রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা বেপরোয়া
প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১০:১১
রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা বেপরোয়া
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

রাজধানীতে বেপরোয়া হয়ে উঠছে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা। প্রায় প্রতিদিনই তাদের খপ্পরে পড়ছেন নানা শ্রেণী পেশার মানুষ। এমনকি তাদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না স্বয়ং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও। শুধু তাই নয়, অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ইতোমধ্যে নিহত হয়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তাও। এতে রাজধানীবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।


সর্বশেষ মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) রাজধানীর পল্টন মোড়ে আকাশ পরিবহনে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন রহমত উল্লাহ (৪৫) নামের এক ব্যবসায়ী। পরে তাদের উদ্ধার করে অচেতন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।


অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া রহমত উল্লাহর ভাই মিন্টু বলেন, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে আমার ভাইয়ের ইলেকট্রনিকস সামগ্রীর দোকান আছে। তিনি মাল কিনতে ঢাকায় আসার সময় আকাশ পরিবহনে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েন। ভাইয়ের মোবাইল থেকে বাসের হেলপার ফোন করে আমাদের জানালে আমি এসে ভাইকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসি। এরপর পাকস্থলী পরিষ্কার করে চিকিৎসকরা তাকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড) রেফার্ড করেন।


একইদিনে রাজধানীর গুলিস্তান এলাকায় আসিয়ান বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন মিজানুর রহমান (৫৫) নামে এক বৃদ্ধ। এ সময় তার কাছে থাকা ২৫ হাজার টাকা নিয়ে যায় প্রতারক চক্রটি।


অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া মিজানুর রহমানের ছোট ভাই ইমরান বলেন, আমার ভাই ডেমরা থেকে আশিয়ান বাসে করে গুলিস্তান যাচ্ছিলো। পরে সে বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে বাসেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে আমি এসে ভাইকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাই। এরপর পাকস্থলী পরিষ্কার করে চিকিৎসকরা তাকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড) রেফার্ড করেন।


এর আগে সোমবার (১৭ জানুয়ারী) রাজধানীর শাহবাগ থানার প্রেসক্লাবের বিপরীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন আব্দুল রাকিব (৪০) নামের এক ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় প্রতারক চক্রের সদস্য মো. ওসমানকে (৩৫) পুলিশে সোপর্দ করা হয়।


এছাড়া রবিবার (১৬ জুনায়ারি) রাজধানীর মোহাম্মদপুরে বসিলা এলাকায় অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়নের (এপিবিএন) এএসআই মীর আব্দুল হান্নান (৫৮)। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। পরে তাকে মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।


রাজধানীর কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বিবার্তাকে বলেন, তার বাড়ি সাতক্ষীরার কলারোয়ার আলাইপুরে। ছুটি নিয়ে গ্রামে যাচ্ছিলেন আব্দুল হান্নান। এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


অপরাধ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অজ্ঞান পার্টির বেপরোয়া হওয়ার নেপথ্যে তিনটি কারণ রয়েছে। দেখা যায়, অজ্ঞান পার্টির প্রধান টার্গেট থাকে সাধারণ যাত্রীরা। তারা বিভিন্ন স্থানে ছদ্মবেশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকে। এদের হাত থেকে বাঁচতে সচেতনতার বিকল্প নেই। তবে যারা অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে তারা ঝামেলা এড়াতে অনেকে মামলা করে না। আবার মামলা বা গ্রেফতার হলেও স্বল্প সাজা ও জামিনে বের হয়ে যায়। এসব প্রতারণায় আইন কঠোর হওয়া উচিত। তা হলে এ ধরনের অপরাধ অনেকটা কমে যেত। আবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঝিমিয়ে যাওয়ায় অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা বেড়ে গেছে। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সজাগ থাকা দরকার।


জানা গেছে, লঞ্চের ছদ্মবেশটাও প্রায় অভিন্ন। বিস্কুট, চকলেট, খাবার ইত্যাদি বিক্রির আড়ালে কুপোকাত হয় যাত্রীরা। শুধু টাকা-পয়সা বা মূল্যবান জিনিসপত্রই নয়। অজ্ঞানপার্টি চালকের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিচ্ছে গাড়িও। প্রাইভেট কার বা অটোরিকশায় যাত্রীবেশে চড়ে সুবিধামতো নির্জন স্থানে গিয়ে কাজ সারছে। নানা কৌশলে খাবারের নামে যাত্রা বিরতি দিয়ে খাওয়ানো হচ্ছে চেতনানাশক ঔষধ। অথবা চেতনানাশক শুকিয়ে, খাবারের মাধ্যমে খাইয়ে বা চোখে-মুখে মলম লাগিয়ে দিয়ে অচেতন করছে। রাস্তার পাশে ফেলে দিয়ে গাড়ি নিয়ে হাওয়া হচ্ছে।


ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল সূত্র জানায়, প্রতি মাসে ১৫০ থেকে ২০০ জন মানুষ অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সেখানে চিকিৎসার জন্য যায়। ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত শতাধিক মানুষ অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ঢামেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।


এ ব্যাপারে ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান এ কে এম হাফিজ আক্তার বিবার্তাকে বলেন, অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের তৎপরতা বেড়েছে; সেটা আমাদের নজরে রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত আছে। ইতোমধ্যে ওই চক্রের অনেক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান তিনি।


বিবার্তা/খলিল/গমেজ/ইমরান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com