'মাদক সেবন রোধ করি, সুস্থ সুন্দর জীবন গড়ি'
প্রকাশ : ২৬ জুন ২০২২, ১২:৫০
'মাদক সেবন রোধ করি, সুস্থ সুন্দর জীবন গড়ি'
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আজ রোববার (২৬ জুন) আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস। সারা বিশ্বে এক সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি।দিবসটি উপলক্ষে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি)। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছে।


প্রতি বছরই ২৬ জুন মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার রোধে সারা বিশ্বে দিবসটি পালিত হয়। এবারের প্রতিপাদ্য- ‘মাদক সেবন রোধ করি, সুস্থ সুন্দর জীবন গড়ি’।


সারা বিশ্বের মতো দিবসটির বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে দেশেও। কেননা দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে মাদক সেবন, ব্যবসা ও পাচারের দিক থেকে বাংলাদেশ অন্যতম। মাদকের ভয়াল গ্রাস দেশে ধীরে ধীরে বাড়ছে।


মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সর্বশেষ পরিসংখ্যান বলছে, ২০২১ সালে সব সংস্থা মিলে ইয়াবা জব্দ করেছে ৩ কোটি ৬৩ লাখ ৮১ হাজার। ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে প্রায় ১০ লাখ ৮ হাজার বোতল। কোকেন জব্দ করা হয় প্রায় ৪ কেজি, হেরোইন ২১০ কেজি। ২০২১ সালে মাদক-সংক্রান্ত ৪৭ শতাংশ মামলায় আসামির সাজা হয়েছে। এই হার ২০২০ সালে ছিল ৪৩ শতাংশ।


দেশে ইয়াবা ও আইসের পর নতুন ধরনের মাদকের ব্যবহার বাড়ছে। পশ্চিমা দেশগুলো থেকে আসা সাইকোডেলিক মাদক নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন উৎকণ্ঠা। এগুলোর মধ্যে লাইসার্জিক এসিড ডাই-ইথাইলামাইড (এলএসডি), ডাইমিথাইল ট্রিপটামিন (ডিএমটি) ও ম্যাজিক মাশরুম (সিলোসাইবিন) অন্যতম।


সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, নতুন মাদকগুলো নিয়ন্ত্রণই এখন বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ এসব মাদক শনাক্তের প্রযুক্তি নেই দেশে। এই পরিস্থিতিতে আজ রবিবার দেশে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস। দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য ‘মাদক সেবন রোধ করি, সুস্থ সুন্দর জীবন গড়ি’। দিবসটি উপলক্ষে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি)। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছে।


ডিএনসির পরিচালক (অপারেশনস) কুসুম দেওয়ান বলেন, ভৌগোলিক কারণে মাদকের গোল্ডেন ট্রায়াঙ্গল, গোল্ডেন ওয়েজ, গোল্ডেন ভিলেজ ও গোল্ডেন ক্রিসেন্ট এলাকাগুলোর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে বাংলাদেশ। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে সচেতনতার বিকল্প নেই।


মাদকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ১৯৮৭ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভায় ২৬ জুনকে মাদকবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস হিসাবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পরের বছর থেকে বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালিত হয়ে আসছে।


ডিএনসির পরিচালক (অপারেশনস) কুসুম দেওয়ান বলেন, ভৌগোলিক কারণে মাদকের গোল্ডেন ট্রায়াঙ্গল, গোল্ডেন ওয়েজ, গোল্ডেন ভিলেজ ও গোল্ডেন ক্রিসেন্ট এলাকাগুলোর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে বাংলাদেশ। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে সচেতনতার বিকল্প নেই।


দেশের ২১ শতাংশ পথশিশুকে মাদকের বাহক হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। আর পথশিশুদের ৫৮ শতাংশ কোনো না কোনো মাদক নেয়। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) এক গবেষণায় এ চিত্র উঠে এসেছে।


অধিদপ্তরের ২০২১ সালের বার্ষিক প্রতিবেদন বলছে, নারী ও শিশুদের মাদকের বাহক হিসেবে ব্যবহার করছেন মাদক কারবারিরা। এ পটভূমিতে আজ রোববার দেশে পালিত হবে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস।


গবেষণার অংশ হিসেবে দেশব্যাপী ১ হাজার ৬০০ পথশিশুর সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। এর মধ্যে ৯২৮টি শিশু বলেছে, তারা মাদক সেবন করে। অর্থাৎ ৫৮ শতাংশ পথশিশু মাদকসেবী। এই ৯২৮ জনের মধ্যে ৩৩৬টি শিশু বলেছে, তারা মাদক সেবনের পাশাপাশি মাদকের বাহক হিসেবেও কাজ করে। শতাংশের হিসাবে যা ২১।


গবেষণার তথ্য বলছে, পথশিশুরা খুব সহজে মাদক সংগ্রহ করতে পারে। ৫৩ শতাংশ শিশু সরাসরি কারবারিদের কাছ থেকে মাদক কেনে। পথশিশুদের মধ্যে ১৪ শতাংশ বলেছে, তারা ১০ বছর হওয়ার আগে থেকেই মাদক নিচ্ছে।


অপ্রাপ্তবয়স্ক মাদকসেবীদের নিয়ে করা অধিদপ্তরের গবেষণাটির ফলাফল গত বছর প্রকাশ করা হয়। এর উদ্দেশ্য ছিল, মাদকের কারণে অল্প বয়সীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি ও মানসিক স্বাস্থ্যের অবস্থা চিহ্নিত করার মধ্য দিয়ে তাদের মাদক থেকে ফেরানোর উপায় খোঁজা।


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com