‘বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে ভারতের অভিযোগ সঠিক নয়’
প্রকাশ : ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:২৩
‘বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে ভারতের অভিযোগ সঠিক নয়’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের নির্যাতন করা হচ্ছে বলে ভারতের লোকসভায় যে অভিযোগ ওঠেছে, তা সঠিক নয় উল্লেখ করে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে, প্রতিবেশী দেশটির প্রস্তাবিত নাগরিকত্ব আইন দেশটির ঐতিহাসিক ধর্মনিরপেক্ষ চরিত্রে প্রভাব ফেলবে।


বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ভারতের লোকসভায় দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বাংলাদেশে সংখ্যালঘুরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন বলে যে অভিযোগ তুলেছেন সে সম্পর্কে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মন্তব্য চাওয়া হলে তিনি সাংবাদিদের বলেন, বাংলাদেশে কোনো সংখ্যালঘু নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন এ অভিযোগ সত্য নয়।


তিনি বলেন, যারাই এই তথ্য দিয়েছেন, তারা সঠিক তথ্য দেননি।


বরং ভারতের লোকসভায় এক দুই দিন আগে পাস হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধন আইন ২০১৯ সহিষ্ণু ও ধর্মনিরপেক্ষ দেশ হিসেবে দেশটির ঐতিহাসিক অবস্থান দুর্বল করবে।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি ও আর্ল ই মিলারের সঙ্গে পর পর বৈঠক থেকে বেরিয়ে এসে বলেন, ভারত ঐতিহাসিকভাবে এটি সহিষ্ণু দেশ, যারা ধর্মনিরপেক্ষতায় বিশ্বাস করে। এ থেকে বিচ্যুত হলে তাদের ঐতিহাসিক অবস্থান দুর্বল হবে।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বর্তমানে খুবই ঘনিষ্ট দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক বিরাজ করছে, যাকে ‘সোনালী অধ্যায়’ বলে অভিহিত করা হয়। আর তাই স্বাভাবিকভাবেই আমাদের জনগণ আশা করে ভারত এমন কিছু করবে না যা তাদের মধ্যে উদ্বেগ সৃষ্টি করতে পারে।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশ দৃঢ় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করে এবং চাকরিসহ সব ক্ষেত্রে সকল ধর্মের অনুসারীদের সমান অধিকার নিশ্চিত করে।


বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের নেতৃত্ব এটা নিয়ে কথা বলবে আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, আমরা কাউকে ধর্মীয় পরিচয়ের ভিত্তিতে বিচার করি না আমাদের কাছে সবাই বাংলাদেশের নাগরিক। সূত্র: বাসস


বিবার্তা/জাই


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com