সচীন দেব বর্মণের বাড়িটি আন্তর্জাতিক মানের সঙ্গীত প্রশিক্ষণ হচ্ছে
প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৭:৪৫
সচীন দেব বর্মণের বাড়িটি আন্তর্জাতিক মানের সঙ্গীত প্রশিক্ষণ হচ্ছে
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

কুমিল্লা জেলার কিংবদন্তী গীতিকার ও সুরকার মনীষী শচীন দেব বর্মণের বাড়িটি আন্তর্জাতিক মানের একটি সঙ্গীত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং মিউজিক্যাল আর্কাইভ হচ্ছে।


১৮ সেপ্টেম্বর, রবিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২৮তম বৈঠকের কার্যবিবরণী থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এর আগে বৈঠক এ ব্যাপারে সুপারিশ করা হয়।


বৈঠকে এসংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির সুপারিশের বাস্তবায়ন ও অগ্রগতি উপস্থাপন করা হয়। সেখানে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় উল্লেখ করে, প্রখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ শচীন দেব বর্মনের বাড়িটি সংরক্ষিত পুরাকীর্তি হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। ইতোমধ্যে উক্ত প্রত্নস্থল সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে প্রয়োজনীয় সংস্কার-সংরক্ষণ কাজ শেষ হয়েছে। কুমিল্লার জেলা প্রশাসক প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের নিকট বাড়িটি অদ্যাবধি হস্তান্তর করেনি। তবে, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের নিকট বাড়িটি হস্তান্তর করা হলে পুরো বাড়িটি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে এনে আন্তর্জাতিকমানের একটি সঙ্গীত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং মিউজিক্যাল আর্কাইভ স্থাপনের জন্য একটি ডিডিপি পেশ করা হবে।


রাজধানীতে হচ্ছে বড় ও ছোট সাংস্কৃতিক কেন্দ্র


বৈঠকে মন্ত্রণালয় আরো জানায়, ঢাকা শহরে সংস্কৃতি চর্চার প্রসারে এলাকাভিত্তিক ছোট ছোট সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গড়ে তোলার পাশাপাশি বৃহৎ আকারের একটি সাংস্কৃতিক বলয় নির্মাণ করতে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুকূলে উত্তরায় ৪১ কাঠা জমি বরাদ্দ প্রদান করেছে। উক্ত জমির লিজ দলিল সম্পাদনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।


এছাড়া, পূর্বাচলে ১০ একর জায়াগা বরাদ্দ চেয়ে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও সচিব মহোদয় গত ২০১৩ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ও ২০১৪ সালের ১৬ এপ্রিলে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবর ডিও পত্র দেয়। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি'র ২৭তম বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুয়ায়ী পুনরায় ডিও পত্র প্রেরণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।


সূত্র জানায়, বৈঠকে নীলফামারী জেলার নীল সাগর পর্যটন কেন্দ্রটি গেজেটভুক্তকরণের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।


বৈঠকে বিগত বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা; কমিটির প্রথম বৈঠক হতে দশম বৈঠকে দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত ও সুপারিশসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। এছাড়া গ্রামীণ লোকজ সংস্কৃতির শত বছরের ঐতিহ্য ‌‌‘যাত্রাপালা' শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে এবং এর উন্নতিকল্পে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির করণীয় ও পরিকল্পনা স্থায়ী কমিটিকে অবহিতকরণ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।


বৈঠকে সাংস্কৃতিক বলয় নির্মাণের লক্ষ্যে পূর্বাচলে ১০ একর জমি বরাদ্দের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট একটি সারসংক্ষেপ পাঠানোর সুপারিশ করা হয়।


বৈঠকে মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলার চা শ্রমিকদের জন্য একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ এবং কিশোরগঞ্জ জেলার সত্যজিৎ রায়ের বাড়িটি সংস্কারের সুপারিশ করা হয়।


বৈঠকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সময়কালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, শিক্ষা, অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় কর্তৃক যে সকল পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছিল সেসকল গৃহীত কার্যক্রমের তথ্য উপাত্তসমূহ সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সংগ্রহ ও জাতীয় আর্কাইভসে সংরক্ষণ করার জন্য সুপারিশ করে।


এছাড়া, যাত্রাশিল্পকে বাঁচিয়ে রাখার লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক নিবন্ধিত যাত্রাদল বাংলাদেশের যে কোন অঞ্চলে যাত্রা প্রদর্শন করতে পারে সে লক্ষ্যে জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারকে অনুমতি দানে সহযোগিতা করতে পত্র প্রেরণের জন্য কমিটি সুপারিশ করে।


কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন (রিমি) এমপি এর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, মমতাজ বেগম, আসাদুজ্জামান নূর, অসীম কুমার উকিল, সুবর্ণা মুস্তাফা এবং শেরীফা কাদের অংশ নেন।


সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলা একাডেমি, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর, আর্কাইভ ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর, প্রত্মতত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালকরাসহ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।


বিবার্তা/এইচএস/এমবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com