ডিমের পুষ্টির বিকল্প কোন খাবারগুলো?
প্রকাশ : ১৬ আগস্ট ২০২২, ০৯:৩৫
ডিমের পুষ্টির বিকল্প কোন খাবারগুলো?
লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

প্রোটিনের আদর্শ উৎস ডিম।পুষ্টিবিজ্ঞানের তথ্যানুসারে, একটি সিদ্ধ ডিমে প্রায় ৬ গ্রাম প্রোটিন থাকে। একটি ডিমের বায়োলজিকাল ভ্যালু ৯৬। আর্দশ একটি ডিমের ওজন সাধারণত ৫০ গ্রাম হয়ে থাকে। একটি ডিমে এনার্জি থাকে ১৪৩ ক্যালোরি মত। কার্বোহাইড্রেট থাকে ০.৭২ গ্রাম, প্রোটিন থাকে ১২.৫৬ গ্রাম, ফ্যাট ৯.৫১ গ্রাম।


এছাড়া ফসফরাস থাকে ১৯৮ মিলিগ্রাম, পটাশিয়াম ১৩৮ মিলিগ্রাম, জিঙ্ক থাকে ১.২৯ মিলিগ্রাম। এছাড়াও আছে ভিটামিন এ, ডি, ই, বি ১২, আয়রন, কোলেস্টেরল, কোলিন ইত্যাদি। এইসব আসলে ডিমের এত পুষ্টিগুণ বাড়িয়েছে।


খাদ্যাতালিকায় ডিমথাকলেও অন্যান্য প্রোটিন থাকাও গুরুত্বপূর্ণ।


প্রতিদিনের প্রোটিনের এই চাহিদা যে শুধু ডিম দিয়ে পূরণ করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। তবে ডিমকে প্রোটিনের চাহিদা মেটানোর প্রধান উৎস হিসেবে বেছে নিলে খাদ্যাভ্যাসে যত বেশি ডিম রাখা যায় ততই মঙ্গল। আর যদি শুধু সাদা অংশ খান তবে আরও বেশি ডিম খেতে হবে।


ডিমের পুষ্টির বিকল্প খাবার কোনগুলো হতে পারে জেনে নিন


★ কলা: একটি ডিমের সমান পুষ্টি পাবেন একটি কলায়। সকালে ডিমের বদলে ১/৪ স্ম্যাশড্ কাপ কলা খেতে পারেন। এতে পুষ্টির ঘাটতি মিটে যাবে।


★ ছোলা: লৌহ, ফসফেট, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, দস্তা, ভিটামিন কে এগুলোর সবগুলোই আছে ছোলাতে। আর এক কাপ ছোলা থেকে পাবেন প্রায় ১২ গ্রাম প্রোটিন। সিদ্ধ, রান্না এমনকি কাঁচাও খেতে পারেন এটি।


★ মসুর ডাল: উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের শ্রেষ্ঠ উৎস মসুর ডাল। আছে আঁশ এবং সাহায্য করে ওজন কমাতে। এক কাপ মসুর ডাল রান্না করে খেলে পেতে পারেন ১৪ থেকে ১৬ গ্রাম প্রোটিন।


★ টোফু: সকালের নাস্তায় ডিমের পরিবর্তে খেতে পারেন উদ্ভিজ্জ প্রোটিন টফু। টোফু মূলত তৈরি হয় সয়া মিল্ক দিয়ে। টোফুতে ক্যালোরি থাকে মাত্র ৬২ গ্রাম। প্রচুর পরিমাণে আয়রনও আছে এতে। ডিম ও টোফু প্রায় একই পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ।


★ মিষ্টি কুমড়া: মিষ্টি কুমড়ার নাম শুনে নাক সিঁটকান অনেকেই। বিশেষ করে তো এই শীতকালে মিষ্টি কুমড়া একেবারেই একঘরে হয়ে পড়ে। কিন্তু জানেন কি মিষ্টি কুমড়াতে রয়েছে ডিমের সমান পুষ্টি। তাই খাদ্যতালিকায় রাখুন মিষ্টি কুমড়া।


★ অলিভ অয়েল: ডিম ছাড়া কেক খান? তাহলে কেক বানান অলিভ অয়েল দিয়ে। ডিমের স্থান অনেকটাই পূর্ণ করে দেবে অলিভ অয়েল।


★ চিয়া বীজ: ডিমের বিকল্প হিসাবে খেতে পারেন চিয়া বীজ। রান্নায় ব্যবহার করতে পারেন এক টেবিল চামচ চিয়া বীজ। স্বাদের পাশাপাশি রান্না থেকে ডিমের সমপরিমাণ প্রোটিন পাবেন।


★ সয়াবিন: এতে ‘স্যাচুরেটেড ফ্যাট’য়ের মাত্রা কম। ভিটামিন সি, প্রোটিন ও ‘ফোলাট’য়ের মাত্রা বেশি। ক্যালসিয়াম, ভোজ্য আঁশ, লৌহ, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস এবং পটামিয়ামেরও উৎকৃষ্ট উৎস সয়াবিন। এক বাটি রান্না করা সয়াবিন দিতে পারে ২৮ গ্রাম প্রোটিন।


★ টক দই: ‘ফ্লেইবার’ নেই এমন দইতে অসংখ্য পুষ্টিকর উপাদান থাকে। স্ন্যাকস হিসেবে এটি অতুলনীয়। কারণ তা অনেকক্ষণ পেট ভরা রাখে। এক বাটি টক দইতে প্রায় ১২ থেকে ১৭.৩ গ্রাম প্রোটিন থাকে।


★ চালকুমড়ার বীজ: প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবারের তালিকায় বীজজাতীয় খাবার থাকবে না তা হতে পারে না। চালকুমড়ার বীজ যদিও এর উচ্চমাত্রার ম্যাগনেসিয়ামের জন্য পরিচিত, তবে এতে প্রোটিনও আছে প্রচুর পরিমাণে। ৩০ গ্রাম চালকুমড়ার বীজ থেকে মিলবে প্রায় ৯ গ্রাম প্রোটিন।


★ ছানা: ক্যালরি কম কিন্তু প্রোটিন বেশি দুধ থেকে তৈরি ছানাতে। শরীরের জন্য উপকারী নানান পুষ্টি উপাদানে ভরপুর। খুব সহজেই বাসায় তৈরি করা যায়। ১০০ গ্রাম ছানাতে থাকতে পারে ২৩ গ্রাম পর্যন্ত প্রোটিন।


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com