মোরেলগঞ্জে কামারদের শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা
প্রকাশ : ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৮:০৪
মোরেলগঞ্জে কামারদের শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা
রাজীব আহসান রাজু, মোরেলগঞ্জ
প্রিন্ট অ-অ+

ঈদুল আজহার আর মাত্র একদিন বাকি। পশু কোরবানি দেয়ার প্রস্তুতি নিতে ব্যস্ত সবাই। আর এই ঈদকে সামনে রেখে দা, ছুরি, চাপাতি ও কুড়ালের কদর বেড়ে যাওয়ায় শেষ মুহূর্তেও রাত-দিন কর্মব্যাস্ততায় সময় কাটাচ্ছেন বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের কামাররা।


সোমবার সরেজমিনে মোরেলগঞ্জ পৌরসদরের কর্মকারপট্টিতে ঘুরে দেখা দেখা যায় কামারদের কর্মব্যস্ততার চিত্র। দোকানে চলছে ছুরি, বঁটি, দা শাণ দেয়ার কাজ। পাশাপাশি হাতুড়ি পেটানোর শব্দ। কেউ ভারী হাতুড়ি দিয়ে পেটাচ্ছেন আগুনরাঙ্গা লোহার খণ্ড। কেউ ভোঁতা হয়ে পড়া দা ও ছুরিতে শাণ দিচ্ছেন। কেউবা কয়লার আগুনে বাতাস করছেন। আবার কোথাও কোথাও দোকানের সামনে দা-বঁটি, ছুরি, চাপাতি ও কুড়াল ইত্যাদি সাজিয়ে রেখেছেন। দোকানগুলোতে খরিদ্দারের ভিড় লেগে আছে, বিক্রিও হচ্ছে বেশ ভালো।


যাদের ঘরে পুরোনো দা, বঁটি, ছুরি আছে তাঁরা সেগুলো শাণ দেয়ার ব্যবস্থা করছেন। আর যাদের এগুলো নেই-তারা দোকান থেকে নতুন করে সেসব কিনে নিয়ে যাচ্ছেন।


প্রতিটি চাপাতি আকৃতি ও লোহাভেদে ৪৫০ থেকে ৬৫০, ছুরি প্রতিটি ৪০০ থেকে ৫০০, চাকু প্রতিটি ১৫০ থেকে ২৫০ ও কুড়াল প্রতিটি ৪৫০ থেকে ৫৫০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। এ ছাড়া চাপাতি, ছুরি, চাকু এবং কুড়াল শাণ দিতে ধরণভেদে ৫০ থেকে ২৫০ টাকা করে নেয়া হচ্ছে।


দোকান মালিক স্বপন কর্মকার ও উত্তম কর্মকার জানান, পারিবারিক ভাবেই এসব সরঞ্জাম তৈরির কাজ করছেন তারা। এসব তৈরির জন্যে খুলনার শেখপাড়া থেকে লোহা সংগ্রহ করতে হয়। আর আগুন জ্বালাতে কয়লা ব্যবহার করতে হয়। সারাবছর তেমন বেচা-কেনা না হলেও কুরবানির ঈদকে সামনে রেখে কামারদের ব্যাস্ততা বেড়ে যায় দ্বিগুণ।


বিবার্তা/রাজু/সোহান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com