বিধিনিষেধ জারির পর ভিড় বাড়ছে টিকাকেন্দ্রে
প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১০:২০
বিধিনিষেধ জারির পর ভিড় বাড়ছে টিকাকেন্দ্রে
আদনান সৌখিন
প্রিন্ট অ-অ+

করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ভেরিয়েন্টের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। এ অবস্থায় নতুন এ ধরনটির সংক্রম নিয়ন্ত্রণ করতে সরকার নির্দেশিত ১১ দফা বিধিনিষেধ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের পর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল ও টিকা কেন্দ্রে ভিড় বাড়ছে।


এছাড়া ঠাণ্ডা, কাশির উপসর্গ নিয়ে অনেকেই আসছেন করোনা পরীক্ষা কেন্দ্রেও। স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে অনিহা দেখে গেছে প্রায় সব ক্ষেত্রে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, টিকা সনদের অপরিহার্যতার জন্যই মানুষের চাপ বাড়ছে।


সম্প্রতি রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের বহির্বিভাগের সামনে টিকা নিতে আসা মানুষের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়।


সারা দেশে গণটিকাদান কর্মসূচির দিন যত বাড়ছে, রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে লোকসমাগমও ততই বাড়ছে। তবে টিকা গ্রহণকারীরা বলছেন, হাসপাতালে করোনার টিকাকেন্দ্রগুলো কোথায়, তা খুঁজে পেতে কষ্ট হচ্ছে। টিকাকেন্দ্রের তথ্য ও নির্দেশনা আরও দৃশ্যমান হলে মানুষের সুবিধা হতো। অনেকেই হাসপাতালের টিকাকেন্দ্র খুঁজে পেতে সময় লাগায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কুর্মিটোলা হাসপাতালে এসব সমস্যায় ভোগান্তি পোহাচ্ছেন সেবা প্রত্যাশী মানুষজন। এ হাসপাতালে স্পট নিবন্ধন করতে না পেরে কয়েকজন অভিযোগ করেছেন।


সরেজমিনে দেখা যায়, হাসপাতালের প্রবেশ মুখ থেকে শুরু করে টিকাকেন্দ্র পর্যন্ত মানুষের লম্বা লাইন। প্রতিটি লাইনে কমপক্ষে ২০০ মানুষ আছেন। সামাজিক দূরত্ব এমনকি মাস্ক পরিধান করতেও অনিহা দেখা গেছে মানুষের মধ্যে। ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন দায়িত্বরত সেচ্ছাসেবক ও নিরাপত্তা কর্মীরা। করোনার ঊর্ধ্বগতির মধ্যে প্রতিদিন প্রায় ১৫০০ থেকে ২০০০ রোগী আসছেন সেবা নিতে। এদের মধ্যে টিকা নিতে আসা রোগীর সংখ্যাই বেশি। তবে কাশি, মাথা ব্যাথা, সর্দি জ্বর অথবা অন্য কোনো উপসর্গ নিয়ে টেস্ট করাতে আসছেন অনেক মানুষ।