কুষ্টিয়ায় দেড়শতাধিক রোগী পাচ্ছেন নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন
প্রকাশ : ০১ আগস্ট ২০২১, ২১:০৭
কুষ্টিয়ায় দেড়শতাধিক রোগী পাচ্ছেন নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন
শরিফুল ইসলাম, কুষ্টিয়া
প্রিন্ট অ-অ+

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের অভিঘাতে সারাদেশেই চিকিৎসা সেবায় সঙ্কট দেখা যাচ্ছে। আকস্মিক মাত্রাতিরিক্ত রোগীর চাপে স্বাস্থ্যকর্মীরাও জেরবার। মানবিক এ সঙ্কটকালে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে চলছে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা।


কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালেও (বর্তমানে করোনা হাসপাতাল) প্রতিনিয়ত করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এ হাসপাতালটিতে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের জন্য ইতোমধ্যে ২০০টি সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিদিন অন্তত ১৫০ জন রোগীকে সেন্ট্রাল প্লান্ট থেকে অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে।


হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আশরাফুল আলম বিবার্তাকে জানান, বর্তমানে এখানে অক্সিজেনের কোনো ঘাটতি নেই। কোনো রোগীকেই অক্সিজেন সঙ্কটে পড়তে হচ্ছে না। ক্রমাগত সার্ভিসের কারণে কিছু হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলার যান্ত্রিক সমস্যা হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিক উদ্যোগ নিয়ে দ্রুত সেগুলো মেরামতের ব্যবস্থা করা হয়।


অনুসন্ধানে জানা যায়, কুষ্টিয়া করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ৩৪টি হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা রয়েছে। এরমধ্যে মধ্যে ১২টিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। বর্তমানে ১৮টি হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা দিয়ে রোগীদের চিকিৎসা সেবা চলছে।


হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল করোনা হাসপাতালে সরকারিভাবে ১৪টি হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা সরবরাহ ছিল। হাসপাতালে করোনা রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলার বিশেষ প্রয়োজন দেখা দেয়। এ অবস্থায় কুষ্টিয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফের উদ্যোগে জেলার বিভিন্ন বেসরকারি দাতা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি আরও ২০টি হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা যন্ত্র হাসপাতালে সরবরাহ করেন। সব মিলিয়ে হয় ৩৪টি হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা। এর মধ্যে ৩০টি হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা রোগীদের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছিল। বাকি ৪টি স্থাপনের পর্যায়ে রয়েছে।