খালেদা জিয়ার সাথে আন্তর্জাতিক আইন বিরোধী আচরণ করা হচ্ছে: ড. দিলারা
প্রকাশ : ২৫ নভেম্বর ২০২১, ১৯:১০
খালেদা জিয়ার সাথে আন্তর্জাতিক আইন বিরোধী আচরণ করা হচ্ছে: ড. দিলারা
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে সরকার যে আচরণ করছে তা শুধু অমানবিক নয়, আন্তর্জাতিক আইন বিরোধী বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী প্রফেসর ড. দিলারা চৌধুরী।


বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) ‘আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস’ উপলক্ষে এবি পার্টি মহিলা শাখা আয়োজিত এক মিডিয়া ব্রিফিংএ তিনি এ মন্তব্য করেন। এবি পার্টির সহকারী সদস্য সচিব ব্যারিষ্টার নাসরীন সুলতানা মিলির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মিডিয়া ব্রিফিংএ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড. দিলারা চৌধুরী।


তিনি বলেন, বাংলাদেশে নারী নির্যাতন কেন হয় এবং এর প্রতিকারসমূহ নিয়ে আলাপ করছি এমন এক সময়ে যখন বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া হাসপাতালে জীবন-মরণ লড়াই করছেন। রাজনৈতিক জিঘাংসা ও প্রতিহিংসা থেকে তাকে সুচিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে দিচ্ছে না সরকার, যা দেশের সংবিধান ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।



একটি দেশে যখন গণতন্ত্র থাকে না; বরং স্বৈর-ফ্যাসিবাদ কায়েম হয়, অবাধ দুর্নীতি, সীমাহীন স্বেচ্ছাচারিতা ও অনাচারের যাঁতাকলে রাষ্ট্রযন্ত্র এবং এর প্রতিটি অঙ্গপ্রতিষ্ঠান যখন ভেঙে পড়ে, তখন নারী-পুরুষ নির্বিশেষে প্রতিটি নাগরিকই জুলুম ও বঞ্চনার শিকার হয়। তবে আর্থ-সামাজিক কারণে নারীরাই তুলনামূলকভাবে বেশি নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে; ফলতঃ সব মিলিয়ে পরিবারসহ সর্বত্র নারীর প্রতি সহিংসতা ও বিমাতাসুলভ আচরণ হয়ে পড়ে নিয়ন্ত্রণহীন।


তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী একজন নারী হয়েও আরেকজন নারী বিরোধী দলীয় নেত্রীর প্রতি মানবিক আচরণ দেখাতে চরম ব্যর্থ হচ্ছেন, যা অত্যন্ত অমানবিক ও লজ্জাজনক। এর আগে রাজনৈতিক কারণে কথিত ‘দুর্নীতি’র অভিযোগে বেগম জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারান্তরীণ করে রাখা হয়েছিল। তার মতো দেশের একজন অত্যন্ত মর্যাদাবান নারী যেখানে খোদ রাষ্ট্রের হাতেই নারী নির্যাতনের শিকার এবং প্রাপ্য অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত, সেখানে সমাজের সাধারণ নারীদের নিরাপত্তা বলে আর কিছু থাকে না।


সভার সভাপতি ব্যারিষ্টার নাসরীন মিলি বলেন, ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীদের ‘গনপরিবহনে অর্ধেক ভাড়া’চালুর দাবিতে যে আন্দোলন চলছে তাতে সরকার দলীয় গুন্ডা ও হেলমেট বাহিনীর সহিংসতা প্রত্যক্ষ করেছে দেশবাসী।এবি পার্টি এই সকল আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।



এবি পার্টি মনে করে, আমাদের দেশে প্রধানত তিনটি কারণে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। প্রথমত, ধর্মীয় ও পারিবারিক মূল্যবোধের অভাব, অসচেতনতা ও সুশিক্ষার ঘাটতি; দ্বিতীয়ত, নৈতিক ও সামাজিক অবক্ষয়; এবং তৃতীয়ত, সুশাসনের অনুপস্থিতি। ব্রিফিং এ ছাত্রছাত্রীদের নৈতিক উন্নয়নে শিক্ষক ও অভিভাবকদের মনোযোগী হবার আহবান জানানো হয়। জুমা’র খুতবা ও ওয়াজ-মাহফিলগুলোতে পুরুষের প্রতি নারীর দায়িত্বের একতরফা বয়ান কে সমস্যাজনক উল্লেখ করে একইসাথে নারীর প্রতি পুরুষের সহমর্মিতা ও কর্তব্যগুলোর ব্যাপারেও সমান্তরাল বয়ান করার দাবি জানানো হয়। নারীর ওপর পুরুষের যেমন কিছু অধিকার আছে, তেমনি পুরুষের ওপরও নারীর কিছু অধিকার রয়েছে। উভয়ের অধিকারগুলোর ব্যাপারেই সচেতনতা তৈরি করতে হবে বলে মনে করে এবি পার্টি। নারীর প্রতি বৈষম্য, নির্যাতন ও বঞ্চনার অবসান ঘটাতে হলে নারীর প্রাপ্য অধিকারগুলো পূরণের ব্যাপারে জনসচেতনতা সৃষ্টি করার কোনো বিকল্প নেই।


এবি পার্টি আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে নারীর প্রতি সহনশীলতা, উদারতা ও শ্রদ্ধাবোধ জাগ্রত করার আহ্বান জানায় এবং সেইসাথে নারী নির্যাতন প্রতিরোধে সরকার, বিচার বিভাগ, দায়িত্বশীল আলেম-ওলামা ও সমাজের গণ্যমান্যদের এগিয়ে আসারও আহ্বান জানাচ্ছে।


ব্রিফিংকালে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিশিষ্ট অভিনেত্রী আরজুমান্দ আরা বকুল, দলের সহকারী সদস্য সচিব আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, আনোয়ার সাদাত টুটুল, আলতাফ হুসেইন, শাহ আব্দুর রহমান, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য যুব নেতা ইলিয়াস আলী, রুনা ইয়াসমিন, আমিনা বেগম, আব্দুল হালিম খোকন, শাহজাহান ব্যাপারী, সাথী আক্তার প্রমূখ।


বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com