জমেনি যশোরের বৃহত্তম চামড়ার হাট
প্রকাশ : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৮:৪৬
জমেনি যশোরের বৃহত্তম চামড়ার হাট
এইচ আর তুহিন, যশোর
প্রিন্ট অ-অ+

খুলনা বিভাগের সবচেয়ে বড় এবং দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চামড়ার বাজার বসে যশোরের রাজারহাটে। মঙ্গলবার ছিল কোরবানি ঈদ পরবর্তী প্রথম হাটবার। কিন্তু এবার হাটে প্রাণচাঞ্চল্য নেই বললেই চলে।


চামড়া হাটে তুলে ব্যবসায়ীদের মাথায় হাত উঠেছে। সবার চোখে মুখে যেন অন্ধকার। সব মিলিয়ে হাট জমেনি। অনেক ব্যবসায়ী চামড়া লবণজাত করে মজুদ করে রেখেছেন। দাম ভালো পেলে হাটে তুলবেন। চামড়া মজুদ করে রাখায় বড় বড় ব্যবসায়ীরা ভারতে পাচারের আশঙ্কা করছেন। তবে বিজিবি এ আশঙ্কা একেবারেই উড়িয়ে দিয়েছে।


যশোরের মণিরামপুর উপজেলার গোয়ালদা গ্রামের রিপন হোসেন ৫০টি গরু ও ৬০টি
ছাগলের চামড়া নিয়ে এসেছিলেন রাজারহাটে। তিনি জানান, গ্রাম থেকে চামড়া সংগ্রহ করে লবণজাত ও শ্রমিক খরচ মিলিয়ে তার গরুর চামড়া কেনা পড়ে ৫০ টাকা ফুট। আর ছাগলের ৩৫ টাকা করে। কিন্তু এদিন হাটে গরুর চামড়া বিক্রি হয়েছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ছাগলের ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়। এতে লোকসানের আশঙ্কায় তিনি চামড়া ফেরত নিয়ে যান।


শুধু রিপন দাস নয়, মঙ্গলবার রাজারহাটে বেশিরভাগ খুচরা ব্যবসায়ী চামড়া বিক্রি করেননি। এতে চামড়া ভারতে পাচারের আশংকা করছেন ব্যবসায়ীরা।


খুলনা বিভাগের সবচেয়ে বড় এবং দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চামড়ার বাজার বসে যশোরের রাজারহাটে। সপ্তাহে দু’দিন শনিবার ও মঙ্গলবার এখানে চামড়ার কেনাবেচা চলে। কোরবানি ঈদ পরবর্তী সময়ে তাই এ বাজারের দিকে নজর থাকে দেশের শীর্ষ চামড়া ব্যবসায়ীদের।


রাজারহাটের স্থানীয় ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন জানান, ট্যানারি মালিকদের সিন্ডিকেটের কারণে এবার চামড়ার বাজার খারাপ। কেননা লবনের দাম চামড়ার খরচ বাড়িয়ে দিয়েছে। আগে যেখানে লবণের বস্তা এক হাজার টাকা ছিল। সেখানে এবার এক হাজার ৪শ’ টাকায় কিনতে হয়েছে।


তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার হাটে ভালো গরুর চামড়া বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা ফুট। আর ছাগলের ৩০ টাকা ফুট। কিন্তু চামড়া কেনা একং লবণ, শ্রমিক খরচের কারণে গরুর চামড়া কেনা পড়েছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা ফুট দরে। এই দাম হাটে পাওয়া যাচ্ছেনা। সদরের ইছালির অর্জুন ঋষি জানান, তিনি চামড়ার কাঙ্ক্ষিত দাম পাননি। যেদামে চামড়া কিনেছিলেন সেই দামে বিক্রি করেছেন।


বৃহত্তর যশোর জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আকিল আহমেদ জানান, এবার
ব্যবসায়ীদের হাতে কোনো টাকা নেই। সব পুঁজি আটকা পড়েছে ঢাকার ট্যানারি মালিকদের কাছে। ট্যানারি মালিকদের কাছে ব্যবসায়ীদের বকেয়া রয়েছে প্রায় ১০ কোটি টাকা। গত বছরের পাওনার ২৫ ভাগ টাকা দিয়েছে ট্যানারি মালিকরা। এই টাকায় দেনা শোধ করবে, না নতুন করে চামড়া কিনবে। যেকারণে এদিন হাটে তেমন ক্রেতা নেই। এতে চামড়া পাচারের আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। প্রশাসনকে সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে হবে।


তাছাড়া ট্যানারি মালিকরা গরুর চামড়া বর্গফুট ৪৫ টাকা আর ছাগলের দাম ৩০ টাকা নির্ধারণ করে দেয়ায় ব্যবসাযীদের আগ্রহ কমে গেছে। তিনি জানান, পুঁজি সংকটের মধ্যেও লবণ সংকট চলছে।


যশোর ছাড়াও আশপাশের জেলাগুলো থেকে ব্যবসায়ীরা চামড়া নিয়ে হাজির হন এই হাটে। রাজারহাটের এই চামড়াহাটকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি হয়েছে প্রায় ১০ হাজার লোকের কর্মসংস্থান। দুই শতাধিক আড়ৎ রয়েছে এই মোকামে। প্রতি কোররবানির ঈদে রাজারহাটে ১৫ থেকে ২০ কোটি টাকার চামড়া বেচাকেনা হয়ে থাকে।


বৃহত্তর যশোর জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির নেতা আলাউদ্দিন মুকুল বলেন, সরকার চামড়া কেনার জন্য ট্যানারি মালিকদের কোটি কোটি টাকা ঋণ দিলেও সেই টাকা তারা চামড়া খাতে ব্যয় না করে অন্য খাতে ব্যয় করেন। কোরবানির সময় আসলে তাদের হাতে আর টাকা থাকে না, তখনই তারা সিন্ডিকেট করে চামড়ার দাম কমিয়ে দেন। এবারও তাই হয়েছে। টাকার অভাবে ব্যবসায়ীরা চামড়া কিনতে পারছে না। তাছাড়া লবণের দাম বৃদ্ধিার কারণে এবার অনেক চামড়া নষ্ট হয়ে যাবে।


খুচরা ব্যবসায়ীরা চোখের পানি ফেলে লোকসান করে চামড়া বিক্রি করছে। স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ী মোস্তাক আহমেদ জানান, পেশাদার চামড়া ব্যবসায়ীদের পুঁজি সংকটের সুযোগ নেবে মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। তারা বাজার দরের চেয়ে বেশি দামে পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে চামড়া সংগ্রহ করে থাকে। পরে বাজারে চাহিদামত দাম না পেয়ে তারা পাচারকারী চক্রের হাতে চামড়া তুলে দেয়।


রাজারহাটের ইজারাদার হাসানুজ্জামান হাসু জানান, প্রতিবছরই হাটের ইজারা দর বাড়ছে। সেখানে চামড়া বিক্রি কমছে। এবারও হাটে তেমন চামড়া বিক্রি হবে না। সব মিলিয়ে মাত্র ৮ থেকে ১০ হাজার চামড়া হাটে উঠেছে। তাও আবার বিক্রি হচ্ছে না। এতে আমদের লোকসান গুনতে হবে।


বিজিবির যশোর অঞ্চলের কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল আরিফুল হক জানান, চামড়া পাচার ঠেকাতে আমাদের সব প্রস্তুতি রয়েছে। ইতোমধ্যে সব বিওপিকে আমরা অ্যালার্ট করে দিয়েছি।


বিবার্তা/তুহিন/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com