোরের সিংড়ায় ৩নং ইটালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আরিফ এর নেতৃত্বে পাকুরিয়া গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের ২টি বাড়ি ও ৬টি দোকান ১৯৭১ ও ২০০১ এর মতো ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। মুক্তা ঠাকুর এবং মানিক ঠাকুরের বাড়িঘর গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। লুটপাটের মালপত্র ট্রাক বোঝাই করে নিয়ে যায়।


এ ঘটনায় মুক্তালাল চক্রবর্তী বাদি হয়ে সিংড়া থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় সাতজনের নাম উল্লেখসহ ২৫০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। মামলায় এক নম্বর আসামি করা হয় উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ইটালি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম আরিফকে। মামলার আসামি হয়েও সিংড়া পৌর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আরিফের উপস্থিতি স্থানীয় রাজনীতিতে নতুন বিতর্কের সৃষ্টি করেছে।


সিংড়ায় ক্ষতিগ্রস্থ হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি-দোকান পরিদর্শনে প্রশাসনের কর্মকর্তারা


এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জান্নাতুল ফেরদৌস বিবার্তাকে বলেন, আমার জানামতে, তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে এসেছেন। উনি ঢাকায় গিয়েছিলেন। আমি সম্মেলনে উনাকে পরে দেখছি। আমি যেটা জানি জামিন না নিয়ে তো আসার কথা না।


সিংড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ওহিদুর রহমান শেখ বিবার্তাকে বলেন, পাকুরিয়াতে বর্তমান ও সাবেক দুই মেম্বারের মধ্যে গণ্ডগোল হয়েছে। বাড়ি-দোকান ভাঙচুর হয়েছে। ঘটনার পরদিন ডিসি-এসপি কি ঘটছে তা দেখার জন্য গিয়েছেন। পরিদর্শন শেষে তারা বলে এসেছেন, দেখেন কে কি করেছে। যারা এর সাথে সংযুক্ত ব্যবস্থা নেন। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। সেখানে এজাহারে কয়েকজনের নামসহ অজ্ঞাতনামা ২৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। উনি (আরিফুল ইসলাম) আমার দলের জয়েন্ট সেক্রেটারি।


হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি-দোকান ভাঙচুর: প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নিবে আ.লীগ


জানতে চাইলে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বিবার্তাকে বলেন, এটা তো আইনি বিষয়। আপনি ওসি বা পুলিশ সুপারকে জিজ্ঞেস করতে পারেন। উপজেলা বা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক ওনাদের জিজ্ঞেস করলে ভালো হয়। আমি প্রধান অতিথি হলেও ওখানে আমি তো সদস্য মাত্র। দলের সিদ্ধান্ত তো দলের সভাপতি-সম্পাদক ওনারা নেন।


বিবার্তা/সোহেল/এমবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com