জলপাইঃ পুষ্টিগুণে পরিপূর্ণ এক ফল
প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০২০, ১৫:৩১
জলপাইঃ পুষ্টিগুণে পরিপূর্ণ এক ফল
অনামিকা রায়
প্রিন্ট অ-অ+

জলপাই, নাম শুনলে জিবে জল আসবে না এমন লোক পাওয়া ভার। ছোট-বড়, কম-বেশি প্রায় সকল বয়সীর কাছে এটা একটা লোভনীয় ফল। কখনও আড্ডার আসরে নুন মরিচ দিয়ে অথবা খাবার টেবিলে আচার হিসেবে জলপাইয়ের জুড়ি নেই আর কিছুতেই। শীতের আগমনবার্তা নিয়ে বাজারে এসেছে জিভে জল আসা জলপাই। এর ইংরেজি নাম ‘অলিভ’। আরেক নাম অলিয়া ইউরোপিয়া, অর্থ ইউরোপের তেল।


গাছটি আট থেকে ১৫ মিটার লম্বা হয়। এর ফল আকারে ছোট, লম্বায় এক থেকে দুই সেন্টিমিটার। জলপাইয়ের আদি নিবাস এশিয়া, আফ্রিকা ও ভূমধ্যসাগরীয় কিছু অঞ্চলে। এটি পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের উপকূলীয় এলাকা, বিশেষ করে লেবানন, সিরিয়া, তুরস্কের সামুদ্রিক অঞ্চল ও ইরানের উত্তরাঞ্চলে ভালো জন্মে। বাংলাদেশেও ফলটি ভালো জন্মে। টক স্বাদের ফলটি আমাদের দেশে খুবই জনপ্রিয়। শীতের শুরুতে পাওয়া গেলেও আচার বানিয়ে বা সেদ্ধ করে তেলে ডুবিয়ে সংরক্ষণ করা যায় বছরজুড়ে। জলপাই সেদ্ধ করে ভর্তা খেতেও চমৎকার। কাঁচা জলপাইয়ের পুষ্টিগুণ তুলনামূলক বেশি। প্রতিদিন জলপাই খেলে স্বাস্থ্য ভালো থাকে, রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ে।


জলপাই এর অসাধারণ স্বাদ ও পুষ্টিগুণ সারা বছর ধরে মানুষের মনে থেকে যায়। খাবার হিসেবে আমরা সবাই কমবেশি জলপাই কিংবা জলপাইয়ের তেল খেয়ে থাকি। জলপাইয়ের রয়েছে বহুবিধ উপকারিতা। জলপাই-এ নানা পুষ্টিকর উপাদান, যেমন- ভিটামিন, মিনারেল অর্থাৎ খনিজ পদার্থ এবং ভেষজ উপাদান, আয়রন, খাদ্যআঁশ, কপার, ভিটামিন-ই, ফেনোলিক উপাদান, অলিক অ্যাসিড এবং বিভিন্ন প্রকারের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান বিদ্যমান। আসুন জেনে নেই, জলপাইয়ের স্বাস্থ্যগত গুণ।


১. সুস্থ্য হৃদযন্ত্রের জন্য


মানুষের শরীরের রক্তে ফ্রি র‌্যাডিকেল অক্সিডাইজড কোলেস্টেরেলের মাত্রা বেড়ে গেলে হার্টঅ্যার্টাকের ঝুঁকি থাকে। জলপাইয়ের তেল হার্টঅ্যার্টাকের ঝুঁকি কমায়। জলপাইয়ের এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রক্তের কোলেস্টেরেলের মাত্রা কমায়।ফলে কমে যায় হৃদরোগের ঝুঁকি। হৃদযন্তের যত্নে কাজ করে জলপাই।


২. ক্যান্সার প্রতিরোধে


ভিটামিন 'ই' এর ভালো উৎস কালো জলপাই । যা কিনা ফ্রি র‌্যাডিকেলকে ধ্বংস করে। ফলে শরীরের অস্বাভাবিক ওজন নিয়ন্ত্রনে থাকে। শুধু তাই নয়, জলপাইতে আছে মনোস্যাটুরেটেড ফ্যাট। জলপাইয়ের ভিটামিন ই কোষের অস্বাভাবিক গঠনে বাধা দেয়। ফলে ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি কমে।


৩. ত্বক ও চুলের যত্নে


ফ্যাটি এসিড ও এ্যান্টি অক্সিডেন্ট ত্বক ও চুলের যত্নে কাজ করে। আর এই ফ্যাটি এসিড ও এ্যান্টি অক্সিডেন্ট পাওয়া যাবে কালো জলপাইয়ের তেলে। জলপাইয়ের ভিটামিন ই ত্বকে মসৃনতা আনে। চুলের গঠনকে আরও মজবুত করে। ত্বকের ক্যানসারের হাত থেকেও বাঁচায় জলপাই। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির কারণে ত্বকের যে ক্ষতি হয় তা রোধ করে জলপাই।


৪. হাড়ের ক্ষয়রোধ করে


জলপাইয়ের মনোস্যাটুরেটেড ফ্যাটে থাকে এন্টি ইনফ্লামেটরি। আছে ভিটামিন ই ও পলিফেনাল। যা কিনা অ্যাজমা ও বাত-ব্যথা জনিত রোগের হাত থেকে বাঁচায়। বয়সের কারণে অনেকেরই হাড়ের ক্ষয় হয়। হাড়ের ক্ষয়রোধ করে জলপাইয়ের তেল।


৫. পরিপাকক্রিয়ায় সাহায্য করে


নিয়মিত জলপাই খেলে কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।খাবার পরিপাকক্রিয়ায় সাহায্য করে জলপাই। শুধু তাই নয়, গ্যাস্টিক ও আলসারে হাত থেকেও বাঁচায় জলপাই। জলপাইয়ের তেলে প্রচুর পরিমানে ফাইবার থাকে। যা বিপাক ক্রিয়ায় সাহায্য করে।


৬. আয়রনের ভালো উৎস


কালো জলপাই আয়রনের ভালো উৎস। রক্তের লোহিত কনিকা অক্সিজেন পরিবহন করে। কিন্তু শরীরে আয়রনের অভাব হলে শরীরে অক্সিজেনের অভাব দেখা দেয়। ফলে শরীর হয়ে পরে দুর্বল। আয়রন শরীরের অ্যানজাইমকে চাঙ্গা রাখে।


৭. চোখের যত্নে
জলপাইয়ে ভিটামিন এ পাওয়া যায়। ভিটামিন এ চোখের জন্য ভালো। যাদের চোখ আলো ও অন্ধকারে সংবেদনশীল তাদের জন্য ঔষধের কাজ করে জলপাই।


বিবার্তা/এসএ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com