এদের নেই কোন পাহাড় সমান চাওয়া, আছে বুকভরা ভালোবাসা
প্রকাশ : ১৫ আগস্ট ২০২১, ২০:২৪
এদের নেই কোন পাহাড় সমান চাওয়া, আছে বুকভরা ভালোবাসা
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

মাঝে মাঝে তোর কাছে জেনে-শুনে হেরে যাই; কিছু কথা বলে ফেলি, কিছু কথা ছেড়ে যাই- এটা একটা গানের অংশ। আমরা বাঙালিরা ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের এই লাল সবুজের কাছে জেনে-শুনেই হেরে যাই প্রতিনিয়ত। এই রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপিতা, স্বাধীনতার ঘোষক, ত্রিশ লক্ষ শহীদ, প্রথম রাষ্ট্রপতি, ১৫ আগস্ট জন্মদিন পালন, বাকশাল তথা দ্বিতীয় বিপ্লব, বঙ্গবন্ধু হত্যা সব কিছুতেই আমরা জেনে, শুনে, বুঝে হেরে যাই।আর এতে শিক্ষিত, সচেতন, ইতিহাসবিদ, বুদ্ধিজীবী গোষ্ঠীর দায় সবচেয়ে বেশি।


শাহবাগ এভিনিউ’র ঘূর্ণায়িত জলের ঝরনাটি আর্তস্বরে আমাকে বলেছে, আমি যেন কবিতায় শেখ মুজিবের কথা বলি।আমি তার কথা বলতে এসেছি।


নির্মলেন্দু গুণ এর কবিতা ‘আমি যেন কবিতায় শেখ মুজিবের কথা বলি’তে শাহবাগের সেই ঘূর্ণায়িত জলের ঝরনাটি গত হয়েছে অনেক আগেই, রেসকোর্সের ৭ মার্চের ভাষনের স্হানে শিশু পার্ক হয়েছে পিতা হারনোর কয়েক বছরের মধ্যেই। এসবই রাষ্ট্রের জনগনের হিসেবে আমাদের দীনতা।মাঝে মাঝে হতাশ হলেও আমি আশাবাদী মানুষ। আজ রবীন্দ্র সরোবরে ‘কুঁড়েঘর’ এর পক্ষে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে খাদ্য সহায়তা দিয়ে রিকশায় করে বাসায় ফিরছিলাম।


শাহবাগ পার হতে বঙ্গবন্ধু’র ৭ মার্চের ভাষণটি বেজে উঠলো তখন রিকশা চালক তার হাত দেখিয়ে বলে উঠলো, আমার শরীরের লোম খাড়া দাড়িয়ে গেছে। আমি চিন্তা করলাম এরাই তো এ দেশের খাটি মানুষ, বঙ্গবন্ধু প্রেমী; কিন্তু আমাদের মতো শিক্ষিত নয়- যারা দেশটাকে প্রতিনিয়তই ঠকাচ্ছি।আমি আশাবাদী, আমাদের যুগেও দেশকে ভালোবাসার লোক রয়েছে, এরা দেশকে ঠকাবে না।


-তাকে জিজ্ঞেস করলাম নাম কি?
-বললো ইব্রাহিম খলিল।
-দেশের বাড়ি কোথায়?
-পিরোজপুর।
-কোন উপজেলা?
-মঠবাড়িয়।
-আশরাফ কে চিনেন?
-চিনবো না কেন, তিনি তো এখানে (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) পড়তেন। আমাদের উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন। এমপি নির্বাচন করার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান থেকে পদত্যাগ করেছেন। এমপি নমিনেশন পেলে অথবা স্বতন্ত্র নির্বাচন করলে বর্তমান এমপি'র জামানত থাকতো না। এলাকার মানুষের খোজ খবর রাখেন সব সময়। তিনি খুব জনপ্রিয়। তার প্রধান কারণ তার বিচার। তিনি দলমত নির্বিশেষে নিরপেক্ষ বিচার করেন। তার ভাই এখন উপজেলা চেয়ারম্যান।


একবার বাহাউদ্দীন নাসিম সহেব আমাদের এখানে এসেছিলেন জনস্রোত হয়ে গিয়েছিলো মঠবাড়িয়া। আরেকবার মোল্লা কাওসার এসেছিলেন ছয় মাইল দীর্ঘ হয়েছিলো আশরাফ ভাইয়ের হোন্ডা মিছিল।


আমি বলেছি আমি আশাবাদী মানুষ। তার প্রমান আমাদের আগামীকালের নেতৃত্ব। আমরা যারা ছাত্র রাজনীতি করেছিলাম আশরাফ ছিলো আমাদের সহযোদ্ধা। আমরা একই কমিটিতে ছিলাম। আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম এদেশের রাজনীতির হাল ধরবে। আমরা মাঝে মাঝে আশাহত হই রাজনীতিতে ব্যবসায়ী, সামরিক-বেসামরিক আমলাদের আধিক্যের কারণে। কিন্তু সময় এরকম থাকবে না।


দলে কাউয়া আর হাইব্রিডের বাম্পার ফলনের এ সময়ে পিতা হত্যার দিনে আশাবাদী হতে হলো আরো একবার।যে কৃষক, শ্রমিক, চাষা, কামার-কুমার, বেশ্যা, ভবঘুরে শেখ মুজিবকে বঙ্গবন্ধু আর বঙ্গবন্ধুকে রাষ্ট্রপিতা বানিয়েছে তারাই এ দেশের প্রাণ। এদের নেই কোন পাহাড় সমান চাওয়া; আছে বুকভরা ভালোবাসা। এরাই মুজিবের সোনার মানুষ, এরাই আগামীর বাংলাদেশ। এরাই বাঁচিয়ে রাখবে ২৩ বছর লুকিয়ে রাখা ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের স্রষ্টাকে।


যত দূরে যাও পাখি...দেখা হবে ফের
স্বাধীন ঐ আকাশটা শেখ মুজিবের।।


(ইকবাল মাহমুদ বাবলু’র ফেসবুক থেকে)



বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com