মুক্তিযোদ্ধারা ছিলো লুটতরাজকারী, বললো জাবি শিক্ষক!
প্রকাশ : ২৬ জুন ২০২২, ১৭:৫৫
মুক্তিযোদ্ধারা ছিলো লুটতরাজকারী, বললো জাবি শিক্ষক!
জাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) এক সিনেট অধিবেশনে একাত্তর-পরবর্তী সময়ে মুক্তিযোদ্ধাদের লুটতরাজকারী ও নারী নিপীড়নকারী বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার। ফলে এই ঘটনায় শুরু হয়েছে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া।


গত শুক্রবার (২৪ জুন) অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালেয়ের ৩৯তম বার্ষিক সিনেট সভায় এসব মন্তব্য করেন ওই শিক্ষক।


মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষকদের অবসরের বয়স এক বছর বৃদ্ধি করা হবে কিনা, এ বিষয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে ওই মন্তব্য করেন অজিত কুমার। যার ৭ মিনিটের অডিও রেকর্ডটি বিবার্তা২৪ডটনেটের এই প্রতিনিধির কাছেও সংরক্ষিত আছে।


সভায় বক্তব্যে অজিত কুমার বলেন, ‘আমি মুক্তিযুদ্ধ দেখেছি। মুক্তিযুদ্ধ-পরবর্তী কালও দেখেছি। আমার মামা ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযোদ্ধাদের অবশ্যই আমি সম্মান করি। আবার এই মুক্তিযোদ্ধারাই কীভাবে নিপীড়ন করেছে নারীদের, আমি দুয়েকটা নামও বলতে পারি। ’


তিনি আরো বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান প্রদানের জন্য আরো অনেক উপায় আছে। তাদেরকে চাকরির সময় বৃদ্ধির মাধ্যমেই কেন সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। সরকার চাকরির মেয়াদ বৃদ্ধির বিষয়ে যা বলছেন সেটি সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য। আমরা তো সরকারি চাকরি করি না’।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে অজিত কুমার বলেন, ‘পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে আমি এমন মন্তব্য করেছি। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের আমি সম্মান করি।’


জানা যায়, অধ্যাপক অজিত কুমার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যপন্থী শিক্ষক হিসেবে পরিচিত। আওয়ামী লীগের শিক্ষকদের একাংশের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদে’র সভাপতি। এছাড়া তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ডিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


এদিকে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে নেতিবাচক কথা বলার পরেও তিনি জয়বাংলা স্লোগান দিয়ে তার বক্তব্য শেষ করেন।


এ বিষয়ে উপাচার্য (সাময়িক দায়িত্বে) অধ্যাপক মো. নুরুল আলম বলেন, তিনি এই বক্তব্যের ব্যাখা প্রদান করতে পারবেন না।


উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষক সাবেক উপ-উপাচার্য ও অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আমির হোসেনের চাকরির মেয়াদ বৃদ্ধিকরণ করা হবে, কি হবে না সে জন্য সিনেট সভায় ২০১২ সালে গঠিত আইনকে কেন্দ্র করে পক্ষে-বিপক্ষে মতামত প্রদান করা হয়। সভায় চূড়ান্ত মতামত প্রদান করতে সক্ষম না হওয়ায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য মন্ত্রণালয়ের মতামত চাওয়া হয়েছে। রাত সাড়ে ১২টায় এ সভা শেষ হয়।


বিবার্তা/আয়েশা/রাসেল/এসএফ


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com