শিশু আকিফার দাফন সম্পন্ন, তিন জনের নামে মামলা
প্রকাশ : ৩১ আগস্ট ২০১৮, ০৯:২৯
শিশু আকিফার দাফন সম্পন্ন, তিন জনের নামে মামলা
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুষ্টিয়া শহরে বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে রাস্তায় ছিটকেপড়া শিশু আকিফার মৃত্যুর ঘটনায় মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোররাত সাড়ে চারটায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় আকিফা। এ ঘটনায় নিহত শিশু আকিফার বাবা বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ওই গাড়ির চালক এবং দুই সহযোগীকে আসামি করা হয়েছে।


কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি নাসির উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা আইনে বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর অভিযোগে মামলাটি করা হয়েছে। মামলায় ৩০৪ ধারাসহ আরো কয়েকটি ধারা রয়েছে। তবে ৩০২ ধারায় মামলাটি হয়নি। আসামি ধরার ব্যাপারে কুষ্টিয়া থানা-পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে শিগগিরই আসামিদের ধরা সম্ভব হবে।


এর আগে রাত ৯টায় চৌড়হাস কবরস্থানে শিশুটির লাশ দাফন করা হয়।


জানা গেছে, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা বাসের সামনে দিয়ে শিশু আকিফাকে কোলে নিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন মা রিনা বেগম।


হঠাৎ চালক বাসটি চালিয়ে রিনা বেগমকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে তার কোল থেকে রাস্তায় ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয় শিশু আকিফা।


দুপুরে এমন দুর্ঘটনার ভিডিওচিত্র ফেসবুকে ভাইরাল হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয় জেলাজুড়ে। ফরিদপুর থেকে রাজশাহীগামী গঞ্জেরাজ নামে বাসটি দ্রুত পালিয়ে যায়।


পরে স্থানীয়রা মা-মেয়েকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে শিশুটির অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে সন্ধ্যায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার ভোররাত সাড়ে চারটায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় আকিফা।


শিশু আকিফার বাবা আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করে সাংবাদিকদের বলেন, টাকা কিংবা ক্ষমতার কাছে নত হব না। কোনো আপস মীমাংসায়ও যাব না।


বিবার্তা/শান্ত/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com