টাঙ্গাইল স্কুলছাত্রকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ
প্রকাশ : ২৬ জুন ২০২২, ২০:৪৪
টাঙ্গাইল স্কুলছাত্রকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

টাঙ্গাইল সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের আবাসিক ভবন থেকে শিহাব মিয়ার মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেছে। রিপোর্টে গলা চেপে ধরে হত্যা করার আলামত পাওয়া গেছে।


রবিবার (২৬ জুন) দুপুরে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ফলাফল পাওয়া যায়। পরে সিভিল সার্জন অফিস থেকে ময়নাতদন্তের রিপোর্টটি থানায় পাঠানো হয়েছে।


এর আগে গত ২০ জুন সন্ধ্যায় ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত শিহাব মিয়া সখীপুর উপজেলার বেরবাড়ী গ্রামের প্রবাসী ইলিয়াস হোসেনের ছেলে। শিহাব সৃষ্টি একাডেমিক ৫ম শ্রেণীর ছাত্র ছিলো। পরদিন টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে শিহাবের মরদেহের ময়নাতদন্ত করা হয়। যদিও সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের কর্তৃপক্ষ এটিকে শুরু থেকেই আত্মহত্যা বলে দাবি করে আসছিলেন।


সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, মরদেহ ময়নাতদন্ত করার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আরএমওসহ ৩ চিকিৎসকের সমন্বয়ে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। ওই ৩ সদস্যদের মেডিকেল বোর্ড ময়নাতদন্তের কাজ সম্পন্ন করেন। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে গামছা জাতীয় কোন কিছু পেছিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার আলামত পাওয়া যায়। এছাড়া শরীরের অন্য কোন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। শুধুমাত্র গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের পরিবারের শুরু থেকেই হত্যা বলে দাবি করে আসছিলো। তারা এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের দাবি করেন।


নিহত শিহাবের ফুপাতো ভাই আল আমিন সিকদার বলেন, চারমাস আগে সৃষ্টিতে ৫ম শ্রেণীতে শিহাব মিয়াকে ভর্তি করা হয়। সৃষ্টি থেকে আমাদের জানানো হয়েছিল শিহাব এক্সিডেন্ট করেছে। আবার ফোন করে বলে শিহাব মাথা ঘুরে পড়ে গেছে। শিহাব যেখানে থাকতো আমাদের সেখানে যেতে দেয়া হয়নি। শিহাব আত্মহত্যা করার মতো ছেলে না।


তদন্ত প্রতিবেদনে শিশু পুত্র শিহাবকে শ্বাসরোধ করে হত্যার সত্য তথ্য প্রকাশ পাওয়া স্বস্তি জানিয়েছেন নিহত শিহাবের বাবা প্রবাসী মো. ইলিয়াস হোসাইন। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করার কথা জানিয়েছেন তিনি। জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেছেন তিনি।


এ ব্যাপারে সৃষ্টি শিক্ষা পরিবারের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রিপনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।


এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার (এসপি) সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, ময়াতদন্তের রিপোর্ট অনুয়ায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। অপরাধী যেই হোক, কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না বলে জানান তিনি।


প্রসঙ্গত, গত ২০ জুন সন্ধ্যায় টাঙ্গাইল শহরের বিশ্বাস বেতকা সুপারি বাগান এলাকায় সৃষ্টি স্কুলের আবাসিক ভবন থেকে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র শিহাব মিয়ার লাশ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান ভবনে দায়িত্বরত শিক্ষকরা। মৃত শিহাব মিয়া (১১) জেলার সখিপুর উপজেলার বেরবাড়ি গ্রামের প্রবাসী ইলিয়াস হোসেনের ছেলে। ওইদিন শিশুটিকে হত্যার অভিযোগ আনে তার পরিবার। পরে লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পারিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। এঘটনায় প্রাথমিক পর্যায়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।


বিবার্তা/তোফাজ্জল/এমএইচ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com