শার্শায় অর্থাভাবে হচ্ছে না চিকিৎসা, গুনছেন মৃত্যুর প্রহর
প্রকাশ : ২৭ জুলাই ২০২১, ১৯:৪৬
শার্শায় অর্থাভাবে হচ্ছে না চিকিৎসা, গুনছেন মৃত্যুর প্রহর
যশোর (শার্শা) প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

প্যারালাইসিসে আক্রান্ত আজগার আলীর চিকিৎসা আটকে আছে অর্থাভাবে। ভিটে জমির ৩ শতকের মধ্যে ১ শতক বিক্রি করে এতদিন চিকিৎসা খরচ চালালেও এখন তিনি আর কোনো পথ খুঁজে পাচ্ছেন না। এমন অবস্থায় স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৬৫) অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে বিপাকে।


তাদের ১ ছেলে ও ২ মেয়ে। ছেলে শরিফুল ইসলাম দিনমজুর। বড় মেয়ে পাপিয়া একবছর আগে মারা যায় । ছোট মেয়ে সিপিলা খাতুন বিয়ে হয়ে শশুর বাড়িতে থাকে। তিন ছেলে মেয়ের একমাত্র আয়ের উৎস ছেলে শরিফুল ইসলাম (৩৬) এখন তার পরিবার ( ছেলে- মেয়ে - বউ) নিয়ে ব্যস্ত কোনো মতে দিন মজুরীতে ছেলের সংসার চলে অভাবের ভিতরে। এই অবস্থায় অর্থের অভাবে চিকিৎসা নিতে না পেরে অসুস্থ আজগার আলী মৃত্যুর প্রহর গুনছেন। স্থানীয় মেম্বার সামান্য সহযোগিতা করলেও চেয়ারম্যানের থেকে চিকিৎসার অর্থ সহায়তার আবেদন করেও সাড়া মেলেনি। এতে অসহনীয় দুরবস্থায় দিন কাটছে যশোরের শার্শা উপজেলার লক্ষণপুর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের আজগার আলী ও সুফিয়া বেগমের।


প্যারালাইসিসে ধুঁকছেন আজগার আলী দীর্ঘ ১০ বছর আগে, হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তখন থেকে কাজকর্ম খুব বেশি করতে না পারলেও মোটামুটি চলার মত কর্ম করতে পারতেন। কিন্তু হঠাৎ গত ১০-১১ মাস আগে স্ট্রোক করে (বর্তমান প্যারালাইসিসে আক্রান্ত ) অচল হয়ে পড়েন আজগার আলী। হারিয়ে ফেলেন হেঁটে চলার ক্ষমতা, হারিয়ে ফেলেছে কথা বলার ক্ষমতা। গত কয়েক বার ( ঋণ, ধারে,) টাকা নিয়ে চিকিৎসা শুরু করলেও পুরোপুরি সুস্থ না হতেই ফুরিয়ে যায় আজগার আলী ও সুফিয়া বেগমের সব গোছানো উপার্জন। আবার নিঃস্ব হয়ে যায়।


সুফিয়া বেগম বলেন, শুধুমাত্র প্রতিবন্ধি ভাতা ছাড়া আর কোনো সরকারি সহযোগিতা পায় না। এবার দু'টি ঈদ গেছে তাতে কোনো অনুদান সহযোগিতা পায় নি। আমাদের নামে কোনো চালের কার্ড ও নেই। তবে মেম্বার আব্দুল মাঝে -মধ্যে চিকিৎসা খরচ কিছু টাকা দিয়ে যায়৷


এই বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য জনাব আব্দুল জানান , আমি সবসময় আজগার আলী ও সুফিয়া বেগমের সার্বিক সহযোগিতার চেষ্টা করি । এছাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারা খাতুন জানান , তাদের আমার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন আমি তাদের একটা চালের কার্ডের ব্যবস্থা করে দিবো ।


আজগার আলী ও সুফিয়া বেগমের সহযোগিতা করতে চাইলে তাদের নিজস্ব ০১৭৬২১০৪৬১৪ (বিকাশ) এই নাম্বারে টাকা পাঠাতে পারেন।


এদিকে অসুস্থ আজগার আলীর নাম ও ছবি ব্যবহার করে ( কিছু সাংবাদিকের ভূল বুঝিয়ে নিউজ করায় ও ফেসবুকে সহযোগিতার কথা বলে ) নিজের বিকাশ নাম্বার দিয়ে শার্শার লক্ষণপুর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে শওকত আলী প্রতারণা করে কয়েক হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে ।


বিবার্তা/নয়ন/ইমরান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com