চার যুগেও নির্মাণ হয়নি কাউখালী-ভান্ডারিয়া ব্রিজ
প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:৪০
চার যুগেও নির্মাণ হয়নি কাউখালী-ভান্ডারিয়া ব্রিজ
কাউখালী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

পিরোজপুরের কাউখালী ও ভান্ডারিয়া উপজেলার মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র পথ জোলাগাতী খাল পার হওয়া। কিন্তু চার যুগ পরও খালটির উপর নির্মাণ হয়নি কোনো ব্রিজ।


জোলাগাতী খালে দীর্ঘ ৮ কিলোমিটারের মধ্যে এপার থেকে ওপার যাওয়ার জন্য কোনো পাকা বা আধাপাকা ব্রিজ নির্মাণ করা হয়নি আজও। অথচ এই খালের উপর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পাকা ব্রিজ নির্মাণ করলে দুই উপজেলার যোগাযোগের মেলবন্ধন সৃষ্টি হতো। যুগের পর যুগ ধরে বিভিন্ন সময় ব্রিজের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম ও কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন-নিবেদন করেও কোনো সুরাহা করা যায়নি।


স্থানীয়রা বিভিন্ন সময় অস্থায়ীভাবে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বাঁশ ও সুপারি গাছের জোড়াতালি দিয়ে কোনো মতে এই জোলাগাতির খালের বিভিন্ন গুরুত্ব স্থানে ৬টি সাঁকো তৈরি করেছেন। তবে ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হয় এসব সাঁকো দিয়ে।


বেকুটিয়া ফেরি ও চরখালি ফেরি পারাপার হয়ে যেতে হলে যাত্রীদের দীর্ঘ ১০-১৫ কিলোমিটার ঘুরে অতিরিক্ত অর্থ ও সময় অপচয় করে গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়। শহরের আধুনিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত এখান মানুষ।


জোলাগাতি এলাকার অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আ. বারেক ক্ষোভের সাথে বলেন, এই দুই উপজেলার সীমানায় জোলাগাতি খালের ওপর কোনো ব্রিজ না থাকায় খালের দুই পাড়ে থাকা ঐতিহ্যবাহী কাপালির হাট হাইস্কুল, বালিকা বিদ্যালয়, আজাহারিয়া দাখিল মাদ্রাসাসহ ৭-৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শত শত ছাত্র-ছাত্রী চরম দুর্ভোগ নিয়ে লেখাপড়া করছে। আর্থিকভাবে স্বচ্ছল ব্যক্তিরা যোগাযোগ দুরবস্থার কারণে জেলা শহরে চলে যাচ্ছেন।


এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম আহসান কবির জানান, জোলাগাতি খাল চওড়া বেশি ও দুই উপজেলার সীমান্তবর্তি খাল হওয়ায় প্রশাসনিক জটিলতার কারণে একটু সময় লাগছে। ব্রিজ নির্মাণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে যোগাযোগ অব্যাহত আছে।


বিবার্তা/বশির/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com