সড়ক নির্মাণে ঠিকাদারের লাগামহীন অনিয়ম-দুর্নীতি
প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:০২
সড়ক নির্মাণে ঠিকাদারের লাগামহীন অনিয়ম-দুর্নীতি
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) অর্থায়নে খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলায় খাদ্য গুদাম সংলগ্ন (রামসু বাজার সড়ক) খাগড়াছড়ি-চট্রগ্রাম সড়ক থেকে বটথলী ১.৫ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম- দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে।ঠিকাদরী প্রতিষ্ঠান মেসার্স মং কনস্ট্রাকশনের অনুকুলে কাজ নেয়া সাব কন্টাক্টে ঠিকাদার তাজুল ইসলাম।


এলজিইডির ২০১৯-২০ অর্থ বছরে প্রকল্পে ড্রেন, কালভার্ট ও কার্পেটিং কাজের অনুকুলে প্রায় ২ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। গুইমারা খাদ্য গুদামের ব্রিজের পাশ থেকে হাফছড়ি ২নং ইউনিয়নের ৪নং বটথলী রাস্তার ১.৫ কিলোমিটার নির্মান কাজের এই অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। ঠিকাদারকে বার বার অনুরোধ করেও সড়ক নির্মাণ কাজের অনিয়ম-দুর্নীতির লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছে না।


এ প্রকল্প নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে রাস্তার দুই পাশের কাটা মাটির মিশ্রিত বালি দিয়ে বক্স না করেই নিম্নমানের ইট খোয়াসহ নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করছে। এলাকাবাসী ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির অনিয়মের অভিযোগের পর কাজ বন্ধ রাখার অনুরোধ করা হলেও এখনো অনিয়মের মাধ্যমে উক্ত কাজ সমাপ্ত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে মং কনস্ট্রাকশন থেকে সাব কন্ট্রাকে কাজ নেয়া ঠিকাদার তাজুল ইসলাম।


উপজেলা এলজিডির প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান জানান, এই কাজে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের অধীনে টেন্ডারের চুক্তি মূল্য ধরা হয়েছে, ১ কোটি ৮৮ লাখ ৬৮ হাজার ৬৭২ টাকা ৪৯ পয়সা।


স্থানীয়দের অভিযোগ, গুইমারা উপজেলায় উন্নয়নমূলক কাজের জন্য সরকার বছর বছর কোটি কোটি টাকা বরাদ্ধ দিলেও সংশ্লিষ্টদের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। প্রকল্প গুলোতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের ফলে কিছু দিনের মধ্যেই রাস্তাটি ভেঙ্গে জলে যাচ্ছে সরকারি টাকা। কয়েক মাস যেতে না যেতেই ব্যবহারের অনুপোযগী হয়ে পড়ে এসব সড়ক। সরকারি বরাদ্ধে অবমুল্যায়ণের ফলে দূর্ভোগের শিকার হতে হয় এলাকাবাসীদের।


অপরদিকে রাস্তার তিনটি পয়েন্টে ২৪ লাখ ৮৫ হাজার ৯৭২ টাকা ব্যয়ে ৩/৩ মি: আরসিসি বক্সকালভার্ট নির্মাণে নিম্নমানের ইট, খোয়া ও অনুমোদনহীন বালির ব্যবহার করছে প্রতিষ্ঠানটি।


এই বিষয়ে হাফছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী বলেন, বটতলী সড়কের ১.৫ কিলোমিটার কাজের ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতি হচ্ছে।


তিনি আরো বলেন, হাফছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসাবে এলাকার জনস্বার্থের কথা বিবেচনা করে উল্লেখিত কাজের ঠিাকাদারকে টেন্ডারের চুক্তি অনুযায়ী কাজ করার কথা বললেও কোন তোয়াক্কা না করে অনুমোদনহীন নিম্নমানের বালি ও কংক্রিট দিয়ে কাজ সম্পূর্ন করার পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানের ঠিকাদার।


গুইমারা উপজেলা প্রকৌশল এলজিইডি আব্দুল মান্নান বলেন, উন্নয়ন কাজের চুক্তি মোতাবেক কাজ না হলে এবং কাজে অনিয়ম হলে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


গুইমারা ইউএনও তুষার আহমেদ বলেন, বটতলী রাস্তার কাজের অনিয়মের অভিযোগে কাজের স্থলে গিয়ে ঠিকাদারকে চুক্তি মোতাবেক কাজ করার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে সে বিষয়টি নিয়ে কর্ণপাত করছে না বলেও তিনি জানান।


অভিযুক্ত ঠিকাদার মোঃ তাজুল ইসলাম, কাজের অনিয়মের বিষয় অস্বীকার করে অভিযোগের তোয়াক্কা না করে উল্টো এলজিইডি কাজ বুঝে নিবে এবং তাদের বুঝিয়ে দিবে বলে হুংকার ছাড়েন।


বিবার্তা/আল-মামুন/এনকে

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com