সাতক্ষীরায় মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনলো শিক্ষার্থীরা
প্রকাশ : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, ২২:০৭
সাতক্ষীরায় মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনলো শিক্ষার্থীরা
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

আজ ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। এ উপলক্ষ্যে সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের পিছনের বধ্যভূমিতে শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনানোর কর্মসূচি আয়োজন করা হয়।


বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার কামরুজ্জামান বাবু শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক হানাদার বাহিনীর গণহত্যা ও নির্যাতনের গল্প শোনান।


‘বিজয়ের মাসে এসো মুক্তিযুদ্ধের গল্পশুনি’ শীর্ষক এই কর্মসূচির আয়োজন করে সাতক্ষীরা শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিম এবং জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড।


এ সময় মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান বাবু মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ করে বলেন, বর্তমান সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সেসময় ছিল বাঙালিদের আশ্রয়স্থল। বাঙালিরা এখানে আশ্রয় নিয়ে ধারাবাহিকভাবে বর্ডার পাড় হতো। কিন্তু একদিন খান সেনারা শহরে প্রবেশ করার সময় জানতে পারে এই স্কুলে ২৭-২৮ জন লোক আশ্রয় নিয়েছে। তারপর খান সেনারা এসে তাদের আটক করে। আশপাশের বাড়ি থেকে দা, কোদাল, শাবল সংগ্রহ করে আটককৃতদের দিয়েই স্কুলের পেছনের এই জায়গাটিতে গর্ত খুড়ে নেয়। পরে নিরীহ বাঙালিদের নির্যাতন ও কুপিয়ে হত্যার পর এই গর্তেই মাটা চাপা দেয়া হয়। দুই-তিন দিন ধরে এই গণকবর থেকে করুণ আত্মচিৎকার ভেসে আসতে থাকে, মৃত্যুবরণ করে সবাই। পরবর্তীতে এই স্কুলেই পাক সেনারা টর্চার সেল স্থাপন করে। অথচ এই গণকবর সংরক্ষণে আজও ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। বরং দখল হয়ে গেছে।


এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা হাসানুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা হাসানুল ইসলাম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সদস্য সচিব লাইলা পারভিন সেজুতি, জোসনা আরা, সাতক্ষীরা শিক্ষা-সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিমের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল ইসলাম, বাহলুল করিম, নূরুল হুদা, আব্দুর রহিম, মাহিদা মিজান, ফজলুল হক প্রমুখ।


মুক্তিযুদ্ধের গল্প শোনার এই কর্মসূচিতে সাতক্ষীরা সরকারি কলেজ, সরকারি মহিলা কলেজ, সিটি কলেজ, ডে-নাইট কলেজ, পল্লীমঙ্গল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়।


এ সময় মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষার্থীরা সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন এই বধ্যভূমিটিসহ সব বধ্যভূমি সংরক্ষণের দাবি জানান।


পরে তরুণ প্রজন্মসহ উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধারা এই গণকবরে বধ্যভূমির সাইন বোর্ড স্থাপন করেন এবং তরুণ প্রজন্মের হাতে জাতীয় পতাকা তুলে দেন।


বিবার্তা/ওসমান/সোহাগ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com