কাঁটাবনে বন্দি পশু-পাখিরা কাঁদছে
প্রকাশ : ০৫ এপ্রিল ২০২০, ১৯:৩২
কাঁটাবনে বন্দি পশু-পাখিরা কাঁদছে
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সাধারণ ছুটির কারণে রাজধানীর কাঁটাবন মার্কেটের শতাধিক দোকান এখন বন্ধ। এর ভেতরে আটকা পড়েছে শখের পশু-পাখিরা। দোকানের ভেতর থেকে পশু-পাখিদের কান্নার শব্দ শুনতে পাচ্ছেন পথচারীরা।


শনিবার (৪ এপ্রিল) ‘এখন পাশ দিয়ে হেঁটে গেলেই এদের কান্নার শব্দ শোনা যাচ্ছে’ বলে স্বপন দাস নামে একজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।


একটি ছবি দিয়ে তিনি লিখেছেন, আপনারা যে ছবিটা দেখছেন তা কাঁটাবনে অবস্থিত পশুপাখি মার্কেটের। আজকে বিকেলে শাহবাগ থেকে ঔষধ আনার জন্য এই পথ দিয়ে যাওয়ার সময় এক মর্মান্তিক দৃশ্য চোখে পড়ে। দেখি পশুপাখির বন্ধ দোকান গুলো থেকে আঁটকে থাকা কুকুরগুলো প্রচণ্ড আর্তনাদ করছে। তাদের চিৎকার শুনলে পাষাণহৃদয় মানুষও কষ্ট পাবে। তাদের খাওয়া নেই, দাওয়া নেই। তাদের ছোট ছোট খোপের ভেতরে সেই কবে আটকিয়ে চলে গেছে কে জানে। এই প্রাণীগুলো বাঁচবে কীভাবে?


স্বপন দাস বলেন, শনিবার বিকালে মার্কেটের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় বন্ধ একাধিক দোকান থেকে কুকুরদের কান্নার শব্দ শুনতে পাই। কিছু কিছু দোকান থেকে পাখিসহ অন্য প্রাণীর চেঁচামেচিও শোনা যাচ্ছিল। করোনাভাইরাসের কারণে দোকান মালিকরা বন্ধ করে চলে যাওয়ায় এই প্রাণীগুলো অভুক্ত বলে ধারণা করছি।


বন্দিদশার মধ্যে পর্যাপ্ত খাবার না পেয়ে পশু-পাখিগুলো কান্না করছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।


প্রিটি বার্ড দোকানের মালিক পলাশ হোসেন জানিয়েছেন, পশু-পাখিদের খাবার দেয়ার জন্য তিনি সকালে এবং সন্ধ্যায় অল্প সময়ের জন্য দোকান খোলার অনুমতি প্রশাসনের লোকজনের কাছ থেকে পেয়েছেন। তবে দোকান খোলা রাখলেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন এসে বন্ধ করতে বলে। ফলে পশু পাখিদের যে সময় দেয়া দরকার, তা না পাওয়ায় নানা সমস্যা হচ্ছে।


এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বিবার্তাকে বলেন, বন্দি প্রাণীগুলোকে খাবার দেয়ার সুযোগ তারা দিচ্ছেন। দোকান মালিকদের ডেকে শাটার পুরো না খুলে দিনে অন্তত একবার জীবন্ত পশু পাখিদের খাবার দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।


বিবার্তা/আবদাল

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com