দখিন-হাওয়া, জাগো জাগো, জাগাও আমার সুপ্ত এ প্রাণ...
প্রকাশ : ২৫ জুন ২০২২, ০৯:৫০
দখিন-হাওয়া, জাগো জাগো, জাগাও আমার সুপ্ত এ প্রাণ...
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

দখিন-হাওয়া, জাগো জাগো, জাগাও আমার সুপ্ত এ প্রাণ। দক্ষিণের উদ্দেশ্যে পুরো দেশবাসী গাইছে এ গান। কেন গাইছে তা সবারই জানা। আজ রুদ্ধ দ্বার খুলে গিয়ে ওপারের সাথে এপারের বন্ধন হবে দৃঢ়। আগে কি বন্ধন ছিল না? ছিল! ছিল তো সবসময়ই! কিন্তু উত্তরের সাথে দক্ষিণের সেই বন্ধনের ইতিহাস জুড়ে ছিল কষ্ট, গ্লানি আর হতাশার ইতিহাস। আজ সত্যিই বাংলাদেশ টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া— উত্তর আর দক্ষিণের অপূর্ব মেলবন্ধন। এই মেলবন্ধনের রূপকার পদ্মা সেতু।


স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন আজ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ যানবাহন চলাচলের জন্য বহুল প্রত্যাশিত ৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু উন্মুক্ত করবেন যা রাজধানী ঢাকা এবং অন্যান্য বড় শহরের সাথে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার সড়ক যোগাযোগে ব্যাপক অগ্রগতি বয়ে আনবে।


সেতুটির উদ্বোধন উপলক্ষে বিশেষ করে যোগাযোগের সরাসরি সুবিধা লাভ করবে এমন দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোসহ সারাদেশে একটি উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। সারাদেশেই তো বইবে উৎসবের এই হাওয়া। কেন নয়? দক্ষিণে যেতে গেলে যে ভোগান্তি ছিল, ফেরি পারাপার, প্রমত্তা পদ্মাকে ভয় আজ সেসব হচ্ছে জয়। যেন বিরহের দিন শেষ। বাংলাদেশের উত্তর আর দক্ষিণ মিলনের সুরে জেগে উঠেছে উচ্ছ্বাসে। সকলের প্রাণে বাজছে সুর— আজি দখিন দুয়ার খোলা।


দেশের বৃহত্তম স্ব-অর্থায়নকৃত মেগা প্রকল্পের উদ্বোধন উপলক্ষে শনিবার সকাল ১০টায় মুন্সীগঞ্জের মাওয়া পয়েন্টে পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। কর্মসূচির সময় অনুযায়ী মাওয়া পয়েন্টে সকাল ১১টায় তিনি স্মারক ডাকটিকিট, স্যুভেনির শিট, উদ্বোধনী খাম এবং বিশেষ সিলমোহর উন্মোচন করবেন। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ফলে ১.২ থেকে ২ শতাংশ পর্যন্ত জিডিপি বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।


সকাল ১১টা ১২ মিনিটে মাওয়া পয়েন্টে টোল পরিশোধের পর উদ্বোধনী ফলক ও ম্যুরাল-১ উন্মোচনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সেখানে মোনাজাতেও যোগ দেবেন। তিনি সকাল ১১টা ২৩ মিনিটে মাওয়া পয়েন্ট থেকে শরীয়তপুরের জাজিরা পয়েন্টের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করবেন। প্রধানমন্ত্রী সকাল ১১টা ৪৫ মিনিটে জাজিরা পয়েন্টে পৌঁছে সেতু ও ম্যুরাল-২-এর উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করবেন। দুপুর ১২টায় মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়িতে সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত দলের জনসভায় যোগ দেবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বিকেল সাড়ে ৫টায় হেলিকপ্টারে জাজিরা পয়েন্ট থেকে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করবেন।


২৬ জুন থেকে পদ্মা সেতুতে চলবে জনসাধারণের যানবাহন। পদ্মার দক্ষিণের মানুষ যাবে উত্তরে, উত্তরের মানুষ দক্ষিণে। সর্বোচ্চ কম সময়ে, সর্বোচ্চ আরামে, সর্বোচ্চ উল্লাসে। এ যেন বাঁধভাঙা আনন্দ।


২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সেতুর নির্মাণ কাজে ৩৭ এবং ৩৮ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যান বসানোর মাধ্যমে পদ্মা সেতুর অংশ দৃশ্যমান হয়। পরে একের পর এক ৪২টি পিলারের ওপর বসানো হয় ৪১টি স্প্যান। ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর শেষ ৪১তম স্প্যান স্থাপনের মাধ্যমে বহুমুখী ৬.১৫ কিলোমিটার পদ্মা সেতুর সম্পূর্ণ কাঠামো দৃশ্যমান হয়ে ওঠে।


মহাসড়কগুলোতে একে একে সেতু হয়েছে। মানুষের যোগাযোগ সহজ হয়েছে। পণ্য পরিবহন গতি পেয়েছে। বড় বাধা ছিল পদ্মা পারাপার। এই নদী পাড়ি দিয়ে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলায় যাতায়াতে ফেরিঘাটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হতো মানুষকে, পণ্যবাহী ট্রাককে।


পদ্মা সেতুর উদ্বোধন আজ। সেতুটি দিয়ে ঢাকা থেকে মাওয়া হয়ে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। এর মাধ্যমে দেশের প্রধান ১০টি মহাসড়কের ৯টিই ফেরি পারাপারের ভোগান্তিমুক্ত হবে (ঢাকা থেকে পাটুরিয়া হয়ে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে যাতায়াত বাদে)। দেশের যোগাযোগব্যবস্থায় নতুন দিগন্ত নিয়ে আসবে পদ্মা সেতু।


এপার থেকে ওপারের পথ যখন দীর্ঘ ছিল, ছিল খরস্রোতা নদীর ভয়াল হাতছানি, ছিল জীবন হারানোর দীর্ঘশ্বাস— পদ্মার ওপার যেন বিরহেরই নাম ছিল এপারের মানুষের মনে মনে। প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতুর নির্মাণ ও উদ্বোধন দক্ষিণের সাথে উত্তরের বিরহ ঘুচিয়ে দিল। দেশবাসী আজ মনেপ্রাণে ভালোবেসে গাইছে— দখিন-হাওয়া, জাগো জাগো, জাগাও আমার সুপ্ত এ প্রাণ...


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com