ঢাবি অধ্যাপক ড. তাজমেরি কারাগারে, বইছে প্রতিবাদের ঝড়!
প্রকাশ : ১৫ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:৫০
ঢাবি অধ্যাপক ড. তাজমেরি কারাগারে, বইছে প্রতিবাদের ঝড়!
মহিউদ্দিন রাসেল
প্রিন্ট অ-অ+

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অবসরপ্রাপ্ত প্রবীণ অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস ইসলামকে নাশকতার একটি মামলায় গ্রেফতারসহ কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড় বইছে। বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকেও এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ঘটনার সমালোচনা শুরু হয়েছে।


জানা যায়, ড. তাজমেরী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষক এবং বিএনপিপন্থী শিক্ষক সংগঠন সাদা দলের আহ্বায়ক ছিলেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের সাবেক ডিন ও রোকেয়া হলের প্রভোস্ট ছিলেন। রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবেও তিনি দায়িত্বপালন করেছেন।


বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর উত্তরার ১৩ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর রোডের একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।


পরে ওইদিন রাতে উত্তরা পশ্চিম থানায় কর্তব্যরত এসআই মাহমুদ হাসান বলেন, ২০১৮ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর মারপিটসহ দণ্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় করা মামলায় তাজমেরী এস ইসলামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ছিল। সেই মামলায় বৃহস্পতিবার সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়।


৭০ ঊর্ধ্ব প্রবীণ এই অধ্যাপকের গ্রেফতারের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে সেইদিন রাতে তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব ও সদস্য সচিব আমান উল্লাহ আমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানানো হয়।


বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রদল বলেন, অধ্যাপক ড. তাজমেরীকে একটি মিথ্যা, বানোয়াট ও গায়েবি মামলায় জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।


বিজ্ঞপ্তিতে তারা আরো বলেন, ড. তাজমেরী একজন দেশপ্রেমিক শিক্ষাবিদ। তার পিতা মরহুম আলহাজ্ব সিরাজুল হক তালুকদার একজন সংসদ সদস্য ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবে তিনি ছিলেন স্বনামধন্য এবং প্রশাসক হিসেবেও তিনি খ্যাতি অর্জন করেছিলেন। এমন একজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা দেয়া এবং জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানো এক ধরনের নির্মম পরিহাস। অবিলম্বে অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি এবং ঢাবি প্রশাসনকে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়।


একই ঘটনায় শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সংগঠন ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইউট্যাব) এক বিবৃতিতে ঘটনার নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে অধ্যাপক ড. তাজমেরীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছে।


বিবৃতিতে ইউট্যাবের সভাপতি অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম ও মহাসচিব অধ্যাপক ড. মো. মোর্শেদ হাসান খান বলেন, একটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় অধ্যাপক তাজমেরী এস এ ইসলামকে বাসা থেকে গ্রেফতারের পর কারাগারে পাঠানোর ঘটনা অত্যন্ত লজ্জাজনক। আমরা শিক্ষক সমাজ এমন কর্মকাণ্ডের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।


একইদিন বিকালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলামকে গ্রেফতার ও কারাগারে পাঠানোর ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বিভিন্ন বিভাগের ১০১ শিক্ষক।


ওই বিবৃতিতে শিক্ষকরা বলেন, রসায়নবিদ অধ্যাপক ড. তাজমেরী ইসলাম শুধু দেশ নয়, আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও সমানভাবে সুপরিচিত। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান, বিজ্ঞান অনুষদের একাধিক মেয়াদে নির্বাচিত ডিন, রোকেয়া হলের প্রভোস্ট, শিক্ষক সমিতির সভাপতি এবং সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্য হিসেবেও সাফল্যের সাথে দায়িত্বপালন করেছেন।


শিক্ষকরা বলেন, অধ্যাপক তাজমেরী এস এ ইসলাম একজন নারী ও দেশের জোষ্ঠ্য নাগরিক। তাকে গ্রেফতার এবং কারাগারে পাঠানো মানবাধিকারের পরিপন্থী। অবিলম্বে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে অধ্যাপক তাজমেরী ইসলামকে নিঃশর্ত মুক্তি দানের জন্য আমরা জোর দাবি জানাই। অন্যথায় তাকে মুক্ত করণে শিক্ষক ও পেশাজীবী সমাজ জোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবে।


বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন প্রফেসর ড. শামসুল আলম সরকার, কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ডক্টর ফজলুর রহমান, বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. সাহেদ জামান, প্রফেসর ড. আমজাদ হোসেন, প্রফেসর ড. সায়েদুল হক পান্নু, প্রফেসর ড. মতিয়ার রহমান, প্রফেসর ড. হাছানাত আলী, প্রফেসর ড. মাসুদুল হাসান খান মুক্তা, প্রফেসর ড. আনিছুর রহমান, প্রফেসর ড. আমিনুল হক, প্রফেসর ড. তরিকুল ইসলাম, প্রফেসর ড. নুরুল আলম, প্রফেসর ড. আব্দুল হান্নান, প্রফেসর ড. সাজিদ, প্রফেসর ড আনোয়ারুল কবির রুবেল, প্রফেসর ড স্বপ্নীল রহমান প্রমুখ।


ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান।


বিবৃতিতে অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত কৃতি শিক্ষক এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলামকে গ্রেফতার ও কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় আমরা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি। আমরা এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।


জাতীয়তাবাদী মহিলা দলও এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে ঘটনার নিন্দা জানানোর পাশাপাশি উদ্বেগ প্রকাশ করেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস এবং বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ।


বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় অবিলম্বে অধ্যাপিকা তাজমেরী ইসলামের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানিয়েছেন।


বিবার্তা/রাসেল/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com