আ.লীগের নেতাকর্মীরা প্রগতিশীল, উদার ও মানবিক মুল্যবোধসম্পন্ন
প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০২১, ২১:১৭
আ.লীগের নেতাকর্মীরা প্রগতিশীল, উদার ও মানবিক মুল্যবোধসম্পন্ন
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপিরচেয়ারপার্সন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী, এতিমের টাকা আত্বসাতের দায়ে দন্ডপ্রাপ্ত বেগম খালেদা জিয়া করোনা আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা'র মহানুভবতায় সাজা স্হগিত করে শর্তসাপেক্ষে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়। আমার চরম ঘোর শত্রুর ও যেন করোনার মতো সংক্রামক মরণঘাতী রোগ না হয়। বাংলাদেশে আজ পর্যন্ত ১০,২৮৩ এবং পৃথিবীতে আজ পর্যন্ত প্রায় ৩০ লক্ষ মানুষ মারা গেছে। রাজনৈতিকভাবে বিএনপি তথা খালেদা জিয়ার স্বামী সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি রাষ্ট্রপিতা বঙ্গবন্ধু শেখা মুজিবুর রহমানকে স্ব পরিবারে হত্যাকারী। আর খালেদা জিয়া ১৯৯১ ও ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে বাংলাদেশের মৌলিকভাবে স্বীকৃত ও মিমাংসিত বিষয় নিয়ে বিতর্কের সূচনা করেন। জাতির পিতা, স্বাধীনতার সর্বাধিনায়ক, স্বাধীনতার ঘোষকসহ মিমাংসিত এই সকল বিষয় নিয়ে বিতর্কের সূচনা করেন।


জিয়াউর রহমান যেমন শাহ আজিজের মতো যুদ্ধাপরাধীকে প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছেন তেমনি বেগম জিয়া রাজাকার, আল বদর, আল শামসসহ যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতি করার সূযোগ করে দেওয়ার পাশাপাশি তাদের এমপি, মন্ত্রী বানিয়েছেন। যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমকে নাগরিকত্ব দিয়েছেন।


শুধু তাই নয় বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার আসামীদের এমপি মন্ত্রী ও বিদেশে রাষ্ট্রদূত করেছে এবং বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ করতে ইনডিমিনিটি অধ্যাদেশ পাশ করেছে ধারাবাহিক ভাবে।


আর একটি অমার্জনীয় অপরাধ ১৯৯১ সালে ক্ষমতায় আসার পরে পনেরই আগস্ট নিজের ভুয়া জন্মদিন পালন করা। ১৯৭৫ সালের পরবর্তীতে ১৯৯১ ও ২০০১ সালে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী রক্তে তার হাত রঞ্জিত। ১৯৭৮ সালে জিয়ার মার্শাল ল এর সময় কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট থেকে আর্মি গিয়ে আমাদের বাড়ী থেকে আমার মুক্তিযোদ্ধা বাবাকে ধরে নিয়ে নির্মম নির্যাতন করে নোয়াখালী সদর থানায় ফেলে রাখে। আমি নিজেও ২০০৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের সাধারণ সম্পাদক থাকা অবস্থায় বিভিন্ন ঘটনায় নির্যাতনের শিকার হয়েছি এবং কারবরণ করেছি।


২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা পৃথিবীর ইতিহাসের নিকৃষ্টতম ঘটনা। ১৯৮১ সালে শেখ হাসিনা দেশে প্রত্যাবর্তন করার পরে প্রায় অর্ধশতক বার তাকে হত্যার জন্য হামলা চালানো হয়েছে।


এত কিছর পরে ও আমার নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার কর্মী হিসেবে আমি খালেদা জিয়ার কোভিড পজিটিভ হওয়াতে তার জন্য দোয়া করি এবং আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মী একইভাবে তার সুস্হতা কামনা করে।


আল্লাহ না করুক যদি ঠিক এর উল্টো ঘটনা ঘটতো তাহলে বিএনপির দেশের আর প্রবাসের য়ারা রয়েছে তার কি এই আচরন করতো? বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে এদের এতো এলার্জি রয়েছে তারা ঠিক বিপরীত কাজ করতো। বিভিন্ন সময় আওয়ামী লীগের নেতাদের মৃত্যুতে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে রিএক্ট দেখি তাতে আমাদের যা বুঝার বুঝে নেওয় যায়।


করোনাকালে মৃত্যুবরনকারী আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান নেত এডভোকেট সাহারা খাতুন, মো. নাসিম, এইচটি ইমাম, এডভোকেট আব্দুল মতিন খসরুসহ যারা মারা গেছেন তাদের নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে রকম স্ট্যাটাস দিয়েছে তা মৃত্যুর পর একজন মুসলিম আর একজন মুসলিম এর জন্য করতে পারেনা। আর ইসলামের ইজারাদার যারা রয়েছে, যারা সকাল-বিকাল আমাদের জান্নাত আর জাহান্নামে টিকেট দেন কিংবা কাফের আর মুরতাদ বানান তাদের সোশ্যাল মিডিয়ায় আস্ফালন দেখা যেত। যারা মৃত মানুষের স্ট্যাটাসে হাহা রিয়্যাক্ট দেন তাদের আস্ফালনে স্যোশাল মিডিয়ায় উকি দেয়া যেত না।


কেউ বলতো আল্লাহর গজব, কেউ বলতো ভারতের দালালী করায় আল্লাহ শাস্তি দিছে। রুহানি বাবার তো কয়েকবার শেখ হাসিনা'র নানান জটিল রোগের কাল্পনিক কাহিনী সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার করছে। এরাই তামাম দূনিয়ার ব্যাখ্যা আর অযোক্তিক কল্প কাহিনী আর গুজব রটানো শুরু করে দিতো।


কিন্তু আজ যখন বেগম খালেদা জিয়া কভিড আক্রান্ত তখন আমাদের দলের নেতা-কর্মীদের স্ট্যাটাস আর প্রতিক্রিয়া থেকে বুঝা যায় আমাদের প্রগতিশীল, উদার, মানবিক মুল্যবোধ।


(ইকবাল মাহমুদ বাবলুর ফেসবুক থেকে)


বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com