মঙ্গলে এলিয়েনের ঘরের দরজা সত্যিই কী!
প্রকাশ : ১৬ মে ২০২২, ০৮:২৬
মঙ্গলে এলিয়েনের ঘরের দরজা সত্যিই কী!
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সম্প্রতি একটি ঘটনায় তোলপাড় হয়েছে সারা বিশ্বের সোশ্যাল মিডিয়া৷ ৭ মে নাসা মার্স রোভার কিউরিওসিটি যানের মাস্টক্যাম দিয়ে মঙ্গলের একটি অংশের ছবি তুলে পৃথিবীতে পাঠিয়েছে৷ সেই ছবিটি সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ওই ছবিতে মঙ্গলের একটি অংশে পাথর কেটে একটি দরজা তৈরি করা হয়েছে বলে মনে হচ্ছে৷ যা রীতিমতো হুলুস্থুল ফেলে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে৷ মঙ্গলে প্রাণের সম্ভাবনার কথা মাঝে মাঝেই সামনে এসেছে৷ এই দরজার ছবি সে আলোচনাকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু আসলে বিষয়টা কী?


জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, ওটি আসলে এলিয়েনদের ঘরের দরজা। তবে কেউ কেউ মনে করছেন, সেই ভাবনা ভুল। ওটা মঙ্গল গ্রহের মধ্যভাগ। নাসার বিজ্ঞানীরা অবশ্য শেষমেশ সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে, এলিয়েনদের ঘরের দরজা বা মঙ্গলের মধ্যভাগ বলে নয়, ছবিতে যা দেখা যাচ্ছে তা আসলে পাথরের ভাঙা অংশ। মঙ্গলে ভূমিকম্পের জেরে ওই ধরনের দরজার আকৃতি হয়েছে ওই পাথরের। নাসার রোভার কিউরিওসিটি যানের মাস্টক্যাম দিয়ে ওই ছবি তোলা হয়েছে। প্রকাশিত সাদা-কালো ছবিটি এক পলক দেখে মনে হবে পাথরের গায়ে ঘরে ঢোকার দরজা। সেখানে কিছু খোদাই করে রাখা হয়েছে।


সত্যিই কি মঙ্গলে এলিয়েনরা দরজা বানিয়েছে? বিশেষজ্ঞরা কিন্তু একেবারেই অন্য কথা বলছেন। অনেকেই দাবি করেছেন এই দরজা আসলে এলিয়েনদের। তবে, ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডনের অধ্যাপক সঞ্জীব গুপ্ত মঙ্গলের দরজার বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে ব্যাখ্যা করে বলেছেন, একটি একটি গভীর ফাটল বা যা কিছুটা দরজার মতো দেখতে৷ এরকম ফাটল মঙ্গল এবং পৃথিবী প্রচুর দেখতে পাওয়া যায়। গত কয়েকশ মিলিয়ন বছরে যে কোনও সময় ঘটতে পারে। মঙ্গল এবং পৃথিবীতে প্রচুর পরিমাণে এরকম ফাটল রয়েছে, সেগুলি তৈরি করার জন্য মার্সকম্পের প্রয়োজন নেই! ভূমিকম্প, পাথরের ক্ষয়সহ বিভিন্ন কারণে এটি হতে পারে!


অধ্যাপক গুপ্তা, নাসার কিউরিওসিটি মিশনে কাজ করছেন৷ তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন, চিত্রটিতে মোটেও অদ্ভুত কিছু নেই - এগুলি কেবল স্বাভাবিক ভূতাত্ত্বিক প্রক্রিয়া সৃষ্ট ফাটল! নাসার বিজ্ঞানীদের তরফেও বলা হয়েছে সাধারণ দৃষ্টি তো যেটিকে একটি বড় আকারের দরজা বলে মনে হচ্ছে সেটি আসলে খুবই ছোটো ফাটল! কারণ এই ছবিটি অত্যন্ত জুম করা হয়েছে। ফাঁকটি আসলে একটি পাথরের একটি ছোট ফাটল। নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন যে এটি কতটা ছোট! তারা বলেছিলেন এই প্রায় ৩০ সেন্টিমিটার বাই ৪৫ সেন্টিমিটার। এর আশেপাশেও এরকম কয়েকটি ফাটল রয়েছে৷ তবে বিজ্ঞানীরা একেবারেই হতাশ করছেন না৷ তাঁরা বলছেন কিউরিওসিটি মঙ্গলে প্রাণের খোঁজে তদন্ত চালাচ্ছে এবং সেখানে হয়ত অতীতে প্রাণের চিহ্ন ছিল!


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com