ধানের সঠিক দাম না পাওয়ায় হতাশ কৃষক
প্রকাশ : ২০ মে ২০১৮, ০৬:০৩
ধানের সঠিক দাম না পাওয়ায় হতাশ কৃষক
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুড়িগ্রামে গত বছর ভয়াবহ বন্যার পর এবছর মাঠজুড়ে সোনালী ধান দেখে ভরে গেছে কৃষকের চোখমুখ। ধানের শীষে ভরা মাঠ যেন সোনালী কার্পেটে ছড়িয়ে আছে।


কৃষক-কৃষাণি ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে মাঠজুড়ে। শ্রমিকেরা লম্বা আইল ধরে ধান বয়ে নিয়ে যাচ্ছে কৃষকের উঠোনে। সেখানে ধান মাড়াইয়ের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে নারী-পুরুষেরা। কৃষি উপকরণসহ সার, বীজ, কীটনাশক হাতের কাছে পাওয়ায় আবাদের বাম্পার ফলন হলেও কৃষকদের মনে আশঙ্কা কাজ করছে ধানের ভাল দাম না পাওয়ায়।


বর্তমান বাজারে কাঁচা ধানের মন ৬শ’ থেকে সাড়ে ৬শ’ টাকা। যা বিক্রি করে খরচ ওঠাতে পারছে না কৃষকরা। কাঁচা ধানের মূল্য দিয়েই শোধ করতে হচ্ছে শ্রম মূল্য। ফলে কম দাম পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে কৃষকরা।



কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য মতে, চলতি বছর বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ১ লাখ ১১ হাজার ৮৪২ হেক্টর। অর্জিত হয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৪৭ হেক্টর। ফলন উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৪ লাখ ৬১ হাজার ৯১৫ মেট্রিক টন। এখন পর্যন্ত ৪৫ ভাগ ধান কাটা হয়েছে। তাতে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ফলন বেশি আশা করছে কৃষি বিভাগের লোকজন। এবার হাইব্রিড ধান নির্ধারণ করা হয় ৪ দশমিক ৭৬ মেট্রিক টন, উফশি-ব্রি ধান-২৮ ৩ দশমিক ৯৩ মেট্রিক টন এবং স্থানীয়তে এক দশমিক ৯৪ মেট্রিক টন।


জেলা কৃষি বিভাগ জানায়, চলতি বোরো মৌসুমে ৯টি উপজেলায় আবাদ হয়েছে হাইব্রিড, উফশি-ব্রি ধান-২৮ এবং স্থানীয় ধান। সদর উপজেলায় ১৪ হাজার ১৮৫ হেক্টর, উলিপুরে ২১ হাজার ৯৭৫ হেক্টর, চিলমারীতে ৬ হাজার ৮শ হেক্টর, রৌমারীতে ১০ হাজার ১৫০ হেক্টর, রাজিবপুরে ২ হাজার ৭১০ হেক্টর, ভূরুঙ্গামারীতে ১৬ হাজার ২৭৫ হেক্টর, নাগেশ্বরীতে ২১ হাজার ৮১২ হেক্টর, ফুলবাড়ীতে ১১ হাজার ৬৫০ হেক্টর এবং রাজারহাট উপজেলায় ১২ হাজার ১৯০ হেক্টর জমিতে ধান আবাদ করা হয়েছে।


সরেজমিনে গেলে উলিপুর উপজেলার গোড়াই রঘুরায় গ্রামের কৃষক মোস্তা, বদিয়ত ও জামসেদ বিবার্তার এই প্রতিবেদককে হতাশা নিয়ে জানায়, আবাদ ভাল হলেও বোরো মৌসুমে ফলন হয়েছে একর প্রতি ৬০ থেকে ৬৫ মণ ধান। বর্তমানে ৬’শ থেকে সাড়ে ৬’শ টাকার বাজার দরে খরচ বাদ দিলে লাভ থাকছে না বললেই চলে।


এ অবস্থায় তারা দাবি করছে সরকার থেকে ধানের মূল্য নির্ধারণ করে দেয়া হোক এবং প্রকৃত কৃষকের কাছ থেকে সরকার ধান ক্রয় করুক। তাহলে আমাদের মতো কৃষকেরা কিছুটা স্বস্তি নিয়ে বেঁচে থাকতে পারবে।


বিবার্তা/সৌরভ/নুর

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com