পদ্মা সেতু উদ্বোধন: বিশ্ব মঞ্চে বাংলাদেশ
প্রকাশ : ২৫ জুন ২০২২, ১০:১১
পদ্মা সেতু উদ্বোধন: বিশ্ব মঞ্চে বাংলাদেশ
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

নিজস্ব অর্থায়নে প্রমত্তা পদ্মা নদীর ওপর দেশের সর্ববৃহৎ সেতু নির্মাণ করে উন্নয়নের এক সোনালি অধ্যায় রচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পদ্মা সেতু দিয়ে আজ বিশ্ব মঞ্চে বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী যা করেছেন, তৃতীয় বিশ্বের আর কোনো দেশের নেতাই তা করে দেখানোর সাহস পাননি। সব দুঃখ-কষ্টকে পেছনে ফেলে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রমাণ করেছেন যে বিশ্বকে চমকে দিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারে বাংলাদেশ।


দুর্নীতির ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়নে অস্বীকৃতি জানালে তাদের কাজ গুটিয়ে নিতে বলেন শেখ হাসিনা। এরপর সব প্রতিকূলতা কাটিয়ে সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়ন করেন এ মেগা প্রকল্প। শুধু দেশেই নয়, বিশ্বেও একাধিক রেকর্ড গড়েছে বাঙালি জাতির গর্ব ও আত্ম-অহংকারের প্রতীক পদ্মা সেতু।


এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) বলছে, পদ্মা সেতুকে ঘিরে সরাসরি বিনিয়োগের ফলে বাংলাদেশের আঞ্চলিক অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে। এ সেতু নিঃসন্দেহে ২০৩৫-৪০ সাল নাগাদ বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। মূলত স্বপ্নের সেতুকে ঘিরেই আবর্তিত হবে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ।


বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক ব্যবসায়ী ও শিল্প মালিকদের সংগঠন ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স (আইসিসি) বাংলাদেশ। বাংলাদেশ কী করতে পারে তা উন্নয়ন সহযোগী এবং বিশ্বকে দেখানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিবাদন জানিয়েছে সংগঠনটি। আইসিসি বলছে, পদ্মা সেতু বাংলাদেশের জন্য একটি বড় অর্জন। বাংলাদেশ যে তার নিজস্ব সম্পদ দিয়ে এ ধরনের মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে সক্ষম, এই সেতু তার বড় প্রমাণ।


আইসিসিবির ত্রৈমাসিক বুলেটিনের সম্পাদকীয়তে বলা হয়, পদ্মা সেতু চালু হলে বাংলাদেশ দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অনেক দেশের সঙ্গে যুক্ত হবে। যোগাযোগ, বাণিজ্য, শিল্প, পর্যটনসহ নানা ক্ষেত্রে অবদান রাখবে পদ্মা সেতু। বিশেষ করে, এটি ভুটান, ভারত এবং নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও পর্যটনে সংযোগ স্থাপনে সহায়তা করবে।


এদিকে ঢাকার নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত এ মেগা প্রজেক্টের প্রশংসা করেছে রাশিয়া। ঢাকায় রুশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকার ও জনগণকে বহুমুখী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে সাধুবাদ জানানো হয়েছে।


সোমবার (২০ জুন) রুশ দূতাবাস জানায়, বহুবিধ সম্ভাবনার কারণে পদ্মা সেতু সত্যিকার অর্থেই ‘গেম চেঞ্জার’। স্থানীয় বাণিজ্য, বিনিয়োগ, পারস্পরিক সংযোগ, কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনবে এ সেতু। এটি দেশের জিডিপি বৃদ্ধির পাশাপাশি দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আমূল উন্নয়ন ঘটাবে।


দূতাবাসের পক্ষ থেকে বলা হয়, পদ্মা সেতু নির্মাণ বাংলাদেশের জন্য একটি ল্যান্ডমার্ক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের দূরদর্শিতার কারণেই এটি সম্ভব হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলার স্বপ্ন আজ আমাদের চোখের সামনে বাস্তবায়িত হচ্ছে।পদ্মা সেতু উদ্বোধনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে উদ্দীপনা বিরাজ করছে। প্রবাসে নানা পেশার মানুষের কাছে পদ্মা সেতু একটি বিস্ময়। এ প্রকল্পটি শুধু বাংলাদেশিদের বিশ্বাসের ভিত রচনা করেনি, যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।


আরব আমিরাতেও পদ্মা সেতুর উচ্ছ্বাস।মাওয়া বা জাজিরা প্রান্তে গিয়ে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দৃশ্য হয়তো দেখার সৌভাগ্য হবে না প্রবাসী বাংলাদেশিদের; কিন্তু হাজার মাইল দূরে টেলিভিশনের পর্দায় সেই মাহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষায় তারাও দিন গুনছেন।


প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখার জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিভিন্ন স্থানে নেয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। প্রবাসীদের বাঙালিদের রেস্টুরেন্টে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখার জন্য আয়োজন থাকবে বড় পর্দায়। এ নিয়ে উচ্ছ্বসিতও তারা।


বাংলাদেশ কনস্যুলেট দুবাই কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন বলেন, প্রবাসীদের এখানে বড় একটা ভূমিকা আছে। বিশ্ব বাংলাদেশের যে আত্মমর্যাদা তা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি নেতা একে আজাদ বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের যে কোনো উন্নয়নের সঙ্গে আছি।’


পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান স্মরণীয় করে রাখতে বাংলাদেশ মিশন, বাংলাদেশ সমিতি দুবাই, বাংলাদেশ সমিতির সারজা, স্থানীয় আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন নানা উদ্যোগ নিয়েছে।


প্রবাসীরা মনে করেন পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের পেছনে তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সের অবদান অনেক বেশি। আগামীতে পদ্মা সেতুর মতো যে কোনো মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারকে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান তারা।


বাংলাদেশে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন ঘিরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসীদের মধ্যে বইছে আনন্দের জোয়ার। সেতুর আদলে ৬ দশমিক এক পাঁচ ফুটের একটি রেপ্লিকা প্রদর্শিত হচ্ছে বাংলাদেশি অধ্যুষিত নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে। দেশের নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় বর্তমান সরকারের ভূঁয়সী প্রশংসা করছেন প্রবাসীরা।


স্বপ্নের পদ্মা সেতু। এখনই বাস্তবে দেখার সুযোগ নেই প্রবাসীদের।শিল্পীর তৈরি রেপ্লিকা ঘিরেই তাদের যত আনন্দ-উচ্ছ্বাস। স্থানীয় সময় ২৪ জুন সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে পদ্মা সেতুর রেপ্লিকা প্রদর্শন করবে বাংলাদেশ ক্লাব। এ উপলক্ষ্যে সংগঠনটি আয়োজন করেছে আনন্দ শোভাযাত্রার। সেতু উদ্বোধনউপলক্ষে বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।ঢাকার মার্কিন দূতাবাস থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় এ অভিনন্দন জানানো হয়েছে।


অভিনন্দন বার্তায় বলা হয়েছে, অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর জন্য জনগণ ও পণ্যকে দক্ষতার সঙ্গে যুক্ত করতে হয়। এ জন্য টেকসই পরিবহন পরিকাঠামো তৈরি করা গুরুত্বপূর্ণ। পদ্মা সেতু বাংলাদেশের অভ্যন্তরে নতুন ও গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ তৈরি করবে, বাণিজ্য বৃদ্ধি করবে এবং জীবনযাত্রার মান উন্নত করবে। এটি দক্ষিণ এশিয়ায় আঞ্চলিক সংযোগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের নেতৃত্বের আরেকটি উদাহরণ।


দক্ষিণ আফ্রিকার প্রবাসী বাংলাদেশিরা পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সরাসরি সম্প্রচার দেখতে দূতাবাসে হাজির হবেন। দেশটির বাংলাদেশ হাইকমিশনে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সরাসরি দেখানো হবে। দক্ষিণ আফ্রিকা শাখা আওয়ামী লীগের এক ভার্চুয়াল সাধারণ সভায় এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।


যুগান্তকারী এই প্রকল্পের সফল সমাপ্তিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে ভারতের সরকার ও জনগণ বাংলাদেশের সরকার ও জনগণকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছে।


‘বহুল প্রতীক্ষিত এই প্রকল্পটির সমাপ্তি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী সিদ্ধান্ত ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বের সাক্ষ্য দেয়। এই সাফল্য প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে প্রমাণ করে এবং এতে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস ছিল, যা আমরা অবিচলভাবে সমর্থন করে এসেছি যখন বাংলাদেশ একাই এই প্রকল্পটি এগিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।’


সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, পদ্মা সেতু শুধু আন্তঃবাংলাদেশ যোগাযোগকেই উন্নত করবে না, এটি বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যের সাধারণ অঞ্চলগুলোকে সংযুক্ত করার ক্ষেত্রে দরকারি লজিস্টিকস্ ও ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় গতি প্রদান করবে। এই সেতু আমাদের দ্বিপাক্ষিক ও উপ-আঞ্চলিক সংযোগ বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com