শরীর সুস্থ রাখতে ডাল রান্নার কৌশল জানা আছে কি?
প্রকাশ : ১২ মে ২০২১, ১৭:৫৬
শরীর সুস্থ রাখতে ডাল রান্নার কৌশল জানা আছে কি?
অনামিকা রায়
প্রিন্ট অ-অ+

বাঙালির খাদ্যাভ্যাসকে 'মাছে-ভাতে' বলা হলেও আসল অর্থে ডাল ছাড়া তা অনেকটাই অপরিপূর্ণ। এখন এমন সময় দাঁড়িয়েছে, সপ্তাহে নির্দিষ্ট কয়েকটা দিন মাছ থাকলেও ডাল চাই প্রতিদিন। নানান স্বাদের পদের সঙ্গে নানা রকম ডাল। মুগ, মসুর, অড়হর, মটর-এমন আরও অনেক রকম ডাল আমরা খেতে ভালোবাসি। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না, কোন ডাল কেমন করে রান্না করতে হয়? তবেই ভালো থাকবে স্বাস্থ্য।


অনেকেই রান্না করার আগে ডাল ধুয়ে থাকেন, অনেকে ডাল জলের মধ্যে ভিজিয়ে রাখার পর জল ছেঁকে রান্না করেন। রাজমা, ছোলার মতো ডাল জাতীয় শস্য রান্নার সুবিধার্থে সারারাত জলে ভিজিয়ে রাখলে ভালো বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। অনেকে আছে ডাল না ধুয়েও রান্না করেন। আপনি যদি সেই পর্যায়ে থাকেন তবে আপনার অভ্যাসটি পরিবর্তন করুন। আপনি জানেন না তবে ডাল ভিজিয়ে খেলে তার অনেক সুবিধা রয়েছে। এই সমস্ত সুবিধা বিশেষত আপনার স্বাস্থ্যের সঙ্গে সম্পর্কিত। কিন্তু এ প্রসঙ্গে জেনে রাখা দরকার, যে কোনও ডাল জলে ভিজিয়ে রাখার পর রান্না করা উচিত।


রান্না করার ২ ঘন্টা আগে মসুর ডাল ভিজিয়ে রাখা উচিত


কিছু ডাল রান্না করতে রাতারাতি ভিজিয়ে রাখা দরকার, কিছু ধরণের ডাল ভিজিয়ে না রেখে ১৫-৩০ মিনিটের মধ্যে রান্না হয়ে যায়। তবে মুসুর ডাল রান্না করার আগে ২ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন, তাহলে সহজে হজম হয়ে যাবে। যাঁদের ডাল খেলে গ্যাসের সমস্যায় ভোগেন, তাঁদের জন্য ডাল সবসময় জলে ভিজিয়ে রাখা উচিত। বেশিরভাগ ডালে থাকে অলিগোস্যাকারাইডস। একধরণের জটিল শর্করা। জলে ভিজিয়ে না রেখে ডাল রান্না করলে পেট ব্যাথা, পেট ফুলে যাওয়া ও গ্যাসের মতো সমস্যা তৈরি হতে পারে।


কেন ভিজিয়ে রাখবেন মুসুর ডাল


ভেজানো মসুর ডাল শরীরের খনিজ শোষণের হার বাড়ায়। মুসুর ডালে রয়েছে ফাইটেজ নামে একধরণের এনজাইম। কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখার পর ফাইটিক অ্যাসিডকে ভেঙে তা সক্রিয় হয়। ডালে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, আয়রন ও জিঙ্ক থাকে। সেগুলি শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী।


ডাল ভিজানোর পদ্ধতি


প্রথমে একটি পাত্রে মসুর ডাল রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ৩-৪ বার পর্যন্ত ভালো করে জল দিয়ে আলতোভাবে ঘষুন। এবার চালুনিতে মসুর ডাল রেখে আরও একবার ধুয়ে ফেলুন। একটি পাত্রে মসুর ডালগুলি ঢেলে জল দিয়ে ভিজতে দিন । মসুরের ধরণের উপর নির্ভর করে মসুর ৩০ মিনিট থেকে ২ ঘন্টা ভিজতে দিন।


কোন ডাল কতক্ষণ ভেজানো উচিত?


মসুর ডাল সবসময় ঠান্ডা জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে।


রাজমা বা শুকনো ডাল কমপক্ষে ১২ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন।


ছোলা মসুর ডাল ১-২ ঘন্টা রেখে দিন।


অনেকেই আছেন অসুস্থ হওয়ার ভয়ে রাতে মসুর ডাল খান না, তাঁদের অবশ্যই এই পদ্ধতি অবলম্বন করা উচিত। তাহলে সমস্যা হবে না।


বিবার্তা/অনামিকা/জাই


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com