শাওন হত্যামামলায় লাশ উত্তোলনের নির্দেশ
প্রকাশ : ১৬ মার্চ ২০১৮, ০০:৩৩
শাওন হত্যামামলায় লাশ উত্তোলনের নির্দেশ
নিহত আশফাক আলরাফী শাওন
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আশফাক আলরাফী শাওন হত্যার এক সপ্তাহ পর ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ কবর থেকে তোলার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। হত্যকাণ্ডে গ্রেফতার ৩ আসামিকে জেলে পাঠানো হয়েছে।


ময়মনসিংহ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের ১ নং আমলী আদালতের বিচারক এস এম রাজীবুল হাসান বৃহস্পতিবার এই নির্দেশ দেন।


এর আগে বুধবার, পুলিশ বাদী হয়ে তিন জন আসামির নাম উল্লেখ করে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা করে। আটককৃত তিন আসামি হলেন সঞ্জয় দত্ত (২৬), এস এম আরিফুল হক (২৭) ও আমিনুল ইসলাম হিমেল (২৭)।


কোতুয়ালি মডেল থানার ওসি মাহমুদুল হাসান জানান, উপ-পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বাদী হয়ে ৩ জনের নাম উল্লেখ ও আরো অজ্ঞাত কিছু আসামি করে একটি সাধারণ ডাইরী করেন। পরদিন ৫৪ ধারায় ওই ৩ জনকে আটক দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করলে শুনানি শেষে বিচারক জেলহাজতে প্রেরণ করেন।


পরে বুধবার (১৪ মার্চ ) রাতে ওই ৩ জনের নাম উল্লেখ ও আরো কিছু অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন এস আই মোস্তাফিজ। বৃহস্পতিবার (১৫ মার্চ ) দুপুরে শাওন হত্যা মামলায় তাদের আসামি দেখিয়ে ময়মনসিংহ চীফজুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের ১ নং আমলী আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড ও লাশ উত্তলনের জন্য আবেদনসহ হাজির করা হয়।


এসময় শুনানি শেষে বিচারক এস এম রাজীবুল হাসান আসামিদের জেলহাজতে প্রেরণ করার এই নির্দেশ দেন। সেই সাথে শাওনের লাশ উত্তলন করে ময়নাতদন্তের আদেশ দিয়েছেন।


তবে আগামী ১৮ মার্চ রিমান্ড শুনানির দিন ধার্যকরা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।


গত ৮ মার্চ দুপুরে ঢাকার ধানমন্ডিতে ইবনে সিনা হাসপাতালে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি গুলিবিদ্ধ আশফাক আলরাফী শাওন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। টানা ১২ দিন চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।


উল্লেখ্য, ২৫ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে ময়মনসিংহ নগরীর জেলা পরিষদের সামনে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আশফাক আলরাফী শাওন রহস্যজনকভাবে গুলিবিদ্ধ হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। এসময় তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা শাওনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠান।


শাওন আকুয়া চৌরঙ্গীর মোড় এলাকার বাসিন্দা এবং সাবেক জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ কদ্দুসের ছেলে।


কোতুয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান জানান, কীভাবে তিনি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।


বিবার্তা/নোমান/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com