দৌলতপুরে এক ও দুই টাকার কয়েন একেবারেই অচল
প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর ২০২২, ২০:৪৪
দৌলতপুরে এক ও দুই টাকার কয়েন একেবারেই অচল
দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে এক ও দুই টাকার ধাতব মুদ্রা বা কয়েন একেবারেই অচল। এমনকি ভিক্ষুককে দিতে চাইলেও এক ও দুই টাকার কয়েন নিতে চান না। রাষ্ট্রীয়ভাবে এই কয়েন অচল না হলেও উপজেলার ব্যবসায়িরা সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকও তা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে রীতিমতো দুর্ভোগে আছেন উপজেলার মানুষ।


এদিকে হাটবাজারে দোকানিরাও কেনাবেচায় এক ও দুই টাকার কয়েন না নেওয়াতে বিপাকে সাধারণ মানুষ। রিকশা, ভ্যান বা মুদি দোকানদারেরাও কেনাকাটায় এক ও দুই টাকার কয়েন নিচ্ছে না। ছোট-বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এক ও দুই টাকার কয়েন দেখলেই ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে লেগে যায় তর্ক। কোনও পক্ষই এসব ধাতব মুদ্রা নিতে রাজি হয় না।


থানা বাজার এলাকার চা দোকানি নজরুল ইসলাম বলেন, পাইকারি দোকানিরা কয়েন নিয়ে মালামাল দেয় না। আমরা ছোট দোকানিরা কয়েন নিলে তা চালাবো কোথায়। তাই আমরাও নিতে পারি না। যদি পাইকারি দোকানিরা কয়েন নিতো তাহলে আমরাও কয়েন নিয়ে মালামাল বিক্রি করতে পারতাম। এক ও দুই টাকার কয়েন ছাড়া মালামাল বিক্রি করতে অসুবিধা হয়।


পাইকারি মালামাল বিক্রেতা রুবেল হোসেন বলেন, খুচরা ব্যবসায়ীরা তো এক ও দুই টাকার কয়েন নিয়ে আসে না আমাদের কাছে। তবে আমাদের অসুবিধা এই কয়েন চালাইতে, কারণ ব্যাংক বেশি কয়েন নিতে চাই না। ব্যাংক যদি বেশি কয়েন নিতে চায় তাহলে কয়েনে আমাদের লেনদেন করতে কোনো সমস্যা নাই।


মাসুদ রানা নামের একজন ক্রেতা বলেন, পাশের উপজেলা ভেড়ামারাতে সব রকম কয়েন চলে আর দৌলতপুরে একেবারেই অচল। আসলে উপজেলা প্রশাসনের গাফিলতির কারণে এক ও দুই টাকার কয়েন নিচ্ছে না বাজারের দোকানিরা। প্রশাসন কঠোরভাবে মনিটরিং করলে বাজারে ব্যবসায়ীরা কয়েনে লেনদেন করতে বাধ্য।


অগ্রহণী ব্যাংক লিমিটিডের দৌলতপুর শাখার ব্যবস্থাপক সেলিম তোহা বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে পরিপত্রের মাধ্যমে প্রতি মাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ কয়েন নেওয়ার জন্য আমাদের একটি নির্দেশনা দিয়েছে। সেই মোতাবেক আমরা বাজারে গিয়েও কয়েন পাচ্ছি না। আমরা কয়েন নিচ্ছি না এই কথাটি ঠিক নয়। আমার মনে হচ্ছে কোথাও ভুল-বোঝাবুঝি হচ্ছে।


এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল জব্বার বলেন, সরকার যেহেতু এক ও দুই টাকার কয়েন বাজেয়াপ্ত করেনি তাহলে ব্যবসায়িরা কেনো নিবে না! আগামী মাসিক সভায় আমি উপজেলার ১৪ ইউপি চেয়ারম্যানকে বলে দিব উনারা যেনো বাজার কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদককে নির্দেশ দেয় এক ও দুই টাকার কয়েনে লেনদেন করতে।


বিবার্তা/তুহিন/এসএফ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com