আ.লীগের জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি কতদূর?
প্রকাশ : ২৪ মে ২০২২, ১৯:৪৪
আ.লীগের জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি কতদূর?
মো. তাওহিদুল ইসলাম
প্রিন্ট অ-অ+

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের মেয়াদ শেষ হচ্ছে চলতি বছরের ডিসেম্বরে। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তাই জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে জোর প্রস্তুতি শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।


জানা গেছে, ২০২৩ সালের শেষ কিংবা ২০২৪ সালের শুরুতে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তাই ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে নির্বাচন করার ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রত্যাশা। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ফলে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু হওয়ার আগেই কেন্দ্রীয় সম্মেলনের কাজ সেরে নিতে চায় ক্ষমতাসীনরা। এজন্য এখন থেকেই কেন্দ্রীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটির হাইকমান্ড। তারই অংশ হিসেবে তৃণমূল পর্যায়ের সম্মেলন সম্পন্ন করার জন্য ব্যাপক তোড়জোড়ও দেখা যাচ্ছে।


নতুন বছরের পাঁচ পেরুনোর পথে। কেন্দ্রীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি হিসেবে এ বছরের জুন মাসের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ সব জেলা, উপজেলা, পৌর ও ইউনিয়নের সম্মেলন সম্পন্ন করে নতুন কমিটি গঠন করার চিন্তা রয়েছে দলটির। এর পরই কেন্দ্রীয় সম্মেলনের সার্বিক প্রস্তুতি শুরু হবে। আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগেভাগেই তৃণমূলকে মজবুত ভিতের ওপর দাঁড় করাতে চাচ্ছেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা।


সর্বশেষ অনুষ্ঠিত দলটির কার্যনির্বাহী সংসদের সভা ও সভাপতিমণ্ডলীর বৈঠকে তৃণমূলকে ঢেলে সাজিয়ে শক্তিশালী করা এবং জোরালোভাবে নির্বাচনী প্রস্তুতি নেয়ার জন্য তাগিদ দেন আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা।


সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, দীর্ঘ ছয় মাস পর ৭ মে, শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত হয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা। জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে দলটির ওই সভাকে বেশ গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন নেতারা।


জাতীয় সম্মেলনের বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনার প্রভাব কাটিয়ে বড় পরিসরে এই প্রথম কার্যনির্বাহী সংসদের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে ৭ মে। সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও দলের আসন্ন জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সঙ্গতকারণেই কার্যনির্বাহী সংসদের এ সভা ছিলো বেশ গুরুত্বপূর্ণ।


সম্প্রতি আওয়ামী লীগের সম্মেলন ডিসেম্বরে হওয়ার আভাস দিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সম্মেলনের বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের জাতীয় সম্মেলন আগামী ডিসেম্বর মাসে হওয়ার কথা। তিন বছর পর পর সম্মেলন হয়, সেই হিসাবে আগামী ডিসেম্বরে আমাদের নির্ধারিত সময়। সেভাবেই প্রস্তুতি আমরা নিচ্ছি।


তিনি আরো বলেন, নেত্রী যখন তারিখ দেবে, সেভাবেই হবে সম্মেলন। এখন থেকেই গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্র আপডেট করার জন্য, ইশতেহার তৈরির জন্য তিনি নির্দেশ দিয়েছেন।


৭ মে, শনিবার রাতে গণভবনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে সম্মেলন বিষয়ে তিনি এসব কথা বলেন।


এ বিষয়ে রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসনে বিবার্তাকে বলেন, আমারে দল গুছানোর জন্য একটা বিভাগের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ওই বিভাগের জন্য আমি চেষ্টা করতেছি। আমার বিভাগের সম্মেলনের কাজ প্রায় শেষ।


জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতির বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক বিবার্তাকে বলেন, আমাদের সম্মেলনের প্রস্তুতি চলছে। জাতীয় সম্মেলনের পূর্বশর্ত হলো ইউনিয়ন, জেলা পর্যায়ের সম্মেলন করে তারপর জাতীয় সম্মেলন করা। জেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের সম্মেলনের কাজ আমাদের চলমান। আমরা জুলাইয়ের মধ্যে তৃণমূলের কাজ শেষ করব। আমরা আশা করি, সময়ের মধ্যেই কেন্দ্রীয় সম্মেলন করতে পারব।


বিবার্তা/তাওহিদ/রোমেল/এসএফ




সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com