যশোর কোতোয়ালির ওসিকে স্ট্যান্ডরিলিজ
প্রকাশ : ২৪ জুন ২০১৯, ২০:১৬
যশোর কোতোয়ালির ওসিকে স্ট্যান্ডরিলিজ
যশোর প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি অপূর্ব হাসানকে স্ট্যান্ডরিলিজ করা হয়েছে।


সোমবার পুলিশ সদরদফতর থেকে তার বিরুদ্ধে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়। তাকে শিল্প-বাণিজ্য পুলিশে যোগদান করতে বলা হয়েছে।


গত বছর ১০ জুলাই অপূর্ব হাসান বেনাপোল থেকে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় যোগদান করেছিলেন। যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন সময় তার বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ওঠে। অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক’ও তার বিরুদ্ধে তদন্ত করছে।
যশোর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আনসার উদ্দিন জানান, পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি অপূর্ব হাসানকে স্ট্যান্ডরিলিজ করা হয়েছে। তাকে শিল্প পুলিশে যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।


স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি যশোরে পরপর কয়েকটি হত্যাকাণ্ড ও ছুরিকাঘাতসহ অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আলোচনায় উঠে আসে। একমাসের ব্যবধানে যশোর শহর ও শহরতলীতে অন্তত ৫টি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।
সর্বশেষ গত ২০ জুন সন্ধ্যায় বাহাদুরপুর এলাকায় ছুরিকাঘাতে প্রাণ যায় ১০ম শ্রেণির মাদরাসাছাত্র সম্রাটের। একইদিন শহরের খোলাডাঙ্গা এলাকা থেকে ড্রামবন্দি সিনবাদ নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। এর আগে ১৮ জুন শহরের শংকরপুর এলাকায় গণপিটুনিতে সন্ত্রাসী সানি নিহত হন। এসময় বোমায় মারাত্মক আহত হন আর এক সন্ত্রাসী নয়ন ওরফে হিটার নয়ন। ১৩ জুন শহরের সন্ন্যাসী দীঘির পাড় এলাকায় ছুরিকাঘাতে ফেরদৌস (২০) নামে এক যুবক নিহত হন।


গত ৬ জুন যশোরের রায়পাড়ায় ৫ম শ্রেণির ছাত্র টিবি ক্লিনিক এলাকার আব্দুল্লাহকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। আর গত ২০ মে বাহাদুরপুর এলাকায় ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয় জুটমিল শ্রমিক শহীদ কাজীকে।


এ হত্যাকাণ্ডের পাশাপাশি গত ২০ জুন রাতে যশোরে পুলিশের বিরুদ্ধে সুফিয়া খাতুন (৫০) নামে ‘অসুস্থ এক নারীর পেটে লাথি মারার অভিযোগ’ ওঠে। শহরের খড়কি হাজামপাড়া এলাকায় শ্রাবণী নামে মহিলাকে ধরতে যান কোতোয়ালি থানার এসআই বিপ্লব ও ইকবাল ওই নারীর পেটে লাথি মারেন। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত দু’কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের পরিবর্তে ওই নারী ও তার পরিবারকে উল্টো চাপ দিতে থাকে। একপর্যায়ে ওই নারী চিকিৎসা সম্পন্ন না করেই হাসপাতাল ছাড়তে বাধ্য হন।


এর আগে গত ১৫ জুন বিকেলে উপশহর এলাকা থেকে অপহরণের শিকার হয় যশোর উপশহর উচ্চবালিকা বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ও সদর উপজেলার পাগলাদহ গ্রামের তরিকুল ইসলামের মেয়ে তানিয়া ইসলাম বৃষ্টি (১৪)। অপহরণের বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দিলেও এক সপ্তাহ ঘুরিয়েও পুলিশ মামলা নেয়নি। সর্বশেষ এই দুটি ঘটনা নিয়ে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়।


এছাড়া ওসি অপূর্ব হাসানের বিরুদ্ধে অবৈধ ও জ্ঞাত আয় বহির্ভূতভাবে কোটি কোটি টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। গতবছরের ডিসেম্বর থেকেই দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক এই অভিযোগ তদন্ত করছে। তবে এ তদন্তের ব্যাপারে কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আনসার উদ্দিন।
বিবার্তা/তুহিন/আকবর

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com