মুক্তিযোদ্ধা হত্যা: ৪ জনের আত্মসমর্পণ
প্রকাশ : ২২ নভেম্বর ২০১৬, ১৩:৪৮
মুক্তিযোদ্ধা হত্যা: ৪ জনের আত্মসমর্পণ
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ঝালকাঠির রাজাপুরের আমতলা বাজারে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম খানকে হত্যার প্রধান আসামি স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ওরফে বাচ্চু মিয়া মেম্বরসহ চারজনের আত্মসমর্পণ করেছে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। অন্যদিকে আটক সন্দেহভাজন দুজনকে তিনদিনের রিমান্ড দেয়া হয়েছে।


উল্লেখ্য, ঝালকাঠির রাজাপুরের আমতলা বাজারে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম খানকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় রাজাপুর থানায় মামলা করা হয়। নিহতের ছেলে শামসুল আলম মুরাদ বাদী হয়ে গত (১৫ নভেম্বর) মঙ্গলবার রাতে রাজাপুর থানায় মামলাটি করেন। মামলায় রাজাপুরের সাতুরিয়া ইউনিয়নের যুবলীগ নেতা শাহ আলম ওরফে আলো এবং স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ওরফে বাচ্চু মেম্বরকে প্রধান অভিযুক্ত করা হয়েছে। মামলার এজাহারে আটজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া অজ্ঞাত আরো চারজনকে আসামি করা হয়েছে।


উল্লেখ্য, গত সোমবার রাজাপুরের আমতলা বাজারে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম খানকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ও যুবলীগ নেতা শামসুল আলমসহ ৮/১০জন এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি। এরপর হামলাকারীরাই আব্দুস সালামকে ভান্ডারিয়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভুয়া নাম পরিচয় দিয়ে ভর্তি করে পালিয়ে যায়।


ওইদিন রাতেই তার স্বজনরা খবর পেয়ে ভান্ডারিয়া স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে তাকে আহতাবস্থায় বাড়িতে নিয়ে গেলে রাত আনুমানিক ৪টায় তার মৃত্যু হয়। হামলার ঘটনা সম্পর্কে পরিবারের সদস্যদের কাছে সালাম কিছু না বলতে পারার কারণে পরের দিন মঙ্গলবার সকালে ভান্ডারিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যদায় জানাজা দেয়ার প্রস্তুতি নেয় প্রশাসন।


গত সোমবার রাজাপুরের আমতলা বাজারে তার ওপর হামলার ঘটনা প্রকাশ পায়। পরে ভান্ডারিয়া থানা পুলিশ তার মরদেহ হেফাজতে নিয়ে রাজাপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। এ মামলার কোনো আসামিকে এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।


রাজাপুর থানার ওসি মুনীর উল গিয়াস জানান, মুক্তিযোদ্ধার ছেলে আটজনের নাম উল্লেখসহ আরো চারজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেন। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশে একাধিক টিম কাজ করছে। আশা করি দ্রুত আসামিদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।


এদিকে ঝালকাঠি সিভিল সার্জন আব্দুর রহিম জানান, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ১১টি আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এই সব আঘাতের জন্যই তার মৃত্যু হয়েছে কিনা তা পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট পাওয়ার পরে নিশ্চিত হওয়া যাবে।


রাজাপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার শাহ আলম নান্নু ও ভান্ডারিয়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার আ. মান্নান বিশ্বাস ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা অনতিবিলম্বে মুক্তিযোদ্ধা সালাম হত্যার আসামিদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানাই।


বিবার্তা/জেমি/জিয়া


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com