স্বপ্ন পূরণে ব্যর্থ টাইগার ব্যাটসম্যানরা
প্রকাশ : ০২ জুলাই ২০১৯, ২৩:৪৩
স্বপ্ন পূরণে ব্যর্থ টাইগার ব্যাটসম্যানরা
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

মাস্ট উইন গেমে ২৮ রানে পরাজিত হওয়ায় সেমির স্বপ্ন কঠিন হয়ে গেলো টাইগারদের। টাইগার ব্যাটসম্যানদের অসহায় আত্মসমর্পনের মিছিলে শেষ দিকে আশা জাগিয়েছিলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। দলের হয়ে বরাবরের মতো সাকিবের উইলো থেকে বেরিয়ে আসে দুর্দান্ত অর্ধশত।


বার্মিংহামের এজবাস্টনে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ফেভারিট ভারত। ম্যাচটি বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় শুরু হয়।


ফিল্ডিংয়ে নেমে ৫ম ওভারেই আউট হতে পারতেন রোহিত শর্মা। ১০ রানের মাথায় ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন তিনি। মুস্তাফিজুর রহমানের শর্ট ডেলিভারিটি স্কয়ার লেগের দিকে উড়িয়ে মেরেছিলেন রোহিত শর্মা। দৌড়ে গিয়ে সেটি একদম হাতে পেয়ে যান তামিম। কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে ফেলে দেন।


পরে উদ্বোধনী জুটিতে রোহিত ও রাহুল ১৮০ রানের জুটি গড়েন। দলীয় ১৮০ রানে রোহিত শর্মাকে লিটনের ক্যাচ বানিয়ে ভারতীয় শিবিরে আঘাত হানেন পার্ট টাইম বোলার সৌম্য সরকার। অবশ্য তার আগে রোহিত ৯২ বলে সাতটি চার ও পাঁচটি ছক্কার সাহায়্যে ১০৪ রান করেন তিনি। এবারের বিশ্বকাপে রোহিতের এটি চতুর্থ সেঞ্চুরি। এ সেঞ্চুরিতে তিনি শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তী কুমার সাঙ্গাকারার চারটি সেঞ্চুরির রেকর্ডে ভাগ বসালেন। সাঙ্গাকারা ২০১৫ বিশ্বকাপে চারটি সেঞ্চুরি করেছিলেন।


রোহিতের বিদায়ে পর ভারতীয় শিবিরে দ্বিতীয় আঘাত হানেন রুবেল হোসেন। ৩৩তম ওভারে লোকেশ রাহুলকে উইকেটের পেছনে মুশফিকের ক্যাচ বানিয়ে ফেরত পাঠান রুবেল। তার আগে এই ওপেনার করেছেন ৯২ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে করেছেন ৭৭ রান। এরপর মুস্তাফিজ ভারতীয় শিবিরে জোড়া আঘাত হানেন। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি রুবেলকে ক্যাচ দিয়ে ফেরার এক বল পর স্লিপে সৌম্যকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন হার্ডহিটার হার্দিক পান্ডিয়া।


দলীয় ২৭৭ রানে অলরাউন্ডার সাকিবের বলে মোসাদ্দেককে ক্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপে প্রথম অর্ধশত থেকে ২ রান দূরে থাকতে আউট হন ঋষভ পান্ত। এরপর আবার মুস্তাফিজ। এবার দলীয় ২৯৮ রানে শিকার হন দীনেশ কার্তিক। বোলারদের উপর চড়াও হয়ে উঠা ধোনিকে দলীয় ৩১১ রানে ফেরান মুস্তাফিজ। ধোনির বিদায়ের তিন রান পর ভুবনেশ্বর কুমারকে বোল্ড করে ম্যাচে নিজের পঞ্চম উইকেট তুলে নেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ। এটিই ছিল বিশ্বকাপে মুস্তাফিজের প্রথম পাঁচ উইকেট। আর বিশ্বকাপে বাংলাদেশি হিসেবে দ্বিতীয়। এর আগে সাকিব আল হাসান ছিলেন এ তালিকায় একমাত্র বাংলাদেশি।


৩১৫ রানের লক্ষ্যমাত্রায় খেলতে নেমে ওপেনিং জুটি মোটামুটি ভালোই শুরু করেছিল। কিন্তু সেট হয়ে আউট হয়ে যান তামিম। চলতি বিশ্বকাপে নিজেকে হারিয়ে ফেলা বাঁহাতি এই ওপেনার দেখেশুনে ২২ রানে পৌঁছে গিয়েছিলেন। তারপর আর ইনিংস বড় করতে পারেননি। তামিম ফেরার পর সৌম্যকে নিয়ে হাল ধরার চেষ্টা করেন সাকিব আল হাসান। দ্বিতীয় উইকেটে তাদের ৩৫ রানের জুটিটি ভাঙে হার্দিক পান্ডিয়ার করা ১৬তম ওভারের প্রথম বলে, সৌম্যর ভুল শটে।


সৌম্য ফিরে গেলেও দলের ব্যাটিংয়ের স্তম্ভ, মুশফিকুর রহিম দারুণ স্বাচ্ছন্দ্যেই শুরুটা করেছিলেন। ২৩ বলেই ৩ বাউন্ডারিতে ২৪ রান তুলে ফেলা এই ব্যাটসম্যান হঠাৎ সুইপ করতে গিয়ে ফাঁদে পড়েন। ইয়ুজবেন্দ্র চাহালের বলে মিড উইকেটে মোহাম্মদ শামির হাতে ক্যাচ হন তিনি। হার্দিক পান্ডিয়ার করা ৩০তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাঁকানোর এক বল পরেই পুল করতে গিয়ে লিটন ধরা পড়েন শর্ট মিড উইকেটে দাঁড়ানো দিনেশ কার্তিকের হাতে। বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি মোসাদ্দেকও। ৩৩তম ওভারে দলীয় ১৭৩ রানের মাথায় বুমরাহর স্লোয়ার ডেলিভারিতে সরাসরি বোল্ড হয়ে যান তিনি।


শেষদিকে সাব্বির রহমান আর সাইফউদ্দিনের ব্যাট দেখায় নতুন স্বপ্ন। ইনিংসের সর্বোচ্চ জুটিটাই হয় এই দুইজনের। ৬৬ রান যোগ করে ৩৩ রানে ভুমরাহর বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন সাব্বির রহমান। সাব্বিরের বিদায়ের পর সাইফউদ্দিন একা হাতে টেনে নেয়ার চেষ্টা তাকে বিশ্বকাপে নিজের প্রথম অর্ধশত এনে দেয় ৩৭ বলে।


তবে যোগ্য সঙ্গীর অভাবে শেষ পর্যন্ত দলকে টেনে নিতে পারেননি জয়ের বন্দরে। ৫১ রানে অপরাজিত থেকে দেখতে হয় সতীর্থদের যাওয়া আসা আর স্বপ্ন ভঙ্গের গল্পটা। ৪৮ ওভারে ২৮৬ রানে সব উইকেট হারিয়ে ২৮ রানের হারে সেমি-ফাইনালে উঠার আগেই ছিটকে পড়তে হয়েছে বাংলাদেশকে।


ভারতের হয়ে জাসপ্রিত বুমরাহ নেন ৪ উইকেট। এছাড়া পান্ডিয়া নেন ৩টি, ১টি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর, মোহাম্মদ শামি ও যুজবেন্দ্র চাহাল।


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com