‘হায় হায় পার্টির নাই নাই আহাজারি’
প্রকাশ : ৩০ জুলাই ২০২২, ১৪:৩৭
‘হায় হায় পার্টির নাই নাই আহাজারি’
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সরকারের দূরদর্শিতা ও প্রস্তুতি
এবং
হায় হায় পার্টির নাই নাই আহাজারি ........
বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা চলছে। ১৯৪৫ সালে সমাপ্ত ২য় বিশ্বযুদ্ধের পর সমগ্র বিশ্বের মানব জাতির ওপর এমন ভয়াবহ দুঃসময় আর নেমে আসেনি। ওপরন্তু খাদ্য ও জ্বালানী সম্পদ সমৃদ্ধ ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধ, রাশিয়ার ওপর অর্থনৈতিক অবরোধ - সবমিলিয়ে বিশ্ব অর্থনীতি টালমাটাল। বহু ধনী রাষ্ট্র হিমশিম খাচ্ছে। একাধিক প্রভাবশালী সরকার প্রধান চাপ সামলাতে না পেরে দায়িত্ব থেকে পলায়ন করছেন।


যেকোন ধরণের দুর্যোগ, নাশকতা মোকাবিলায় বিশ্বের সফলতম ও সর্বাপেক্ষা অভিজ্ঞ রাষ্ট্রনায়ক জননেত্রী শেখ হাসিনা তাঁর দূরদর্শিতা দিয়ে অনাগত যে কোন অনাকাঙ্ক্ষিত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার প্রস্তুতি গ্রহণ করছেন। তিনি যেমন কৃচ্ছতা সাধনের উদ্যোগ নিয়েছেন, তেমনি জনগণকে মিতব্যায়ী হওয়ার অনুরোধ করেছেন।


অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক সকল সম্ভাব্য উৎস থেকে সবচেয়ে সহজ শর্তে বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করে মজুদ অধিকতর সমৃদ্ধ করার চেষ্টা করছেন। যেন কোনভাবেই কোন অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্বিপাক আমাদের কাবু করতে না পারে। একজন অভিভাবকের মূল দায়িত্ব- স্বীয় পরিবারকে সংহত ও নিরাপদ রাখা। শেখের বেটির নিকট সমগ্র দেশটিই তাঁর পরিবার।


সরকারের এই ইতিবাচক উদ্যোগসমূহকে কতিপয় জ্ঞানবাজ ব্যক্তি ও গোষ্ঠী নেতিবাচকভাবে জনগণের সামনে তুলে ধরে মওকা খুঁজছেন। তাদের উদ্দেশ্য নাই নাই আওয়াজ তুলে অর্থনীতি ও সমাজে একটা অস্থিরতা তৈরি করে দেশে চরম বিশৃঙ্কল পরিবেশ ঘটিয়ে সরকার পতন ঘটানো। কিন্তু তারা এটি বুঝতে পারছেন না, বঙ্গবন্ধু কন্যা আয়েশী সিজনাল পলিটিশিয়ান নন।


তিনি বিশ্বের সবচেয়ে নির্যাতীত ব্যক্তি। তিনি কঠোর অধ্যবসায়ের মধ্য দিয়ে উঠে আসা পোড়খাওয়া রাজনীতিবিদ। তাঁর মত দশমিনিটের নিষ্ঠুরতম নির্মমতায় সমগ্র পরিবার কেউ হারান নি। তাঁর মত করে বৈরি পরিবেশ, জঘন্য মিথ্যাচার মোকাবিলা করে বিশ্ব মোড়লের চোখ রাঙানি পদপৃষ্ঠ করে কেউ এমন ঋজুভাবে ওঠে আসেন নি। সুতরাং হায় হায় পার্টির দেশবিরোধী নাই নাই আহাজারি মুজিবকন্যা শেখ হাসিনার দায়িত্বের প্রতি নিষ্ঠা এবং উন্নয়ন ও মানবকল্যাণের শীতল হাওয়ায় বিলীন হয়ে যাবে।


একনজরে সাম্প্রতিক বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের তথ্য ;
২০০৬ সাল : ৫.৯৩ বিলিয়ন,
২০০৯ সাল : ৭.৪০ বিলিয়ন,
২০১০ সাল : ১০ বিলিয়ন,
২০১৪ সাল : ২০ বিলিয়ন,
২০১৬ সাল : ৩০ বিলিয়ন,
২০১৯ সাল : ৩৩ বিলিয়ন,
২০২২ সাল : ৪৮ বিলিয়ন,
এবং
২০২২ সালে বর্তমান রিজার্ভ : ৩৯.৬ বিলিয়ন।


এখোনো জামাত-বিএনপি আমলের ৫.৯৩ অথবা সুশীল বাবুসাবদের আমলের ৭.৪ বিলিয়ন থেকে অনেক অনেক উপরে অবস্থান করছে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি। পরিস্থিতির কারনে কিছুটা টান পড়েছে, সেই টান সামলানোর সক্ষমতা বাঙালির আপন প্রধানমন্ত্রীর আছে।


জগৎসেরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রাজ্ঞ নেতৃত্বে এদেশের শিল্পপতি, শিল্প শ্রমিক, এক্সিকিউটিভ, কৃষক, শ্রমিক, সরকারী-বেসরকারী চাকুরিজীবী, প্রকৌশলী, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক সহ সব পেশার মানুষের অক্লান্ত পরিশ্রম, কর্মনিষ্ঠা, অন্তর্ভূক্তিমূলক অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে দেশ ও দেশের অর্থনীতি এক মজবুত গতিতে এগিয়ে চলছে। গুটিকয়েক অপকর্মণ্য ও পদলোভী জ্ঞানবাজ ও দেশবিরোধী রাজনীতির কলাকুশলী এই দৃঢ় এগিয়ে চলা থামাতে পারবে না, ইনশাল্লাহ্।
আল্লাহ সহায়।


(জয়পুরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন - এর ফেসবুক থেকে নেয়া।)


বিবার্তা/বিএম

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com