পাওনা টাকা চাওয়ায় নারীকে বেঁধে নির্যাতন!
প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২১:২৯
পাওনা টাকা চাওয়ায় নারীকে বেঁধে নির্যাতন!
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুড়িগ্রামের উলিপুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় বিধবাকে সিড়িতে বেঁধে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় একটি মামলাও দায়ের হয়েছে। এতে এক মাদরাসার সহকারী সুপারসহ দুই জনকে গ্রেফতার করে হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।


গত রবিবার (১১ নভেম্বর) উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নে খামার তবকপুর গ্রামে ওই নারী নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটে।


মামলা সূত্রে জানা যায়, চিলমারী রাজারভিটা বালিকা আলিম মাদরাসার সহকারী সুপার মাহফুজুর রহমান (৫০) একই গ্রামের মৃত জামাল উদ্দিনের স্ত্রী রশিদা বেওয়ার (৬০) কাছ থেকে তিন বছর আগে ৬৫ হাজার টাকা ঋণ নেয়। টাকা নেওয়ার ১০ দিনের মধ্যে তা পরিশোধ করার কথা দিয়েছিল সে। কিন্তু নানা তালবাহানা করে তিন বছর পার করে দিয়েছে।


এমতাবস্থায় গত রবিবার পাওনা টাকা চাইতে অভিযুক্ত মাদরাসার সহকারী সুপার মাহফুজুর রহমানের বাড়িতে যান রশিদা বেওয়া। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রশিদাকে ঘরের বাড়ান্দার সিঁড়িতে বেঁধে রাখে সে। এক পর্যায়ে মাহফুজুর রহমান তার বাড়ির লোকজনের মাধ্যমে রশিদা ও তার সাথে যাওয়া আম্বিয়া খাতুনকে টেনে হিচড়ে দড়ি দিয়ে বেঁধে মুখে গামছা দিয়ে মারধর করে।


খবর পেয়ে রশিদার স্বজনরা তাদের উদ্ধার করতে গিয়েও ব্যর্থ হয়। তারা পুলিশকে খবর দিলে রশিদাকে উদ্ধার করে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে পুলিশ। এ সময় অভিযুক্ত মাহফুজুর রহমানকে আটক করা হয়।


এ ঘটনায় রশিদা বেওয়ার পুত্রবধূ খুকি বেগম বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে উলিপুর থানায় মামলা করেন। মামলায় পুলিশ মর্জিনা বেগম (৫৫) নামে আরো এক জনকে গ্রেফতার করে।


উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম সরদার বলেন, রশিদা বেওয়া ও আম্বিয়া খাতুন বর্তমানে চিকিৎসাধীন। তারা এখন শঙ্কামুক্ত আছেন।


উলিপুর থানার ওসি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত দু’জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


বিবার্তা/সৌরভ/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com