সাকিবের সঙ্গে জুয়াড়ির কী কথা হয়েছিল?
প্রকাশ : ৩০ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৫৪
সাকিবের সঙ্গে জুয়াড়ির কী কথা হয়েছিল?
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বড় খবর এখন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ব্যাটে-বলে নয়, বরং নেতিবাচক শিরোনাম হয়ে এসেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। জুয়াড়িদের কাছ থেকে পাওয়া অনৈতিক প্রস্তাবের কথা গোপন করায় দুই বছরের জন্য সবধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন সাকিব। ফলে ফিক্সিং না করেও তথ্য গোপন করার অভিযোগে শাস্তি পেতে হলো তাকে। তবে এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞার কারণে ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর থেকেই আবার মাঠে ফিরতে পারবেন সাকিব।


মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। আইসিসির এই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উঠে এসেছে সাকিবের সঙ্গে সেই জুয়াড়ির বিস্তারিত যোগাযোগের সব তথ্য। অর্থাৎ কী ধরনের প্রস্তাব পেয়েছিলেন সাকিব। সেই তথ্যই পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।


১. ২০১৭ সালের ৪ নভেম্বর থেকে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসর অনুষ্ঠিত হয়। সে সময় ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলেছিলেন সাকিব।


২. তারই পরিচিত কোনো এক ব্যক্তি দীপক আগারওয়াল নামে এক ভারতীয় জুয়াড়িকে তার ফোন নম্বর দিয়েছেন যাকে আল হাসান চিনতেন।


৩. নভেম্বর ২০১৭ এর মাঝামাঝি সময়ে হোয়াটসঅ্যাপে আগারওয়ালের সঙ্গে সাকিব কিছু বার্তা আদান-প্রদান করেন। তখনই আগারওয়াল সাকিবের সঙ্গে দেখা করার প্রস্তাব দেন।


৪. ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা-জিম্বাবুয়েকে নিয়ে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের সময় দলের অনুশীলনে অংশ নেন সাকিব। সিরিজ চলাকালীন দুজনের মধ্যে আবারো হোয়াটসঅ্যাপে বার্তা আদান-প্রদান হয়।


৫. ১৯ জানুয়ারি সাকিবকে অভিনন্দন জানিয়ে খুদে বার্তা পাঠান আগারওয়াল, যেখানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচসেরা হন সাকিব। সেদিনই সাকিবকে একটি বার্তা পাঠান আগারওয়াল, যেখানে লেখা ছিল- ‘কাজটা কি এখনই হবে, নাকি আমি আইপিএল পর্যন্ত অপেক্ষা করব?’


৬. এখানে ‘কাজ’ বলতে মূলত দলের ভেতরের খবর ফাঁস করাকে বুঝিয়েছেন আগারওয়াল।


৭. আগারওয়ালের কাছ থেকে পাওয়া এই প্রস্তাবের কথাই আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু) বা অন্য কোনো দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাকে জানাননি সাকিব।


৮. ঠিক এর চার দিন পর ২৩ জানুয়ারি আগারওয়ালের কাছ থেকে আরো একটি হোয়াটসঅ্যাপ বার্তা পান সাকিব। যেখানে দলের ভেতরের খবর ফাঁস করার জন্য আবারো সাকিবকে প্রস্তাব দেন তিনি। বার্তায় আগারওয়াল বলেন, ‘এই সিরিজের ব্যাপারে কি কোনো তথ্য পেতে পারি?’


৯. সাকিব তথ্যটি নিশ্চিত করেন যে আগাওয়াল তাকে ত্রিদেশীয় সিরিজের তথ্য দিতে বলেছিলেন।


১০. একই প্রস্তাব আবার পেলেও দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাকে এবারো কোনো কিছুই জানাননি সাকিব।


১১. ২৬ এপ্রিল ২০১৮, আইপিএলে সাকিব সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে মাঠে নামেন।


১২. সেদিন হোয়াটসঅ্যাপে পুনরায় সাকিবকে বার্তা পাঠান আগারওয়াল যে, তার (সাকিব) দলের একজন নির্দিষ্ট খেলোয়াড় ওই ম্যাচে খেলবেন কি-না। এছাড়া দলের ভেতরের আরো কিছু তথ্য জানতে চান আগারওয়াল।


১৩. সেদিন আগারওয়ালের সঙ্গে অনেকক্ষণ ধরেই কথা চালিয়ে যান সাকিব। আগারওয়াল সাকিবের কাছে ডলার অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত তথ্য জানতে চান। সাকিব জবাবে তাকে জানান যে, তিনি আগারওয়ালের সঙ্গে দেখা করতে চান ‘প্রথমে’।


১৪. ২৬ এপ্রিলের সেই ‘চ্যাটিংয়ের বেশ কিছু অংশ সাকিব ফোন থেকে ডিলিট করে দেন। দলের ভেতরের যে তথ্য জানতে চেয়েছিলেন আগারওয়াল, সেই বার্তাগুলোই ডিলিট করেন সাকিব। দুর্নীতি দমন ইউনিটের কাছে সাকিব এটা স্বীকার করেছেন।


১৫. ওই দিনের কথোপকথনের পরেই আগারওয়ালের বিষয়টা নিয়ে সাকিবের সন্দেহ হয়। আগারওয়াল যে একজন জুয়াড়ি, সেটা বুঝতে পারেন সাকিব।


১৬. এবারো সাকিব আকসুকে ২৬ এপ্রিলের ঘটনার ব্যাপারে কিছুই জানাননি।


সাকিব আল হাসান আকসুকে জানান, আগারওয়ালের দেয়া কোনো প্রস্তাবেই তিনি রাজি হননি। আগারওয়ালের দেয়া প্রস্তাবে দলের অভ্যন্তরীণ কোনো তথ্যই তিনি ফাঁস করেননি। এমনকি আগারওয়ালের কাছ থেকে কোনো ধরনের নগদ অর্থ কিংবা অন্য কোনো উপহারও তিনি নেননি।


শুধু মাত্র আকসুর কাছে তথ্য গোপনের কারণেই সাকিবকে এই শাস্তির মুখে পড়তে হলো।


বিবার্তা/এরশাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com