‘মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ ছাড়াই খোলা রাখা হয় এমসি কলেজ ছাত্রাবাস’
প্রকাশ : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:২৫
‘মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ ছাড়াই খোলা রাখা হয় এমসি কলেজ ছাত্রাবাস’
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

করোনাকালে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নির্দেশ ছাড়াই এমসি কলেজের ছাত্রাবাস খোলা রাখা হয়েছে। এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষনের ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রধান মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) শাহিদুল খবির চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন।


বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুই দিনের তদন্ত শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফি দেয়ার সময় তিনি বলেন, ছাত্রাবাসের কক্ষ থেকে অস্ত্র উদ্ধারের বিষয়েও আমরা অবগত হয়েছি। আয়তন অনুযায়ী সিলেট এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা যথেষ্ট নয়। এছাড়াও অপ্রতুল সীমানা প্রাচীর, আলোর স্বল্পতার কারণেও নিরাপত্তার ব্যঘাত ঘটেছে।


তদন্ত কমিটির প্রধান আরো বলেন, এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের সঙ্গে এমসি কলেজের একজন শিক্ষার্থী জড়িত। অন্যরা আগে শিক্ষার্থী থাকলেও এখন তারা বহিরাগত। তারা এখন আর এমসি কলেজের ছাত্র নয়।


তিনি বলেন, তদন্ত কমিটি, পুলিশ, কলেজ প্রশাসন, নির্যাতিতা নারী ও তার স্বামীর সঙ্গেও কথা বলেছি আমরা। আমরা মূলত এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের ভূমিকা ও অবস্থান বিষয়ে তদন্ত করছি। আগামীকাল বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে কমিটি প্রাথমিক প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে জমা দেব।


প্রসঙ্গত, গত ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসের সামনে প্রাইভেটকারের মধ্যেই পালাক্রমে গণধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুজন।


এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেছেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরো তিনজনকে আসামি করা হয়। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীরা সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকারের অনুসারী।


বিবার্তা/আবদাল

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com