মণিরামপুরে তৈরি হচ্ছে ভেজাল ঘি
প্রকাশ : ০৮ অক্টোবর ২০১৬, ২০:০১
মণিরামপুরে তৈরি হচ্ছে ভেজাল ঘি
যশোর প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ এলাকায় এক কারখানায় ভেজাল ঘি তৈরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এখানে তৈরি করা ঘি প্রতিদিন ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বাজারজাত করা হচ্ছে।


বিএসটিআই অনুমোদন ছাড়াই চলছে এই ঘি উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের কারবার। লোকচক্ষু আড়াল করতে চারিদিকে দেয়াল ঘেরা একটি বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে এ কারবার চললেও প্রশাসন নির্বিকার।


উপজেলার রাজগঞ্জ ঝাঁপা বাঁওড়ের তীরবর্তী দেয়াল ঘেরা একটি বাড়ি। বাড়িটিতে ঢুকতেই একটি গেট। ভেতর থেকে বন্ধ থাকায় অনেক ডাকা-ডাকির পরও কেউ গেট খোলেনি। এরপর স্থানীয় এক ব্যক্তিকে নিয়ে যাওয়া হয় সেখানে। তার পরিচয় জেনে ভেতর থেকে গেট খুলে দেয়া হয়।


এ সময় সেখানে হাকিম মিয়া ও সাগর হোসেন নামে দুই কর্মচারীকে একটি বড় পাত্রে ঘি তৈরি করতে ব্যস্ত দেখা যায়। এ প্রতিকেদক ক্রেতা পরিচয়ে সেখানে ঢুকলেও তাদেরকে কিছুটা অস্বাভাবিক মনে হচ্ছিল। কিছুক্ষণ পরেই কারখানায় উপস্থিত হন কারখানা মালিক কমল ঘোষ।


কমল ঘোষ নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলারপোদ্দারপাড়া গ্রামের সুশীল ঘোষের ছেলে। ১১ বছর আগে তিনি এই এলাকায় এসে ঘির কারখানা গড়ে তোলেন। তিনি বলেন, তার কারখানায় প্রতিদিন ১৫ কেজি ঘি তৈরি হয়। যেখানে ওই ঘি তৈরি করতে দুইশ কেজি দুধের প্রয়োজন হয়। যা স্থানীয় ১৫ জন দুধ বিক্রেতা তার কারখানায় দুধ জোগান দেয় বলে তার দাবি।


অভিযোগ রয়েছে, দুধ ছাড়াও ঘি তৈরিতে খাবার সোডা, সয়াবিন তেলসহ অন্যান্য উপাদান ব্যবহার করেন। প্রতি সপ্তাহে ৩০ লিটার সয়াবিন তেল স্থানীয় এক মুদি দোকানির কাছ থেকে কেনেন তিনি।


অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার কারখানায় মূলত ঘি তৈরির ক্রিম উৎপাদিত হয় । যদিও সেখানে হাড়ি (পাতিল) ভর্তি ঘি চোখে পড়ে। এসব তৈরির জন্য বিএসটিআই-এর অনুমোদন আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি কৌশলে এড়িয়ে গিয়ে বলেন, বোঝেন তো..। সব কিছু ম্যানেজ করেই ব্যবসা চালাতে হয়।


স্থানীয় অনেকেই জানান, দীর্ঘদিন থেকে কমল ঘোষ এই ভেজাল ঘিয়ের ব্যবসা করে বিপুল অর্থ-বিত্তের মালিক বনে গেছেন। কমল নিজেই বলেন, বছর দু’য়েক আগে রাজগঞ্জ বাজারে ২৪ লাখ টাকায় ভবনসহ ১১ শতক জমি কিনেছেন।


এ ব্যাপারে মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল হাসান বলেন, বিষয়টি আদৌ তার জানা নেই, তবে এরকম কিছু থাকলে অচিরেই তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


বিবার্তা/তুহিন/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com