চিকিৎসাহীন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা চিনু'র দুর্বিষহ জীবন
প্রকাশ : ১৯ মে ২০২২, ২১:৪৯
চিকিৎসাহীন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা চিনু'র দুর্বিষহ জীবন
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

পাবনা সদর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আনোয়ারুল আজিম খান চিনু। ২০০৫ সাল থেকে সভাপতির দায়িত্ব পালন করা চিনু কিডনি রোগে আক্রান্ত। অর্থাভাবে চিকিৎসা করাতে না পারায় সম্পূর্ণ অকেজো হয়ে গেছে একটি কিডনি। বন্ধ হয়ে গেছে দুই ছেলের পড়ালেখা। সাহায্যের জন্য বারবার ছুটে গেছেন দলের নেতাদের কাছে। কিন্তু কাগুজে সুপারিশ ছাড়া আর কিছুই জোটেনি চিনুর ভাগ্যে। পরিবার নিয়ে চরম মানবেতর জীবনযাপন করছেন তিনি।


অথচ এই চিনুই একসময় সংগঠন সচল রাখার জন্য নিজের পকেটের পয়সা খরচ করেছেন। এমনকি দলের নেতা-কর্মীদের সংগঠিত রাখতে নিজের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলও বিক্রি করে দিয়েছেন। দল করতে গিয়ে জেলও খেটেছেন কয়েকবার।


আনোয়ারুল আজিম খান চিনু’র পরিবার সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে হঠাৎ করে কিডনি রোগে আক্রান্ত হন চিনু। এরপর কিডনি ফাউন্ডেশনের ডাক্তারের পরামর্শ মতো চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। কিন্তু অর্থাভাবে ঠিকমতো চিকিৎসা করাতে না পারায় একটি কিডনি সম্পূর্ণ অকেজো যায়। আর্থিক সহায়তার জন্য ছুটে গেছেন দলের স্থানীয় নেতাদের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে।



আম্মাজান আমি বাঁচতে চাই- উল্লেখ করে ২০১৯ সালে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাবরে কিডনি চিকিৎসা সহায়তার আবেদন জানান আনোয়ারুল আজিম খান চিনু। আবেদনে তিনি বলেন, আমি একজন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক জীবন বাজি রেখে দলের জন্য কাজ করেছি। আমি সংগঠন সচল রাখার জন্য আমার নেতাকর্মীদের নিয়ে সকল আন্দোলনে রাজপথে থেকেছি। কোনদিন কোন আওয়ামী লীগ নেতার আর্থিক সহযোগিতা পাইনি। নিজের অর্থ খরচ করে সংগঠনটির চালিয়েছি। টাকা পয়সা না থাকার কারণে বাধ্য হয়ে আমি আমার নিজের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল বিক্রি করে সংগঠনের কাজ করেছি। যা আমার কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ সম্পাদক অবগত আছেন।


তিনি বলেন, ২০১৫ সালে হঠাৎ করে কিডনি রোগে আক্রান্ত হই। এরপর ঠিকমতো চিকিৎসা করতে না পারায় আমার একটি কিডনি সম্পূর্ণ অকেজো হয়ে গিয়েছে। টাকার অভাবে বড় ছেলেকে পড়াতে পারছি না। ছেলেদের নিয়ে চরম দুর্বিষহ জীবনযাপন করছি। ডাক্তার আমাকে দ্রুত চেন্নাই এপোলো হাসপাতালে চিকিৎসা করার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন কিন্তু চিকিৎসা করার মত অবস্থা আমার বর্তমানে নেই।


অক্টোবর মাসের ৩ তারিখে আবেদনপত্রে সুপারিশ করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। এরপর সেই আবেদন জমা দেয়া হয় আওয়ামী লীগের দফতরে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। পরিবারের সদস্যরা জানান, সেই সময়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সব কাগজপত্রও পাবনায় খোঁজখবর নিয়ে চিকিৎসার জন্য ব্যক্তিগতভাবে সহযোগিতা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আজো তা পাওয়া যায়নি।



কোনো সয়হায়তা না পেয়ে সর্বশেষ চলতি বছরের মার্চ মাসের ১৬ তারিখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবরে আরেকটি আবেদন করেছেন আনোয়ারুল আজিম খান চিনু। সেই আবেদনে সুপারিশ করেছেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি। এছাড়াও বিষয়টি বিবেচনার জন্য সুপারিশ করেছেন পাবনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন।


জানতে চাইলে আনোয়ারুল আজিম খান চিনু’র ছোট ছেলে তামজিদ আনোয়ার বিবার্তাকে বলেন, ২০০৫ সাল থেকে বাবা সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি আওয়ামী লীগের দুর্দিনে দলের নেতা-কর্মীদের বাসায় রেখেছেন। মোটরসাইকেল বিক্রি করে স্কুল মাঠে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন করেছেন। তখন আমাদের বাসা ছিল কেন্দ্রীয় নেতাদের সার্কিট হাউজ। ২০১৫ সালে হঠাৎ করে বাবার কিডনি নষ্ট হয়ে যায়। পরে সহায়তার জন্য ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে আবেদন করেছিলেন। সেই সময়ে ওবায়দুল কাদের স্যার এর সুপারিশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে আবেদনটা দেয়ার জন্য দলের দফতর অফিসে দিয়েছিলাম। তিন-চার মাস পাবনা থেকে গিয়ে যোগাযোগ করেছি। কিন্তু আজও কোনো সহযোগিতা পাইনি।


তিনি বলেন, টাকার অভাবে এইচএসসি পাস করার পর আর পড়ালেখা করতে পারিনি। আমরা আওয়ামী লীগ পরিবার হয়েও অসহায় হয়ে পড়েছি। আমার বাবা একজন ত্যাগী নেতা। অথচ আজ তাকে দেখার মতো কেউ নেই।


আনোয়ারুল আজিম খান চিনু’র স্ত্রী ফারহানা আনোয়ার বিবার্তাকে বলেন, ২০১৫ সাল থেকে উনি অসুস্থ। কিডনি একটা অকেজো। তিনি খুড়িয়ে খুড়িয়ে হাঁটেন, এরকম অসুস্থ। উনার খুব দ্রুত উন্নত চিকিৎসা করানো দরকার। দলের জন্য উনি অনেক কিছু করেছেন। অনেকবার জেলও খেটেছেন। দলের এখন সুদিন। আমরা বলব কার কাছে। কাউকে বলতেও কষ্ট হয়। আমরা শুধু ভালোভাবে বাঁচতে চাই। আর এজন্য আপার (শেখ হাসিনা) কাছে সাহায্য চাই।


বিবার্তা/সোহেল/রোমেল/এমবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com