সরকারিভাবে শুরু হয়নি ধান ক্রয় : বিপাকে কৃষক
প্রকাশ : ২৮ মে ২০১৮, ০৫:৩৫
সরকারিভাবে শুরু হয়নি ধান ক্রয় : বিপাকে কৃষক
তানভীর আঞ্জুম আরিফ, হাওড়পাড় থেকে ফিরে
প্রিন্ট অ-অ+

আবহাওয়া অনুকূল ও বোরোর বাম্পার ফলনের পরেও মৌলভীবাজারের হাওর অঞ্চলের কৃষকদের মুখে হাসি নেই।


সরকারিভাবে ধান ক্রয় এখনো শুরু না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন কৃষকেরা। প্রয়োজনের তাগিদে বাধ্য হচ্ছেন কম দামে মধ্যস্বত্বভোগীদের কাছে ধান বিক্রি করতে।


এ বছর প্রকৃতির তেমন বিরুপ প্রভাব পড়েনি এ অঞ্চলের কৃষকদের ওপরে। ফসল কাটার আগ মুহূর্তে ব্লাস্ট রোগ এবং বৃষ্টিতে কিছুটা ক্ষতি হলেও তা কৃষকদের তেমন ভোগান্তিতে ফেলতে পারে নি। কিন্তু ভালভাবে ধান উৎপাদন করতে পারলেও তা বিক্রি করে ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেন না বলে হতাশা বিরাজ করছে কৃষকদের মনে।


মৌলভীবাজার জেলায় দেশের বৃহৎ হাওর হাকালুকির অবস্থান। হাওর অঞ্চলে আগে আগেই সরকারের ধান কেনার সিদ্ধান্ত থাকলেও এবছর এখনো তা শুরু হয়নি। কৃষকেরা স্থানীয়ভাবে ধান বিক্রি করতে সরকারি খাদ্য গুদামগুলোতে যোগাযোগ করছেন। সরকারিভাবে ধান ক্রয় শুরু না হওয়ায় ফসলের ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন কৃষকেরা।



জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, এবছর মৌলভীবাজারে ৫৪ হাজার ১২ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। যা সরকার নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার থেকে ২ হাজার হেক্টর বেশি। সে হিসেবে চাল উৎপাদিত হবে দুই লাখ ছয় হাজার ৩২৫ মেট্রিক টন। যা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে সারা দেশের চালের বাজারে যুক্ত হবে।


জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, হাওর এলাকায় ধান শুকানো ও রক্ষণাবেক্ষণে সমস্যার কথা বিবেচনা করে সিলেট বিভাগের অন্যান্য জেলায় সরকারিভাবে বোরো ধান ক্রয় শুরু হয়েছে। তবে মৌলভীবাজার জেলায় এখনো নির্দেশনা আসেনি। যারফলে সরকারি হিসেবে ২৬ টাকা কেজি দরে এক মন ধানের দাম এক হাজার চল্লিশ টাকা নির্ধারণ করা হলেও প্রয়োজনের তাগিদে কৃষকেরা স্থানীয় বাজারে প্রতি মন ধান ৫’শ থেকে ৬’শ টাকায় বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন।


সরেজমিনে জেলার কাওয়াদিঘী হাওড় পাড়ের রমিজ উদ্দিন, নাজির মিয়া, কামাল উদ্দিনসহ কয়েকজন কৃষকের সাথে বিবার্তার এই প্রতিবেদকের কথা হলে তারা জানান, এক বিঘা জমিতে তাদের ধান আবাদ করতে খরচ হয়েছে প্রায় পাঁচ হাজার টাকা। কিন্তু বর্তমান বাজারের দামে তাদের খরচ তুলতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে। অধিকাংশকেই উৎপাদন খরচ পরিশোধের জন্য ধান কাটার পরপরই তা বিক্রি করতে হয়। কিন্তু সরকারিভাবে ধান ক্রয় শুরু না হওয়ায় তারা বাধ্য হয়েই কম দামে ধান বিক্রি করছেন।


জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনোজ কান্তি দাস চৌধুরী বিবার্তাকে জানান, মৌলভীবাজারে ধান ক্রয়ের নির্দেশনা এখনো আসেনি। এজন্য আমরা ধান ক্রয় শুরু করতে পারিনি। লক্ষ্যমাত্রাও জানানো হয়নি। ক্রয়ের নির্দেশনা পেলেই ধান ক্রয় শুরু হবে।


বিবার্তা/আরিফ/নুর

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com