সেতু বিড়ম্বনায় ভুরুঙ্গামারীর মানুষ, বাড়ছে জীবনের ঝুঁকি
প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ১৮:৩৩
সেতু বিড়ম্বনায় ভুরুঙ্গামারীর মানুষ, বাড়ছে জীবনের ঝুঁকি
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার বেশ কিছু সেতু-ব্রীজ-কালভার্ট এক একটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। হাজার হাজার মানুষকে সেখানে চলাচল করতে হচ্ছে জান-মালের ঝুঁকি নিয়ে।


শনিবার সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের দুধকুমর নদের উপর ব্রিটিশ আমলে নির্মিত প্রায় ১৩৫ বছরের পুরনো সোনাহাট রেল সেতুর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে অনেক আগেই। নড়বড়ে সেতুটি যেকোনো সময় ভেঙ্গে পড়ে ঘটতে পারে বড় রকমের দুর্ঘটনা। বন্ধ হয়ে যেতে পারে সোনাহাট স্থল বন্দরের যাবতীয় কার্যক্রম। এটির পাশে আর একটি সেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সরকার। তবে নির্মাণ কাজ শুরু না হওয়ায় সেতুর পূর্ব দিকের ৫টি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষকে অন্তত আরও দুই বছর জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেতু পারাপার হতে হবে।


ওদিকে পাথরডুবী ইউনিয়নের ফুলকুমার নদের উপর নির্মিত থানাঘাট সেতুটি নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দ্বারা নির্মিত হওয়ায় মেয়াদ ঊত্তীর্ণ হওয়ার আগেই তিন খন্ডে খন্ডিত হয়ে এখন কোনোমতে দাঁড়িয়ে আছে। মাস ছয়েক আগে ভাঙ্গা সেতুর পাশে অপর একটি সেতু নির্মাণ শুরু হলেও বিভিন্ন জটিলতার কারণে সেটি বন্ধ রয়েছে। ফলে লোহার রডে বাঁধা সেতুই তাদের চলাচলের একমাত্র ভরসা। যেকোনো সময় সেতুটি ভেঙ্গে ঘটতে পারে প্রাণহানির মতো দুর্ঘটনা।


এছাড়া একই ইউনিয়নের বাঁশজানি গ্রামের নাউডোর সেতুটি এবারের বন্যায় পুরোপুরি ভেঙ্গে গেলে বাঁশের সাঁকো বানিয়ে চলাচল করছে ওই এলাকার জনসাধারণ। এ নিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করা কোমলমতি শিক্ষার্থীরা রয়েছে চরম ঝুঁকির মধ্যে।


ওদিকে শিলখূঁড়ি ইউনিয়নের উত্তর ধলডাঙ্গায় গদাধর নদের উপর নির্মিত শালঝোড় সেতু ঠিকঠাক দাঁড়িয়ে থাকলেও সংযোগ সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা সচল রাখার জন্য এলাকাবাসী বাঁশ দিয়ে নির্মাণ করেছে প্রায় ১৫ ফুট লম্বা সংযোগ সড়ক। নদী দ্বারা বিছিন্ন সীমান্তবর্তী শালঝোড়ের অর্থনৈতিক উন্নয়নের চাকা সচল রাখতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ স্থাপনে এর উপরেই নির্ভর করছেন এলাকাবাসী।


তাছাড়া বলদিয়া ইউনিয়নের বলদিয়া স্কুল এন্ড কলেজের পিছন দিকের রাস্তার উপর নির্মিত সেতুর দুইপাশে বাঁশের সাঁকো তৈরি করে চলাচল করছেন ওই এলাকার জনসাধারণ ও শিক্ষার্থীরা। একই ইউনিয়নের বলদিয়া মরা শংকোষ নদীর (ছড়া) উপর নির্মিত সেতুর পশ্চিম দিকের সংযোগ সড়কটি দীর্ঘদিন যাবত ভাঙ্গা থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ভেলা দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে ওই এলাকার জনসাধারণকে। বঙ্গ সোনাহাট ইউনিয়নের চর বলদিয়া গ্রামের সড়কের উপর নির্মিত সেতুর এক প্রান্তের সংযোগ সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ায় এলাকাবাসীকে পোহাতে হচ্ছে সীমাহীন দুর্ভোগ।


এ ব্যাপারে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুন্নবী চৌধুরী খোকন জানান, উপজেলার সাথে গ্রামাঞ্চলের যোগাযোগের ৮টি সেতু, ব্রীজ, কালভার্ট ভেঙ্গে এলাকাবাসীর যোগাযোগে দুর্ভোগ বেড়েছে। বিষয়টি বহুবার সংশ্লিষ্ট বিভাগকে জানিয়েও কোনো কাজ হয়নি। আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি দ্রুত এসব সেতু ও ব্রীজের কাজ করে যেন সাধারণ মানুষসহ ব্যবসায়ী ও শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি লাঘব করা হয়।


সেতুগুলো সর্ম্পকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের ভূরুঙ্গামারী উপজেলা প্রকৌশলী এন্তাজুর রহমান জানান, ক্ষতিগ্রস্থ সেতুগুলোর তালিকা প্রণয়ন করে উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


ভুরুঙ্গামারী উপজেলার অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরাণ্বিত করতে দ্রুত সেতুগুলো সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন উপজেলাবাসী।


বিবার্তা/সৌরভ/শাহনেওয়াজ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com