ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষা অংশ নিচ্ছেন ৫৫ বছর বয়সী বেলায়েত
প্রকাশ : ২০ মে ২০২২, ০৯:২১
ঢাবিতে ভর্তি পরীক্ষা অংশ নিচ্ছেন ৫৫ বছর বয়সী বেলায়েত
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ইচ্ছা ছিলো সন্তানদের বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) পড়াবে আর অন্যান্যদের মত বড় মানুষ করবে। কিন্তু সন্তানদের অনিচ্ছা আর অবহেলায় বাবার স্বপ্ন তা স্বপ্নই রয়ে গেলো। যেহেতু তারা (সন্তানরা) বাবার স্বপ্নকে বলি দিলো, বাবা বেলায়েত শেখ নিজেই সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে লড়ায় করছেন ৫৫ বছর বয়সে!


আগামী শনিবার (১১ জুন) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'ঘ' ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ৫৫ বছর বয়সী বেলায়েত শেখ এই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন।


গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পশ্চিমখণ্ড এলাকার মৃত হাসেন আলী শেখ ও জয়গন বিবির ছেলে বেলায়েত শেখ। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্সে তিনি এইচএসসি (ভোকেশনাল) পাস করেন ঢাকা মহানগর কারিগরি কলেজ থেকে। এর আগে ২০১৯ সালে বাসাবোর দারুল ইসলাম আলিম মাদ্রাসা থেকে দাখিল (ভোকেশনাল) পাস করেন। একইসাথে তার ছোট ছেলেও এসএসসি পরীক্ষা পাস করেন।


শুক্রবার (১৯ মে) সকালবেলা মুঠোফোনে সাক্ষাতকালে বেলায়েত শেখ বিবার্তাকে জানান, তার জন্ম ১৯৬৮ সালে। বর্তমানে পেশায় তিনি একজন সাংবাদিক। জাতীয় দৈনিক করতোয়ার শ্রীপুর প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। এছাড়া তিনি জেটিভি অনলাইনের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন বলে জানান।


বেলাায়েত শেখ বলেন, ছোটবেলা থেকেই অভাব দেখেছি। বাবার অসুস্থতা এবং অভাবের তাড়নায় ১৯৮৩ সালে এসএসসি পরীক্ষা দিতে পারিনি। ফরম ফিলাপের টাকা দিয়ে বাবার চিকিৎসা করাতে হয়েছিল। এরপর ১৯৮৮ সালেও বন্যার কারণে পরীক্ষা দেয়া যায়নি। ১৯৯০ সালে মা অসুস্থ হয়ে পড়েন। মায়ের কথা ভেবে বিয়ে করি। বাবার তখনও অভাব ছিল। সংসার চালাতে কষ্ট হচ্ছিল। ২৫-২৬ বছর একাধারে আমিই সংসার চালিয়েছি। ভাই-বোনদের পড়াশোনার দায়িত্ব ছিল আমার ঘাড়ে। কিন্তু তারপরও তাদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত না করতে পারার আক্ষেপ রয়ে গেছে। এই সময়ে আর লেখাপড়ারও সুযোগ পাইনি।


বেলায়েতের স্বপ্ন ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা বিভাগে পড়াশোনার। সেই লক্ষ্যে সাইফুরস ভার্সিটি কোচিংয়ের মাওনা শাখায় ক্লাস করছেন তিনি। বেলায়েত শেখ বলেন, আমার স্বপ্ন ছিল সন্তানরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়বে। অনেক আশা ছিল তাদের নিয়ে। কিন্তু তিন সন্তানের কেউই তা পূরণ করতে পারেনি। সেই ক্ষোভ থেকে ২০১৯ সালে এসএসসি আর ২০২১ সালে এইচএসসি পরীক্ষা দিই শুধুমাত্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার আশায়।


বেলায়েত শেখের তিন সন্তান। সে এখন গাজীপুরের একটি কলেজে অনার্সে পড়ছে। পাশাপাশি মাওনা চৌরাস্তায় স্যানেটারির দোকান করছেন। সম্প্রতি তাকে বিয়েও করিয়েছেন। দ্বিতীয় সন্তান একমাত্র মেয়ের জন্ম ১৯৯৯ সালে। পড়াশোনায় ভালো ছিলো দেখে ইচ্ছে ছিল তাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াবেন। সেজন্য রাজধানীর একটি কলেজে ভর্তিও করিয়েছেন। কিন্তু মেয়ে রাতপ স্বপ্ন দেখেছিলো ঢাকায় পরতে গেলে সে মারা যাবে! সেখানে পড়াশোনা না করেই গ্রামে চলে যায়। সেখানে এইচএসসি শেষে একটি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানে ভর্তি হয়। সে অনার্স সেকেন্ড ইয়ার পড়াবস্থায় তার বিয়ে দেন। তার ছোট ছেলের জন্ম ২০০৫ সালে। সে এ বছর বেলায়েত শেখের সঙ্গে এইচএসসি পাস করেছে।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রস্তুতির বিষয়ে তিনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষার জন্য শুরুর দিকে প্রস্তুতি নিইনি। তবে এইচএসসি পরীক্ষার ফল (৪.৫৮) ভালো হওয়ায় বাড়তি ভালো লাগা কাজ করল। ভাবলাম, আমি চাইলেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পারব। আমার স্ত্রী-ছেলেমেয়েরাও আমাকে পড়ালেখার সুযোগ দিচ্ছে। এরপর শ্রীপুরের মাওনায় রাজধানী থেকে পরিচালিত একটি কোচিং সেন্টারে ভর্তি হয়েছি। আমার তো বাবা নেই, মারও বয়স হয়ওয়াতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হলে অভিভাবক হিসেবে কাউকে যাওয়া লাগতে পারে। এসব চিন্তা করে বড় ছেলেকে অভিভাবক দিয়েছি।


বেলায়েত বলেন, সময় তো কারো জন্য অপেক্ষা করে না। আমার চুল পেকে গেছে। বয়স বেশি হলেও নিজেকে মনের দিক থেকে তরুণ ভাবতে পছন্দ করি। ৫৫ বছর বয়সে আগামী ১১ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দেব। আল্লাহর কাছে সাহায্য ও সকলের কাছে দোয়া চাই।


বিবার্তা/সাইদুল/এমবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com